নিজস্ব প্রতিনিধি:
রাজধানীর ভাষানটেক ও গাজীপুর জেলার টঙ্গি এলাকা হতে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন ‘আনসার আল ইসলাম’ এর ০১ নারীসহ ০৪ সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। এ সময় উগ্রবাদী পুস্তিকা ও লিফলেট উদ্ধার করা হয়।
.
গত ৩১ জানুয়ারি ২০২১খ্রিঃ র‌্যাব-৪ এর গ্রেফতারকৃত ‘আনসার আল-ইসলাম’ এর ০৪ সদস্য হতে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল ১২ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৩ ফেব্রুয়ারি ০২.৩৫ পর্যন্ত র‌্যাব-৪ এর একটি আভিযানিক দল রাজধানীর ভাষানটেক ও গাজীপুর জেলার টঙ্গি এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন “আনসার আল ইসলাম” এর ০১ নারীসহ নিম্নোক্ত ০৪ জন সক্রিয় সদস্য’কে গ্রেফতার করে।
.
গ্রেফতারকৃতরা হলেন, মোঃ মাহবুব আলম (২৫),মোঃ আমিরুল ইসলাম (২৪), মোঃ মামুন মিয়া (২৫), মোসাঃ শাহিদা বেগম (২৪)।
.
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন ‘আনসার আল ইসলাম’ এর সক্রিয় সদস্য বলে স্বীকারোক্তি প্রদান করে এবং তাদের নিকট থেকে ‘আনসার আল ইসলাম’ এর বিভিন্ন ধরনের ১২ টি উগ্রবাদী বই, ০৬ টি মোবাইল এবং ১১৫ টি জঙ্গিবাদী কথোকথনের প্রমাণাদি জব্দ করা হয়।
.
মোঃ মাহবুব আলম’কে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, সে এইচএসসি পাশ করে একটি বেসরকারী সিকিউরিটি কোম্পানীতে গার্ড হিসেবে কাজ করার পাশাপাশি মধু ও দুধের ব্যবসা করে আসছে। সে বিগত ৪ বছর যাবৎ ‘আনসার আল ইসলাম’ এর সক্রিয় সদস্য হিসেবে ‘আনসার আল ইসলাম’ এর সদস্যদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ স্থাপনের পাশাপাশি অন্যদের উদ্ধুদ্ধকরণের জন্যে অনলাইনে বিভিন্ন উগ্রবাদী মতবাদ প্রচার করে আসছিলো।
.
মোঃ আমিরুল ইসলাম’কে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, সে টঙ্গি এলাকায় জুয়েলারী ব্যবসার কারিগর হিসেবে কাজ করত। সে গত ১ বছর যাবৎ ‘আনসার আল ইসলাম’ এর সাথে জড়িত থেকে তাদের নিজস্ব ইলেকট্রনিক গ্রুপে ও অনলাইনে বিভিন্ন উগ্রবাদী লেখালেখি এবং ভিডিও প্রচার করে আসছিলো।
.
মোঃ মামুন মিয়া’কে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, সে পেশায় একজন ড্রাইভার। জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানা যায় গ্রেফতারকৃত মোঃ মামুন গত ৪ বছর যাবত ‘আনসার আল ইসলাম’ এর সাথে জড়িত থেকে অন্যান্য সদস্যদের সাথে গোপন বৈঠকের পাশাপাশি চাঁদা ও নতুন সদস্য সংগ্রহ করে আসছিলো।
.
মোসাঃ শাহিদা বেগম’কে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, সে পেশায় একজন ছাত্রী এবং ‘আনসার আল ইসলাম’ এর সাথে জড়িত থেকে নতুন মহিলা সদস্য সংগ্রহ করে আসছিলো।
.
এছাড়াও সে তার পরিবারের সদস্যদের থেকে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গত ৬ মাস আগে একই উগ্রবাদি মতাদর্শে বিশ্বাসী মোঃ মামুন মিয়া এর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে উগ্রবাদি কার্যক্রম আরো বেগবান করার প্রচেষ্টা চালিয়ে আসছিলো বলে স্বীকারোক্তি প্রদান করে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি অন্যান্য সহোচরদের গ্রেফতারে র‌্যাব এর গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত রয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

three × 3 =