তৈরি পোশাক মালিক প্রস্তুত ও রফতানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ) আন্তর্জাতিক পোশাক বাজারে রফতানি পণ্যে দেশের ঐতিহ্য উপস্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে। এ উদ্যোগ সফল করতে বাংলাদেশের এইচএসবিসি ব্যাংক লিমিটেড ও বিজিএমইএর মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

সোমবার (৮ ফেব্রুয়ারি) গুলশানে অবস্থিত বিজিএমইএ পিআর অ্যান্ড মিডিয়া সেলে এই চুক্তি সই হয়। এ চুক্তির আওতায় এইচএসবিসি লিমিটেড বিজিএমইএ’র ঘোষিত প্রতিশ্রুতি ‘রফতানি পণ্যে ঐতিহ্য উপস্থাপন’ উদ্যোগটিকে স্পন্সর করবে।

বিজিএমইএ’র পক্ষে সভাপতি ড. রুবানা হক এবং এইচএসবিসি ব্যাংক লিমিটেডের পক্ষে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. মাহবুব উর রহমান চুক্তিটি স্বাক্ষর করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বিজিএমইএ’র সহ-সভাপতি (অর্থ) এম এ রহিম (ফিরোজ), পরিচালক মোহাম্মদ আবদুল মোমেন, পিআর কমিটির চেয়ারম্যান খান মনিরুল আলম (শুভ), আরএসসি কমিটির চেয়ারম্যান নাফিস-উদ-দৌলা এবং এইচএসবিসির হোলসেল ব্যাংকিং প্রধান কেভিন গ্রিনসহ উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা।

প্রসঙ্গত, বিজিএমইএ সরকারের এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ‘গো হিউম্যান গো গ্রিন’ উদ্যোগের আওতায় প্রথমবারের মতো সাতটি প্রতিশ্রুতির ঘোষণা করেছে, যার মধ্যে অন্যতম হলো- ফ্যাশন বিশ্বে রফতানি পণ্যে ঐতিহ্য উপস্থাপন। এ উদ্যোগের আওতায় বিজিএমইএ ১৪টি বৃহৎ দেশের (জার্মানি, ইউকে, স্পেন, ফ্রান্স, ইতালি, পোল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, ডেনমার্ক, বেলজিয়াম, সুইডেন, জাপান, অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা) ক্রেতাদেরকে আকৃষ্ট করার জন্য রফতানি পোশাকে বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য উপস্থাপন করে ফ্যাশন শো’র আয়োজন, তথ্য ও ভিডিওচিত্র নির্মাণসহ বিভিন্ন ধরনের প্রচারণার বিশদ পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে।

বিজিএমইএ বিশ্বাস করে, ঐতিহ্যকে সঙ্গে নিয়েই জাতিকে অগ্রসর হতে হবে। সংগঠনটির মতে, যদি ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি রফতানি করতে পারি তবে আন্তর্জাতিক ফ্যাশন বিশ্বে আমাদের নিজস্ব পদচিহ্ন এঁকে দিতে পারবো। তবে সেটি হবে এদেশের পোশাক শিল্পের জন্য একটি বিশাল মাইলফলক।

বিজিএমইএ এ বিষয়েই কাজ করছে। ইতোমধ্যে বিজিএমইএ দেশি-বিদেশি ফ্যাশন ডিজাইনারদেরকে সঙ্গে নিয়ে এ লক্ষ্যে বেশ কয়েকটি প্রকল্পও গ্রহণ করেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

one × 4 =