নিজস্ব প্রতিবেদক: 
দেশের বিভিন্ন জেলায় বইছে মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ। তীব্র শীতে জনজীবনে বেড়েছে দুর্ভোগ। হাসপাতালে বেড়েছে ঠাণ্ডাজনিত রোগী। বিপাকে বোরো চাষিসহ মৌসুমী সবজি চাষিরা। এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, শৈত্যপ্রবাহ থাকবে আরও দুই সপ্তাহ, তবে কমে আসবে তীব্রতা।
.

তীব্র শীতে দিনভর সূর্যের লুকোচুরি ও কুয়াশার দাপট চুয়াডাঙ্গায়। ব্যাহত স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। হাসপাতালগুলোতে বেড়েছে শীতজনিত রোগীর সংখ্যা। মঙ্গলবার জেলায় সর্বনিম্ন ৬ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। তীব্র শীতে বিপর্যস্ত জনজীবন।
.
গত কয়েকদিন ধরে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে জেঁকে বসেছে শীত। মঙ্গলবার এখানকার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৬.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। প্রচণ্ড ঠান্ডায় বিপাকে বোরো চাষিসহ মৌসুমী সবজি চাষিরা।
.
মাঘের শুরু থেকেই পঞ্চগড়ে বেড়েছে শীতের তীব্রতা। ঘন কুয়াশা আর শিতল বাতাসে স্থবির জনজীবন। মঙ্গলবার জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৬.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শীতবস্ত্র না থাকায় ভোগান্তিতে অনেকেই।
.
গাইবান্ধায় শীতের তীব্রতায় স্থবির জনজীবন। ঘন কুয়াশা আর ও কনকনে ঠান্ডায় ব্যহত স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। শীতবস্ত্রের অভাবে দুর্ভোগে জেলার ১৬৫টি চরাঞ্চলের অতিদরিদ্র মানুষ। এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, চলতি মাসের ১৫ তারিখ পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে শৈত্যপ্রবাহ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

eleven + sixteen =