স্পোর্টস ডেস্ক:

আর্জেন্টিনার কিংবদন্তি দিয়েগো মারাডোনার প্রয়াণে দেশটির সরকার তিন দিনের শোক ঘোষণা করেছে। এক শোক বার্তায় দেশটির প্রেসিডেন্ট আলবের্তো ফেরনান্দেসের জানান, তিনি শুধু আমাদের আনন্দই দিয়েছেন। আমরা তার কাছে ঋণী। রাজ্যের সব দুয়ার দিয়েগোর জন্য খোলা।

হার্ট অ্যাটাকে বুধবার (২৫ নভেম্বর) মারা যান ফুটবল ইতিহাসের অন্যতম সেরা ফুটবলার মারাডোনা। তার একক প্রচেষ্টায় আর্জেন্টিনাকে ১৯৮৬ বিশ্বকাপ এনে দেয়া এই তারকা দেশের মানুষের কাছে ছিলেন মহাতারকা।
.
কয়েক দিন আগেই মস্তিস্কে জটিল অস্ত্রোপচার করা হয় মারাডোনার। সুস্থ হয়ে বাড়িতে ফিরেছিলেন। কিন্তু এবার আর ফেরানো যায়নি তাকে। ৬০ বছর বয়সে চির বিদায় নেন এই আর্জেন্টাইন গ্রেট।
.
এর আগেও বেশ কয়েকবার মৃত্যুর মুখে পড়তে হয়েছে তাকে। মাঠ এবং মাঠের বাইরে সমানভাবে আলোচনায় থাকা ম্যারাডোনা ২০০০ সালে একেবারে মৃত্যুর কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছিলেন। সেবার দীর্ঘদিন পর হাসপাতাল থেকে মুক্তি পান তিনি। ২০০৫ সালেও জটিল রোগে ভুগতে হয়। পরবর্তীতে ২ বছর পুনর্বাসনে কাটাতে হয় তাকে।
.
খেলোয়াড়ি জীবন থেকেই মাদকাসক্ত ছিলেন এই আর্জেন্টাইন তারকা। তার ব্যক্তিগত আইনজীবি মাতিয়াস মোরলাহাস গণমাধ্যমকে জানান, অতিরিক্ত মাদকাসক্তির জন্য শেষমুহূর্তেও মেডিসিন নিচ্ছিলেন তিনি।
.
বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্লাবগুলো মাতিয়েছেন ম্যারাডোনা। ইতালিয়ান ক্লাব নাপোলিকে বিশ্বদরবারে পরিচিত করে তুলেছিলেন তিনি। তবে সব ছাপিয়ে, ১৯৮৬ সালে আর্জেন্টিনাকে একক নৈপুণ্যে বিশ্বকাপ জেতানোর জন্য চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন এই কিংবদন্তি ফুটবলার।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

5 × one =