ঢাবি প্রতিনিধি:
.

নারী সমাজকে কটূক্তি, সাংবাদিক হেনস্তা এবং ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরকে গ্রেফতারের দাবিতে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মশাল মিছিল করেছে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। বুধবার (১৪ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৭টায় ঢাবির রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে সমাবেশ শেষে শাহবাগ পর্যন্ত মশাল মিছিল করে সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

প্রতিবাদ সমাবেশে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ, কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. আল মামুন বলেন, ‘সমাজে ধর্ষকদের কোনও স্থান নেই। এরা দেশ ও জাতির জন্য অভিশাপ। এদেরকে শক্ত হাতে দমন করে সর্বোচ্চ শাস্তি দিতে হবে যাতে কখনোই এরকম ঘৃণ্য অপরাধ পুনরায় না ঘটে। সম্প্রতি দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন মেধাবী ছাত্রীকে ধর্ষণ করা হয়েছে। সেই ছাত্রী ইতোমধ্যে সুবিচার পাওয়ার জন্য থানায় মামলাও করেছেন। কিন্তু দুঃখের বিষয়, নোয়াখালী, সিলেট ও সাভারে নারী ধর্ষণে জড়িত সকল ধর্ষকদের তাৎক্ষণিকভাবে গ্রেফতার করা হলেও ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলার মূল আসামি হাসান আল মামুন ও নুরুল হক নুরকে এখনও গ্রেফতার করা হয়নি।’

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলেন, ‘নুরুল হক নুর ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সেই মেয়ে সম্পর্কে বাজে মন্তব্য করার মাধ্যমে পুরো নারী সমাজকে হেয় প্রতিপন্ন করেছে। বিচার প্রার্থী মেয়েটিকে কটূক্তি করে নুরু প্রমাণ করেছে সে কতোটা অমানুষ, নোংরা ও মানসিক রোগী। ধর্ষণ, ধর্ষণে সহায়তা, ধর্ষণ পরবর্তী সামাজিকভাবে হেয় করা ও হুমকি দেয়া ইত্যাদি অপরাধের মাত্রাকে আলাদা করে দেখার সুযোগ নেই।’

তিনি আরও অভিযোগ করেন, ‘নুরুর সমর্থকরা একাত্তর টিভির একজন সাংবাদিককে হেনস্তা করেছে। একজন সাংবাদিককে হেনস্তা করার মাধ্যমে প্রমাণিত হয় নুরু গংরা কখনোই সুস্থ ধারার রাজনীতি চর্চা করে না। এরা স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি পাকিস্তানিদের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে চায়।’

মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ, কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. আল মামুনের সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ, কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল। আরও বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনেট মাহমুদ, সহ-সভাপতি কামরুজ্জামান রাজু, শুভ্র মাহমুদ, মাকসুদ হাওলাদারসহ অন্যান্য নেতারা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

6 − 2 =