তিতুমীর কলেজ প্রতিনিধি:
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে সারা দেশে তিন মাসব্যাপী বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচী গ্রহণ করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।
.
আজ ০৯ জুলাই (বৃহস্পতিবার) বিকেলে রাজধানীর সরকারি তিতুমীর কলেজে কলেজ শাখা ছাত্রলীগের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। সরকারি তিতুমীর কলেজ ছাত্রলীগ কর্তৃক উদ্যোগ নেয়া এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য্য। এসময় কর্মসূচিতে অংশগ্রহন করেন সরকারি তিতুমীর কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আশরাফ হোসেন , উপাধ্যক্ষ ড. মোসাঃ আবেদা সুলতানা, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক প্রফেসর মালেকা আক্তার চৌধুরী।
.
এছাড়াও সরকারি তিতুমীর কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মো. রিপন মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হক জুয়েল মোড়লের নেতৃত্বে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিতে কলেজ ছাত্রলীগের শতাধিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এসময় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আগামী তিন মাস দেশের প্রতিটি জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন, থানা ও ওয়ার্ড পর্যায়ের সকল ইউনিটের ছাত্রলীগের নেতাকর্মীকে আমরা বৃক্ষরোপণ করার নির্দেশ দিয়েছি।
.
সারাদেশে আমাদের প্রতিটি নেতাকর্মী আগামী ৩ মাস (আষাঢ়, শ্রাবণ ও ভাদ্র) সময়ের মধ্যে কমপক্ষে ৩টি (বনজ, ফলদ ও ভেষজ) বৃক্ষ রোপন করবে । তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মনে করে, সৃষ্টির বুকে প্রাণীকুলের বেঁচে থাকার পেছনে বৃক্ষের রয়েছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। বৃক্ষ মূলত পরিবেশ আবহাওয়া ও জলবায়ুর ভারসাম্য বজায় রাখে। বন্যা খরা, ঝড় টর্নেডো, জলোচ্ছাস, ওজনস্তর ক্ষয়, ভূমিক্ষয়, জলবায়ু পরিবর্তন, শব্দদূষণ, মাটিদূষণ, পানিদূষণ, বায়ুদূষণ প্রতিরোধ করে।
.
এক কথা প্রকৃতির অমূল্য ও প্রধান সম্পদ হচ্ছে বৃক্ষ। পৃথিবীকে বসবাসের উপযোগী করতে ও প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের করাল গ্রাস থেকে দেশকে রক্ষা করতে বৃক্ষরোপণের কোন বিকল্প নেই। তাই বৃক্ষরোপণ কার্যক্রমের মাধ্যমে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আশপাশে উঁচু নিচু পতিত জমি, রাস্তার পাশে, নদীর পাড়ে গাছ লাগানো অতীব গুরুত্বপূর্ণ। তাই মুজিববর্ষ উদযাপন এর অনুষঙ্গ হিসেবে ১ কোটি বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি গ্রহণ করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া সংগঠন হিসেবে এবং দেশরত্ন শেখ হাসিনার নির্দেশনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সর্বোচ্চ ভূমিকা রাখবে বলে জানান তিনি।
.
এ সময় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেন, শিক্ষা, শান্তি ও প্রগতির পতাকাবাহী সংগঠন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিজ হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের অভিভাবক বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যন্ত বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সকল নেতাকর্মী যেকোনো দুর্যোগ ক্রান্তিলগ্নে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে।
.
করোনা দূর্যোগেও সারাদেশে ছাত্রলীগের কর্মকান্ড গুলো ছিলো প্রশংসনীয়। যার প্রশংসা স্বয়ং আমাদের নেত্রী করেছেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আমরা বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ১ কোটি বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন করার উদ্যোগ গ্রহন করেছি । ইতোমধ্যে সারা বাংলাদেশে ছাত্রলীগের বৃক্ষরোপণ কার্যক্রম চলছে। আমরা ছাত্রলীগ দেশের যে কোন দূর্যোগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে কাজ করতে প্রস্তুত।

9 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে