জুবায়েদ মোস্তফা:

সতেজ তৃণময় পূর্ণ নীলাদ্রি বিচ্ছুরণ প্রকৃতি বন্ধুর হিমশৈল কলেবরে লেকের বিস্তৃতি বিচিত্র স্তূপ ,লেক আর বারিদের ছল বিকাল বেলা লেকে মন ছুঁয়ে যায় অনর্গল।

নিসর্গজ লাবণ্য চিত্তাকর্ষক নিদর্শন চুম্বকের ন্যায় টানে মদীয় যে আকর্ষণ সর্পিল ধবন মণ্ডলে অশ্মের গা বেয়ে চলে রজনীমুখের ছায়া পড়ে হ্রদের নীল জলে।

দু’ধারে চোখ ধাঁধানো সবুজের সমারোহ উম্মাদ করে আমায় লেকের পাড়ের মোহ প্রজাপতির পরশে বুনোফুল অনিমেষ বিস্ময়ে পুলকে দেখি বসন্তের বেলা শেষ।

ঝুলন্ত সেতু সংযোগ করে দুটি ঢিবিকে নিম্নদেশে বহে লেক আপ্লুত করে নিজেকে বিকেলে সোনালি আলো এসে পড়ে সরোবরে স্নিগ্ধ আবেশে চঞ্চল মনে হর্ষ স্ফুটে ঝরে।

বৈচিত্র্যময় মুখরোচক মোহন লীলাভূমি ঝাউ পরিদৃশ্যে অমত্ত দম আশয়ে দোলে ঊর্মি শহরের কোলাহল ছেড়ে নিসর্গ মাধুর্য বেঁচে থাকার আস্বাদ বাড়িয়ে দেয় আশ্চর্য।

অপরাহ্নের গগনে রঁজক বারিদের ছায়া হৃদয় অম্বরে ঝরা নির্মূল প্রীতিকর মায়া প্রলুব্ধকর পুলকিত সেই দিনের বৈকাল লিপিবদ্ধ রবে মোর স্মৃতিতে অনন্তকাল পুনরাবৃত্তি ঘটে যদি ধরা দিতো এমন কাল।

লেখকঃ শিক্ষার্থী, লোকপ্রশাসন বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে