চীনের উহান শহর থেকে শুরু হওয়া করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত ইতালি। রবিবার দেশটিতে করোনাভাইরাসে প্রাণ হারিয়েছে ৭৫ জন। এ নিয়ে দেশটিতে এই ভাইরাসে মোট প্রাণ হারিয়েছে ৩৩ হাজার ৪১৫ জন। এদিন নতুন আক্রান্ত ৩৫৫ জন। এ নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্ত দুই লাখ ৩৩ হাজার ১৯ জন। গুরুতর অসুস্থ রোগীর সংখ্যা ৪৩৫ জন।

দেশটিতে এখনো চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা ৪২ হাজার ৯৭ জন। রবিবার সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে এক হাজার ৮৭৪ জন এবং মোট সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে এক লাখ ৫৭ হাজার ৫০৭ জন বলে জানিয়েছে দেশটির নাগরিক সুরক্ষা সংস্থার প্রধান অ্যাঞ্জেলো বোরেল্লি।

জনগণকে সুরক্ষা দিতে ইতালি সরকার করোনা মোকাবিলায় সর্বোচ্চ চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। এদিকে দেশটির লোম্বারদিয়ার প্রসিডেন্ট আত্তেলিও ফোন্তানা জানান, আগামী ১৪ জুন পর্যন্ত লোম্বারদিয়া অঞ্চলে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। দেশটিতে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে দেয়া হচ্ছে ৩ জুন থেকে। ফলে ওই দিন থেকে বিভিন্ন দেশের পর্যটক সেখানে যেতে পারবেন।

এ ছাড়া দেশটির পানশালা ও রেঁস্তোরাগুলো খুলে দেয়া হয়েছে ১৮ মে।তবে কিছু শর্ত জুড়ে দেয়া হয়েছে। এগুলো হলো রেস্তোরাঁয় টেবিলের সংখ্যা কমিয়ে ফেলা হয়েছে। এ ছাড়া ফেস শিল্ড ব্যবহারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ওই দিন থেকে খুলে দেয়া হয়েছে সেলুন। তবে স্কুল বন্ধ থাকছে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। জাদুঘর, লাইব্রেরি, দোকান খুলে দেয়া হয়েছে।

বিভিন্ন খেলাধুলার ক্লাবগুলো অনুশীলন শুরু করেছে। সামাজিক দূরত্ব মেনে প্রার্থনার সুযোগ দেয়া হচ্ছে গির্জাগুলোতেও। এ সময় ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পরিস্থিতি নজরে রাখছে জাতীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ। করোনা বিপর্যয় কাটিয়ে ক্রমেই আগের কর্ম চাঞ্চল্যে ফিরে যেতে শুরু করেছে ইতালি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে