আগামী দেড় বছরের মধ্যেই প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস (2019-nCoV)-এর প্রথম টিকা তৈরি হয়ে যাবে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা( ডাব্লিউএইচও)। চারপাশে করোনা আতঙ্কের মধ্যে আশ্বস্ত করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)। মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) হু-র প্রধান টেড্রোস অ্যাধানম জানান, বড়জোর আর ১৮ মাস। তার মধ্যেই চিন থেকে গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের প্রথম টিকা বা প্রতিষেধক চলে আসবে।

সরকারিভাবে এ ভাইরাসটির একট নামও দিয়েছে হু। প্রাণঘাতী এ ভাইরাসটিকে অফিশিয়ালি এবার বলা হবে COVID-19। ২০১৯ সালের শেষ দিকে চিনে আর্বিভাব এই ভাইরাসের। ক্রমে মারণ আকার নিতে থাকে।

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে একদিনেই ২৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এখন পর্যন্ত রেকর্ড সংখ্যক মৃত্যু এটাই। শুধু হুবেই প্রদেশেই মারা গেছেন ২৪২ জন। বুধবার মোট মৃত্যুবরণ করেছেন ২৪৪ জন। এ নিয়ে বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩৫৭ জনে।

বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) হুবেই স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রদেশটিতে এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৩১০ জনে। চীনের মূল ভূখণ্ডে মোট মৃত্যুর সংখ্যা কমপক্ষে ১৩৫৫ জন। এছাড়া মধ্যে চীন ছাড়া হংকং ও ফিলিপাইনে দু’জন এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

বুধবার হুবেই স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ আরও ১৪ হাজার ৮৪০টি ভাইরাস সংক্রমণের বিষয় নিশ্চিত করেছে, যা প্রাদুর্ভাবের কেন্দ্রস্থলে মোট সংখ্যা ৪৮ হাজার ২০৬ জন।

হুবেইতে ৩৩ হাজার ৬৯৩ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। যাদের মধ্যে ১৩৩৭ জন গুরুতর অবস্থায় রয়েছেন। ৩৩ হাজার ৪৪১ জন রোগী সুস্থ হয়েছেন এবং তাদের অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

চীনের বাইরে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ সংখ্যক করোনা আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে জাপানের ইয়োকোহামা বন্দরে নোঙর করা ডায়মন্ড প্রিন্সেস নামক প্রমোদতরীতে। বিলাসবহুল ওই নৌযান তিন হাজার ৭০০ যাত্রী নিয়ে এখন কোয়ারেন্টাইনে। বুধবার পর্যন্ত সেখানে থাকা ১৭৫ জনকে করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে