শিশু ধর্ষক ও হত্যাকারীদের প্রকাশ্য ফাঁসির আহ্বান জানিয়ে প্রস্তাব পাস করেছে পাকিস্তানের পার্লামেন্ট।

শিশুদের ওপর যৌন নিপীড়ন ও হত্যাকাণ্ড বন্ধে পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে শুক্রবার প্রস্তাবটি পেশ করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আলি মোহাম্মদ খান। পরে সংখ্যাধিক্য সদস্যের মতামতে প্রস্তাবটি পাস হয়। খবর জিয়ো নিউজ উর্দূর।

প্রস্তাবটির স্বপক্ষে যুক্তি তুলে ধরে আলি মোহাম্মদ খান বলেন, শিশুদের ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের অপরাধ প্রমাণিত হলে শুধু মৃত্যুদণ্ড কার্যকর যথেষ্ট নয়। বরং ঘৃণ্য এসব অপরাধের পরিণতি সম্পর্কে সতর্কবার্তা দিতে অপরাধীদের জনসম্মুখে ফাঁসি হওয়া উচিত।

সংখ্যাগরিষ্ট সদস্যের ভোটে প্রস্তাবটি পাস হলেও পিপলস পার্টিসহ সরকারি দলের কয়েকজন সদস্যও আইনটির বিরোধিতা করেছেন।

পিপলস পার্টির সিনিয়র নেতা রাজা পারভেজ আশরাফ পয়েন্ট অব অর্ডার দাঁড়িয়ে বলেন, জাতিসংঘের আইনমতে প্রকাশ্য ফাঁসি দেয়া যায় না। পাকিস্তান যেহেতু জাতিসংঘের নীতিমালায় স্বাক্ষর করেছে, তাই প্রস্তাবটি এখানে পাস হতে পারে না।

পাকিস্তানের বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরীও প্রস্তাবটির বিরোধিতা করেছেন।

শিশুদের ধর্ষণ, যৌন নিপীড়ন ও হত্যার বেশ কিছু ঘটনায় গেল কয়েক বছরে একাধিকবার প্রবল জনরোষের মুখে পড়েছে পাকিস্তান সরকার। যদিও প্রস্তাবের নিন্দা জানিয়েছে মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলো।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে