নতুন কোনো ধৃষ্টতা দেখানো হলে আরও মারাত্মক ও ভয়াবহ প্রত্যাঘাত করা হবে বলে যুক্তরাষ্ট্রকে হুশিয়ার করেছেন ইরানি সশস্ত্র বাহিনীর চিফ অব স্টাফ মেজর জেনারেল মোহাম্মদ বাকেরি।

বুধবার কঠোর হুশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, মার্কিন দুষ্ট শাসকদের মধ্যপ্রাচ্য থেকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে তাদের সেনা সরিয়ে নেয়ার মোক্ষম সময় এসে গেছে।

ইরাকের দু’টি মার্কিন ঘাঁটিতে আইআরজিসি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর পর এ হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

এছাড়া দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী আমির হাতামি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের নতুন হামলার (প্রতিশোধ) সমানুপাতিক জবাব দিতে ইরান প্রস্তুত রয়েছে।

বুধবার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ইরাকে মার্কিন লক্ষ্যবস্তুতে তেহরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিশোধের প্রতিক্রিয়া সমানুপাতিক (সমান) হারে দেবে ইরান।

বুধবার মার্কিন স্থাপনায় তেহরানের হামলার কথা উল্লেখ করে আমির হাতামি বলেন, আমরা স্বল্প মাত্রার ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করেছি। আমি আশা করছি এটি আমেরিকার জন্য স্বরণীয় শিক্ষা হবে।

শুক্রবার মার্কিন ড্রোন হামলায় ইরানের কমান্ডার জেনারেল কাসেম সোলেইমানির হত্যার প্রতিশোধ নিতে বুধবার ভোররাতে ইরাকে অবস্থিত মার্কিন জোটের বিমানঘাঁটি ‘আইন আল-আসাদ’সহ অন্য একটি ঘাঁটিতে হামলা চালায় ইরান।

একের পর এক ভূমি থেকে ভূমিতে নিক্ষেপণযোগ্য অসংখ্য ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করে ঘাঁটিটিকে গুঁড়িয়ে দেয় ইরানি সামরিক বাহিনী। এতে ৮০ মার্কিন সেনা নিহতের দাবি করে ইরান।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে