নিজস্ব প্রতিবেদক: 
‘সত্য মিথ্যা যাচাই আগে, ইন্টারনেটে শেয়ার পরে’ এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে ৩য় ডিজিটাল দিবস উদযাপন হয়েছে।
বৃহস্পতিবার(১২ ডিসেম্বর) সকালে রাজধানীর মানিক মিয়া অ্যাভিনিউতে আইসিটি বিভাগের আয়োজনে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস উদযপান হয়।
অনুষ্ঠানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক  বলেন,ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের নেওয়া নানা প্রকল্প ভেস্তে দিতে ‘প্রতিক্রিয়াশীল চক্র সক্রিয়’ রয়েছে।“সামনের দিনে অনেক ধরনের অপপ্রচার, দেশবিরোধী চক্রান্ত হতে পারে।” রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য সাইবার জগৎকে নিরাপদ করতে হবে।
 
তিনি বলেন, “আমাদের দেশের ৭০ শতাংশ তরুণ রয়েছে যাদের বয়স ৩৫ বছরের নিচে। চার কোটি শিক্ষার্থী রয়েছে। “এই কোটি কোটি তরুণ প্রজন্ম আগামী পাঁচ থেকে ১০ বছরের মধ্যে বাংলাদেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করবে, প্রযুক্তিনির্ভর বাংলাদেশ গঠন করবে। যদি এই সম্ভাবনাকে সংরক্ষণ করতে চাই, তাহলে সাইবার জগৎকে নিরাপদ করতে হবে।”
 
প্রতিমন্ত্রী পলক বলেন, “নিউ মিডিয়া ও নিউজ মিডিয়ার মধ্যে পার্থক্য আছে। ফেইসবুকে আমি, আপনি যাই দেখব, সেটা যেন বিশ্বাস না করি। “আমরা যেন আগে যাচাই করি, তারপরে যেন শেয়ার করি, বিশ্বাস করি। আপনারা দেখে-শুনে বিশ্বাস করবেন না, নিজেরা যাচাই করবেন। এটাই হচ্ছে আপনাদের কাছে অনুরোধ।” এর আগে ২০১৭ সালের ২৭ নভেম্বর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দিবস পালন করেছে আইসিটি বিভাগ। পরের বছর আইসিটি দিবসের পরিবর্তে এ দিনকে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ দিবসের প্রথমভাগের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী।
 
তিনি বলেন, “তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের বিষয়েও আমাদের দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে, যাতে সোশাল মিডিয়ায় পোস্ট দিয়ে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার অংশীদার না হই। “কোনো ধরনের অস্থিরতা, অস্থিতিশীলতা যেন তৈরি না হয়, সেজন্য সজাগ থাকতে হবে।” সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তথ্য শেয়ার করার আগে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের তা ভালোভাবে যাচাই-বাছাই করে নেওয়ারও আহ্বান রাখেন তিনি।
 
ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস নিয়ে আয়োজনের প্রথম ভাগে উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের অডিও ভিজ্যুয়াল প্রদর্শন করা হয়।
 
অনুষ্ঠানে আইসিটি বিভাগের সচিব এন এম জিয়াউল আলমের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন তথ্য ও যোগযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ বি এম আরশাদ হোসেন। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতের শীর্ষ ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ৫৬টি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা। অনুষ্ঠান শুরুর আগে সকালে ধানমণ্ডিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে আইসিটি বিভাগের কর্মকর্তাদের নিয়ে শ্রদ্ধা জানান আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক।
 
 
ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস উদযাপনের অংশ হিসেবে আলোচনা অনুষ্ঠানের পরে একটি শোভাযাত্রা বের করে আইসিটি বিভাগ। অনুষ্ঠান এসময় Bacco সহ বিভিন্ন সংগঠন অংশ গ্রহণ করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে