বিনোদন রিপোর্ট:

আগামী ১৮ অক্টোবর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেই লক্ষ্যেই সম্প্রতি নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়েছে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার ইলিয়াস কাঞ্চন।

কমিশনে থাকছেন আরও দুইজন কমিশনার- পীরজাদা হারুন ও বিএইচ নিশান।

এই দায়িত্ব নেওয়া প্রসঙ্গে ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ‘আমি আসলে দায়িত্বটা নিতে চাইনি। কারণ, পুরো অক্টোবরজুড়ে নিরাপদ সড়ক ইস্যুতে প্রচুর ব্যস্ততা রয়েছে। তবুও সবার অনুরোধে দায়িত্বটা নিয়েছি। নিয়েছি যখন, সেটি শতভাগ আস্থার সঙ্গে পালন করার জন্য চেষ্টা করবো। আমি চাই সবার শতভাগ আস্থা অর্জন করে কাজটি করার। ইচ্ছে আছে নির্বাচন পর্যবেক্ষক নিয়োগ করার। বাকিটা সবার সহযোগিতার ওপর নির্ভর করছে।’

সমিতি সূত্রে জানা গেছে, আগামী ৪ অক্টোবর বিগত দুই বছরের সমিতির কাজের হিসাব-নিকাশের ওপর প্রতিবেদন পেশ করবেন সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান। ওই দিন সমিতির ২১টি পদের নির্বাচনী তফসিল  ঘোষণা করা হবে।

জায়েদ খান বলেন, ‘আমরা একটি সুষ্ঠু নির্বাচন আশা করছি। এবারও আমাকে প্রার্থী হিসেবে দেখা যাবে।’
চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির আসন্ন নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন ইলিয়াস কাঞ্চন। এমনটাই নিশ্চিত করেছেন সমিতির বর্তমান সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান।
এমন দায়িত্ব এবারই প্রথম পালন করবেন বিশিষ্ট অভিনেতা ও নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের প্রধান ইলিয়াস কাঞ্চন। তিনি এই সমিতির প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক।

জানা যায়, আসছে নির্বাচনেও মিশা সওদাগরকে সভাপতি করে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হবেন জায়েদ খান। তবে বর্তমান সমিতির অনেকেই এই প্যানেলে থাকছেন না।
অন্যদিকে চিত্রনায়িকা মৌসুমীকে সভাপতি করে তৈরি হচ্ছে অপর প্যানেল। এরইমধ্যে মৌসুমী আনুষ্ঠানিকভাবেই নিজের প্রার্থিতা ঘোষণা করেছেন। তার সঙ্গে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দেখা যেতে পারে চিত্রনায়ক সাইমন সাদিককে।
এই প্যানেলে আরও থাকার কথা শোনা যাচ্ছে রিয়াজ ও ফেরদৌসের।
বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দ্বি-বার্ষিক মেয়াদে (২০১৭-১৯) গত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০১৭ সালের ৫ মে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে