কুরবানিতে করনীয়
কবি শামীম আজাদ
গরু মহিষ নয়রে ভাই
মনের কুরবানি চাই।
আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য
কুরবানি করে হন ধন্য।
নিয়ত করেন পাকা
নাইলে খাবেন ধোকা।
গোস্ত খাওয়ার জন্য নয়
আল্লাহর জন্য কুরবানি হয়।
কুরবানি কবুল না হলে
টাকাপয়সা সব যাবে জলে
সব ভাগিদার থাকুন একমতে
কুরবানি করুন সহীহ নিয়তে।
শুধু পশু জবাই নয়
মনের পশুত্বকেও জবাই চাই।
হিংসা বিভেদ ভুলে
চলি সবাই মিলে।
নিজের জন্য গোস্ত নয়,
আত্মীয় ও গরীবদের বিলানো চাই।
শুধু খাইখাই নীতি নয়,
গরীব দুঃখীকে দেওয়া চাই।
কুরবানির পরে দিব্যি
খাচ্ছি গোশত খাচ্ছি।
পাশের ঘরের গরীব
লোকটির খবর কি রাখছি?
গরিবেরা না হয় ঘুরেঘুরে
ক’টুকরা গোশত পায়।
নিম্ন মধ্যবিত্ত ভাইটিতো একেবারে নিরুপায়।
না পারে পাততে হাত
না পারে কাঁদতে।
না পারে বলতে
না পারে বুঝাতে।
চলেন ভাই খুঁজি তাদের
কুরবানি দেওয়া হয়নি যাদের।
গোশত তাদের বিলিয়ে দেই
ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেই।

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে