নোটিশ :
সংবাদ কর্মী আবশ‌্যক
সংবাদ শিরোনাম
তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বর্তমানে ১০ লাখের বেশি মানুষ কাজ করছে: জুনাইদ আহমেদ পলক গীতা জয়ন্তী উপলক্ষে ভাগবতীয় আলোচনা সভা ও গীতা দান বঙ্গবন্ধুকে ‘ডক্টর অব লজ’ সম্মাননা দেবে ঢাবি সমাজকল্যাণ ক্লাবের আয়োজনে আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী দিবস উদযাপন প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী নেতৃত্বেই বাংলাদেশের কৃষিতে বিপ্লব সাধিত হয়েছে: কৃষিমন্ত্রী সোমবার থেকে চাঁদপুরে চরমোনাইর নমুনায় ৩ দিন ব্যাপী মাহফিল শুরু রাণীশংকৈলে অসুস্থ গৃহবধুর আত্মহত্যা রাজধানীর কাওরানবাজার এবং কুর্মিটোলায় বাসে আগুন আইনের শাসন ও ন্যায় বিচার নিশ্চিত করবেন বিচারকদের উদ্দেশ্য প্রধানমন্ত্রী লালবাসে চড়ে ক্যাম্পাসে আসা হল না সাদিয়ার!
চাঁদপুর থেকে সব রুটের লঞ্চ চলাচল বন্ধ

চাঁদপুর থেকে সব রুটের লঞ্চ চলাচল বন্ধ

শাওন পাটওয়ারীঃ
সারাদেশের ন্যায় চাঁদপুরেও ১১ দফা দাবী আদায়ে বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকা লাগাতার কর্মবিরতি চলছে।
অভ্যন্তরীণ রু‌টের নৌযানগু‌লো শহরের বিকল্প লঞ্চঘাটে ও ডাকাতিয়া নদীতে নোঙ্গর করে রাখা হয়েছে বলে সরেজমিনে দেখা গেছে। ফ‌লে ভোগান্তিতে পড়েছে চাঁদপুরের দক্ষিনাঞ্চল সহ আশপাশের বিভিন্ন জেলার হাজার হাজার যাত্রী।
বুধবার (২৪ জুলাই) ভোর ৬টা থেকে সিডিউলে থাকা চাঁদপুর-ঢাকার মধ্যে সকল লঞ্চ বন্ধ রয়েছে। তবে বুধবার দিনগত রাত ১২টার পরে সিডিউলে থাকা লঞ্চগুলো ঢাকার উদ্দেশ্যে চাঁদপুর ঘাট ত্যাগ করেছে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় শহরের মাদ্রাসা রোডস্থ লঞ্চঘাটে লঞ্চ শূন্য থাকায় যাত্রীদের সাধারন তেমন চোখে পড়েনি। ধর্মঘটের কথা জানে না এমন কয়েকজন যাত্রীকে লঞ্চঘাট থেকে ফিরে যেতে দেখা গেছে। জানাগেছে, পূর্ব থেকে শ্রমিকদের কর্মবিরতির কথা না জানার কারণে চাঁদপুর জেলার ৮ উপজেলা, লক্ষ্মীপুর ও নোয়াখালি থেকে আসা অনেক যাত্রী লঞ্চঘাটে এসে অপেক্ষা করে ফিরে গেছেন। যার ফলে চরম ভোগান্তিতে পরেছে যাত্রী সাধাররন।
এর আগে ১৫ এপ্রিল নৌ-পথে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, শ্রমিক নির্যাতন বন্ধ ও সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার, নৌযান শ্রমিকদের সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, কর্মস্থলে দুর্ঘটনায় মৃত নৌশ্রমিকদের পরিবারকে ১০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়া, বেতন-ভাতা বাড়ানোসহ ১১ দফা দাবিতে কর্মবিরতিতে গিয়েছিলেন নৌযান কর্মচারীরা।
এর পর ১৬ এপ্রিল শ্রমিক, মালিক ও সরকার পক্ষের মধ্যে ত্রিপাক্ষিক বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় ৪৫ কার্যদিবসের মধ্যে তাদের দাবি পূরণ করা হবে। এরই ধারাবাহিকতায় ৪৫ দিনের মেয়াদ শেষ হলে গত ১৫ জুলাই ডাকা ত্রিপাক্ষিক সভার আয়োজন করা হয়। তবে ওই সভায় মালিক সমিতির নেতারা উপস্থিত হয়নি। পরে গত ২০ জুলাই (শনিবার) নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের নেতারা সিদ্ধান্ত নেয় দাবি না আদায় হওয়া পর্যন্ত ২৩ জুলাই মধ্যরাত থেকে সব প্রকার নৌযান শ্রমিকরা লাগাতার কর্মবিরতি পালন করবেন।
ঘোষণা অনুযায়ী ২৩ জুলাই দিবাগত রাত ১২ টা ১ মিনিট থেকে কর্মবিরতিতে রয়েছেন নৌযান শ্রমিকরা। তবে চাঁদপুরে কর্মবিরতি শুরু হয়েছে বুধবার সকাল থেকে।
চাঁদপুর জেলা নৌযান শ্রমিক লীগ সভাপতি বিপ্লব সরকার জানান, মঙ্গলবার দিনগত রাত ১১টা থেকে রাত ১২টার পর পর্যন্ত সিডিউল অনুযায়ী সব লঞ্চই ঢাকার উদ্দেশ্যে চাঁদপুরঘাট ত্যাগ করেছেন। নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনসহ ত্রিপাক্ষিক চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসার আগ পর্যন্ত লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকবে।
ভুক্তভোগী কয়েকজন যাত্রী জানায়,আসন্ন ঈদুল আযহা। তাই ব্যবসায়িক কাজে ঢাকা যাওয়া খুবই জরুরি ছিলো। কিন্তু লঞ্চ ঘাটে এসে ঘাট লঞ্চ শূন্য থাকায় চরম ভোগান্তিতে পরেছি। পূর্ব ঘোষনা ছাড়া এ ধরেনর নৌযান ধর্মঘট সাধারন মানুষকে চরম ভোগান্তিতে ফেলেছে।
যাত্রী সুরমা বেগম জানান, ঢাকা মেডিকেলে তার ছেলে ভর্তি। সে লঞ্চ যোগে ঢাকা যাওয়ার উদ্দেশ্যে লঞ্চঘাটে এসেছিলাম। কিন্তু লঞ্চ বন্ধ,এখন কিভাবে যাবো। কারন আমি বাসে চলাচলে অভ্যস্ত না।
তবে ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে ১১ দফা দাবী আদায়ে বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকা লাগাতার কর্মবিরতি সাধারন যাত্রী সাধারনকে চরম ভোগান্তি ফেলবে। অচিরেই এর সমাধান না হলে এ ভোগান্তি বিষ ফোরায় রুপান্তরিত হবে বলে অভিমত ভোক্তভোগীদের।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018   bdsomachar24.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Desing & Developed BY DHAKATECH.NET