নোটিশ :
সংবাদ কর্মী আবশ‌্যক
বিপদসীমার ৭ সে.মি উপর দিয়ে তিস্তার পানি প্রবাহিত

বিপদসীমার ৭ সে.মি উপর দিয়ে তিস্তার পানি প্রবাহিত

মশিয়ার রহমান, নীলফামারী জেলা প্রতিনিধি:
বিপদসীমার ৭ সে.মি উপর দিয়ে তিস্তা নদীর পানি প্রবাহিত হচ্ছে নীলফামারীর ডিমলার ডালিয়া পয়েন্টে । ভারী বর্ষনের সঙ্গে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে করে তিস্তা নদীর আশপাশের নিম্নাঞ্চলগুলো প্লাবিত হয়েছে। তিস্তার পানি কমাতে তিস্তা ব্যারাজের ৪৪টি স্লুইস গেট খুলে রাখা হয়েছে । অপর দিকে টানা বৃষ্টির পানিতে আসেপাশের এলাকায় বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ চরম দুর্ভোগে পড়েছে।
বৃহস্পতিবার নীলফামারী পানি উন্নয়ন বোর্ড ডালিয়া সরে জমিনে গিয়ে জানা যায় যে, উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমার ২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। সকাল ১০ টায় ৩ সেন্টিমিটার পানি কমে এলেও দুপুর ১ টায় নগাদ পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৭ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত অব্যাহত রয়েছে।
এতে তিস্তা নদীর অববাহিকার ডিমলা উপজেলার ঝাড়শিঙ্গেশ্বর, কিসামত ছাতনাইনচর,বাইশপুকুর, ছোটখাতা, ছাতুনামার চর, ভেন্ডাবাড়ির চর, ফরেস্টের চর, পূর্বছাতনাই, টেপাখড়িবাড়ি, চরখড়িবাড়ি,বানপাড়া ছাড়াও আশপাশের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এ ছাড়া নীলফামারীর পার্শ্ববর্তী লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলার দহগ্রাম-আঙ্গরপোতা, চরদহগ্রাম, হাতীবান্ধা উপজেলার সানিয়াজান, গড্ডিমারী, সির্ন্দুনা, পাটিকাপাড়া, ডাউয়াবাড়ী, কালীগঞ্জ উপজেলার-পশ্চিম কাশিরাম, চর বৈরাতী, নোহালী, শৈলমারী, ভোটমারী, হাজিরহাট, আমিনগঞ্জ, কাঞ্চনশ্বরও রুদ্ধেশ্বর, আদিতমারী উপজেলার চন্ডিমারী, দক্ষিণ বালাপাড়া, আরাজি শালপাড়া, ও সদর উপজেলার কালমাটি, খুনিয়াগাছা, রাজপুর, তিস্তা, তাজপুর, গোকুন্ডা, মোগলহাট, বনগ্রামসহ তিস্তা নদীর তীরবর্তী গ্রামে বন্যার পানি প্রবেশ করে প্লাবিত করেছে বলে জনপ্রতিনিধিরা জানিয়েছে।
তিস্তা নদীপারের লোকজন জানান, উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে বুধবার রাত থেকে নদীর পানি হুহু করে বাড়তে থাকে। সকালে কিছুটা কমলেও দুপুরের দিকে নদীর ঢল বৃদ্ধি পেয়ে ভয়াবহ আকার ধারন করেছে। এসময় নদীর আশেপাশের চর গ্রামগুলোতে বানের পানি ঢুকে প্লাবিত করছে।
ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোন্নাফ হাওলাদার জানান, উজানের ঢল ও বৃস্টিপাতের কারনে আমরা সর্তকাবস্থায় রয়েছি। আজ বৃহস্পতিবার তিস্তা নদীর পানি বিপদসীমা অতিক্রম করে ৭ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় ব্যারাজের সবকটি স্লুইস গেট খুলে দেওয়া হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018   bdsomachar24.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Desing & Developed BY DHAKATECH.NET