নোটিশ :
সংবাদ কর্মী আবশ‌্যক
সংবাদ শিরোনাম
চাঁদপুরে কালী বাড়ি এলাকায় সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনল সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়ন BELTA Chandpur Chapter এর ইফতার মাহফিল ও সংবর্ধনা তদারকি ছাড়াই চলছে পীরগঞ্জে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বোল্ডার তৈরীর কাজ উৎসবমুখর পরিবেশে ঢাকা ক্রাউন লিও ক্লাবের ইফতার মাহফিল সম্পন্ন ভূমিদস্যূদের হাত থেকে পৈত্রিক সম্পত্তি ফেরৎ পেতে ছাগলনাইয়ায় মনির’র সংবাদ সম্মেলন গাংনীর কাজিপুর থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় একটি অস্ত্র উদ্ধার জেনে নিন যে ইবাদাতগুলো রমজান মাসের জন্য জরুরি এসএসপি’র ঢাকা মহানগর কমিটি ঘোষণা চাঁদপুরে জেলা ইশা ছাত্র আন্দোলনের ইফতার মাহফিল ও কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা গাংনী পৌরসভার মেয়রের প্রতি কাউন্সিলরদের ক্ষোভ প্রকাশ
পীরগঞ্জের বিঘা প্রতি জমিতে কৃষকের লোকসান গুনতে হচ্ছে প্রায় ৮ হাজার টাকা

পীরগঞ্জের বিঘা প্রতি জমিতে কৃষকের লোকসান গুনতে হচ্ছে প্রায় ৮ হাজার টাকা

মোঃ অাবু রায়হান, পীরগঞ্জ উপজেলা (রংপুর) প্রতিনিধিঃ
চলতি মৌসুমে বোরো ধান উৎপাদনে পীরগঞ্জের কৃষকদেরকে মোটা অংকের অর্থনৈতিক লোকসান গুনতে হচ্ছে । আর এ লোকসানের মুল কারন মজুর সংকট, মজুরের শ্রম, সার , কীটনাশক ও সেচের মুল্য বৃদ্ধি । অথচ জমিতে ধান উৎপাদনে কৃষকের খরচের চেয়ে প্রাপ্ত ধানের বাজার মুল্য অনেক কম । সার্বিক এ পরিস্থিতির কারনে ধান উৎপাদনের লোকসানের ক্ষতি পুষিয়ে নেয়া কৃষকের পক্ষে দুঃসাধ্য হয়ে পড়েছে । ধান বিক্রি করে কৃষকেরা প্রত্যশার যে স্বপ্ন দেখেছিল তাও বুমেরাং হওয়ার পথে । যে কারনে সোনালী ফসলের ক্ষেত প্রত্যক্ষ করেও কৃষকদের মুখে হাসী নেই । তাদের দিন কাটছে ক্ষোভ আর হতাশায়।
পীরগঞ্জের বড়দরগাহ ইউনিয়নের ডাসাড়পাড়া গ্রামের মৃত্যু আমির উদ্দিনের পুত্র এক আদর্শ কৃষক সিরাজুল ইসলাম। তিনি ৫০ শতকের বিঘা হিসেবে ৪ বিঘা জমিতে বোরো ধান উৎপাদন করেছেন । কামলা সংকটের মাসেও ১ বিঘা জমির ধান ঘরে তুলেছেন । ধান উৎপাদন নিয়ে বুধবার কথা হয় তার সঙ্গে। কথা বলার শুরুতেই তিনি দীর্ঘশ্বাস ছেড়ে বলেন, এগলা শুনে আর কি করবেন ভাই ?
তার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ধান উৎপাদনের জন্য চলতি মরশুমে ১ বিঘা জমিতে প্রথম ৩ হাজার টাকায় গোবর ছিটিয়েছেন । পরে প্রতিকাটা (১ বিঘা = ২০কাটা) ২৫ টাকা হিসেবে ৪ বার চাষ করেছেন এতে ব্যয় হয়েছে ২ হাজার টাকা । এর পর বাজার থেকে ২ হাজার টাকার চারা ক্রয় করে রোপর করতে মজুরকে দিতে হয়েছে ১ হাজার ৮ শত টাকা । সর্বপরি জমি রোপন করতেই তার ব্যয় হয়েছে ৮ হাজার ৮ শত টাকা । এ ছাড়া উক্ত পরিমান জমিতে ৩ দফায় সার প্রয়োগ করেছেন ।
তিনি জানান, জমি চাষের সময় অথ্যাত রোপনের পুর্বে প্রতি কেজি ৩০ টাকা হিসেবে ২০ কেজি ডিএবি যার মুল্য ৬ শত টাকা, ৩৫ টাকা কেজি হিসেবে ১০ কেজি টিএসপি যার মুল্য ৩ শত টাকা, ১৭ টাকা কেজি হিসেবে ২০ কেজি পটাশ যার মুল্য ৩ শত ৪০ টাকা ও ৩০ টাকা কেজি হিসেবে ১০ কেজি জিপ যার মুল্য ৩ শত টাকা প্রয়োগ করেছেন । পরবর্তিতে ২য় দফায় ১৭ টাকা কেজি হিসেবে ৪০ কেজি ইউরিয়া যার মুল্য ৬ শত ৮০ টাকা, ১৭ টাকা কেজি হিসেবে ১০ কেজি পটাশ যার মুল্য ১ শত ৭০ টাকা, ৩০ টাকা কেজি হিসেবে ৫ কেজি জিপ যার মুল্য ১শত ৫০ টাকা, ১০৫ টাকা কেজি হিসেবে ২ কেজি মিউভিট যার মুল্য ২ শত ১০ টাকা ও ১১০ টাকা কেজি হিসেবে ২ কেজি ম্যাগনেশিয়াম ব্যবহার করেছেন । সর্বশেষ ৩য় দফায় ১৭ টাকা কেজি হিসেবে ২০ কেজি ইউরিয়া যার মুল্য ৩ শত ৪০ টাকা ও ১৭ টাকা কেজি হিসেবে ১০ কেজি পটাশ যার মুল্য ১ শত ৭০ টাকা ব্যবহার করেছেন । সর্বপরি উক্ত পরিমান জমিতে ৩ দফায় তিনি ৩ হাজার ৫ শত ৩০ টাকার সার ব্যবহার করেছেন । শুধু মাত্র জমি রোপন ও সার প্রয়োগে তার খরচ হয় ৮ হাজার ৩ শত ৩০ টাকা । এছাড়া ঔষধে ব্যয় হয়েছে ৬ শত টাকা, আগাছা দমনে ১ হাজার টাকা, পানি সেচে ২ হাজার ৫ শত টাকা, মজুর দিয়ে ধান কর্তনে ৬ হাজার টাকা ও ধান মাড়াইয়ে ৭ শত টাকা ।
সর্বপরি উক্ত কৃষকের ১ বিঘা জমিতে ধান উৎপাদনে মোট ব্যয় হয়েছে ২৩ হাজার ১ শত ৩০ টাকা ।
উক্ত কৃষক আরও জানান তিনি ওই ১ বিঘা জমিতে ধান পেয়েছেন ১২ শত ৯ কেজি । বর্তমানে বাজারে প্রতি কেজি ধানের মুল্য সর্বোচ্চ ১২ টাকা কেজি হিসেবে যার বাজার মুল্য ১৪ হাজার ৫ শত ৮ টাকা । হিসাবুনযায়ী উক্ত কৃষকের ১ বিঘা জমিতে ধান উৎপাদনে লোকসান হয়েছে ৮ হাজার ৬ শত ২২ টাকা । কৃষক আরও জানান, অপর জমি গুলিতেও একই অবস্থা হবে ।
উল্লেখিত হিসেবের সঙ্গে প্রায় সহমত প্রকাশ করেন পার্বতীপুর গ্রামের মজিদ প্রধান, সালাম, গুর্জিপাড়ার মোয়াজ্জেম, হরিপুরের জালাল উদ্দিন সহ আরও বেশ কিছু সংখ্যক কৃষক । তবে যারা ধান উৎপাদনে নিজেরাই শ্রম বিনিয়োগ করেছেন তাদের লোকসানের পরিমান কিছুটা কম ।
তবে সকল কৃষক নিশ্চিত ধানের এ বাজার মুল্য অব্যহত থাকলে সকল কৃষককে লোকসান গুনতে হবে । আর এতে চরম ক্ষতিগ্রস্থ হবে কৃষক সমাজ ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018   bdsomachar24.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Desing & Developed BY DHAKATECH.NET