নোটিশ :
সংবাদ কর্মী আবশ‌্যক
চাঁদপুরে ঈদকে সামনে রেখে দর্জি পাড়ায় মহা ব্যস্ততা

চাঁদপুরে ঈদকে সামনে রেখে দর্জি পাড়ায় মহা ব্যস্ততা

 

শাওন পাটওয়ারী, চাঁদপুরে :
ধনী গরিবের ভেদাভেদ ভূলে ঈদ বয়ে আনুক অনাবিল হাসি আনন্দ। আর এ হাসি আনন্দ বাড়িয়ে তুলে ঈদের নতুন পোশাক। ঈদ ঘনিয়ে আসতেই মানুষ ব্যস্ত হয়ে পরে ঈদ উদযাপনে পছন্দের পোশাক নির্বাচনে। বিপনী বিতাগুলোর চকচকা রেডিমেট পোশাকের পাশাপাশি মানুষের আনাগোনা বাড়ছে দর্জির দোকানে।


চাঁদপুরে ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে এবার রমজানের শুরুতেই দর্জির দোকানগুলোতে পছন্দের পোশাক বানাতে মানুষের পদচারনা বৃদ্ধি পেয়েছে।
আধুনিকতার সঙ্গে তাল মিলিয়ে নিত্য নতুন ডিজাইনের পোশাক বানাতে মানুষেরা ভীড় করছেন দর্জিপাড়াগুলোতে।
চাঁদপুর শহরের বিভিন্ন মার্কেটে গ্রাহকদের চাহিদা মেটাতে কাপড় হাতে ব্যস্ত সময় পার করতে দেখা গেছে অধিকাংশ কারিগরদের।
সরেজমিনে দেখা যায়, শহরের হাকিম প্লাজা, সাউথ প্লাজা, মীর শপিং কমপ্লেক্স, ফয়সাল শপিং কমপ্লেক্স, চাঁদপুর টাওয়ার, হকার্স মার্কেট, ভূইয়া মার্কেট, প্রিয়াঙ্গন শপিং সেন্টার, নূর ম্যানশান, ডিসকো, পূরবী মার্কেট, পৌরসভা মার্কেটের দর্জিপাড়ায় ব্যস্ত সময় পার করছেন কারিগররা।
টেইলার্সের কাটিং মাস্টাররা বলছেন, কাজের অর্ডার এখন পর্যন্ত ভালো। দুই-তিনদিন পর অর্ডার আরও বাড়তে পারে। তাদের কাজ চলবে চাঁদরাত পর্যন্ত। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পোশাক সরবরাহ করতে ১৫ রমজানের আগেই অর্ডার নেওয়া বন্ধ করবেন তারা।
শহরের প্রিয়াঙ্গন মার্কেটের আপন টেইলার্স কারিগর মোঃ হোসেন চাঁদপুর প্রবাহকে জানান, গতবারের মতো এবারও আমাদের অর্ডার বেশি। পোশাক সরবরাহ করতে আমরা চাঁদরাত পর্যন্ত কাজ করবো। ১৫ রমজানের আগেই অর্ডার নেওয়া বন্ধ করে দিতে হবে।
টপ স্টার টেইলার্সের মালিক মোঃ রাজু আখন্দ বলেন, কাজের অর্ডার ভালোই আসছে। এভাবে কাজ চললে ২০ রোজার আগেই আমরা অর্ডার নেওয়া বন্ধ করে দেবো। তার মতে, সব কিছুর দাম বাড়লেও মজুরি আগের মতোই আছে।
তবে অনেক টেইলার্সই ক্রেতা খরায় ভুগছে। তাদের কাজের ব্যস্ততা বছরের অন্য দিনের মতোই। তাদের অভিযোগ, পাড়া-মহল্লার মধ্যে অসংখ্য টেইলার্স গড়ে ওঠায় আশানুরূপ ক্রেতার দেখা মিলছে না।
এসব টেইলার্সে প্রতি পিস প্যান্ট সেলাই ৪শ’ থেকে ৫শ’ টাকা, শার্ট ৩শ’ থেকে ৩শ’ ৫০টাকা, সালোয়ার কামিজ ৩শ’ ৫০থেকে ৬শ’ টাকা, ব্লাউজ ২শ’ থেকে টাকা, ব্লাউজ (সুতি) ৩শ’ টাকা, পেটিকোট ১শ’ ৫০ থেকে ২শ’ টাকা, ম্যাক্সি ২শ’ ৫০থেকে ৩শ’ টাকা, গাউন ৭শ’ থেকে ৮শ’ টাকা, বোরকা ৩শ’ ৫০থেকে ৭শ’ টাকা নেওয়া হচ্ছে।
অন্যদিকে শার্ট-প্যান্ট ফিটিং ও রিপু করতে মহাব্যস্ত সময় পার করছেন শহরের হাকিম প্লাজা ও সাউথ প্লাজা মার্কেটের কারিগররা।
এসব মার্কেটে শার্ট ফিটিং ৪০ টাকা থেকে ১শ’ ২০টাকা, পাঞ্জাবি ৬০থেকে ১শ’ ৪০ টাকা, প্যান্ট কাটিং ১শ’ ৩০থেকে ১শ’ ৪০ টাকা, প্যান্ট ফিটিং ৪০থেকে ৮০টাকা, প্যান্ট রিপু করতে ৪০ থেকে ৫০টাকা নেওয়া হচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018   bdsomachar24.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Desing & Developed BY DHAKATECH.NET