গত কয়েকদিন ধরেই ওই এলাকায় দফায় দফায় বোমাবাজির ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে তাঁরা বিস্ফোরণের পর পর আওয়াজ পান। পর পর বোমা মারা হয় রাস্তার ধারে।

ফরোয়ার্ড ব্লকের অভিযোগ, তাঁদের সদস্য সমর্থকদের সন্ত্রস্ত করতেই শাসক দলের আশ্রিত দুষ্কতীরা পরিকল্পনামাফিক পর পর হামলা চালাচ্ছে ওই এলাকাতে। স্থানীয় ফরোয়ার্ড ব্লক নেতা বিশ্বজিৎ মাইতি বলেন,‘‘এই এলাকা আমাদের শক্ত ঘাঁটি হিসাবে পরিচিত। তৃণমূল জানে এই এলাকায় তারা ভোট পাবে না। তাই এখানকার ভোটারদের এই ভাবে সন্ত্রস্ত করা হচ্ছে যাতে তাঁরা ভোট দিতে না যান।”

ফরোয়ার্ড ব্লকের ওই নেতা অভিযোগ করেন, ‘‘৬ মে থেকে পর পর এ রকম ঘটনা ঘটছে। তারপরেও পুলিশ কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা দূরে থাক,এলাকার মানুষকে নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য যে ন্যুনতম ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন, তাও নেয়নি পুলিশ।” যদিও ফরোয়ার্ড ব্লকের এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে শাসক দল। স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বর দাবি গোটা ঘটনার পিছনে বিরোধী দলগুলির মধ্যে দ্বন্দ্ব কাজ করছে। তৃণমূলের ইঙ্গিত ঘটনার পিছনে রয়েছে বিজেপি।