৫ খাবার: ক্ষুধা পেটে যেগুলো খেলে ক্ষুধা আরও বেড়ে যাবে

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৭:৪০:০২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ মে ২০২৩
  • / ২৩২ Time View

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ

খিদে কার না পায়? কিন্তু জানেন কি, সব সময় একই রকম খিদে পায় না? মানেটা বুঝলেন না নিশ্চয়ই? ভাবছেন খিদের আবার রকমফের আছে নাকি? খিদে যখন পায়, তখন তো প্রতি বার একই রকম অনুভব হবে। কিন্তু খিদেরও অনেক ভাগ আছে। এক এক রকম খিদের এক এক রকম উপশম। কারও মিষ্টি দেখলে খিদে পায়, কারও আবার সামনে নোনতা কোনও খাবার এলেই খিদে বেড়ে যায়! তবে এমন কয়েকটি খাবার আছে যা খেলে পেট ভরে না, উল্টে খিদে বেড়ে যায়। দেখে নিন, খিদের সময় কোন কোন খাবার না খাওয়াই ভাল।

১। ভাত: এতে ভরপুর মাত্রায় কার্বোহাইড্রেট থাকে। ভাত খেলে রক্তে শর্করার মাত্রা এক ধাক্কায় অনেকটা বেড়ে যায়, তার কিছু ক্ষণ পরেই আবার হঠাৎ করেই কমে যায়। তখন স্বাভাবিক কারণেই খিদে পেয়ে যায়। তবে ভাতের পরিমাণ কম করে সঙ্গে মাছ, মাংস বা সব্জি বেশি করে খেলে অবশ্য সেই সমস্যা হওয়ার কথা নয়।

২। লো-ফ্যাট দই: যারা ডায়েট করেন তাদের মধ্যে বেশির ভাগই লো-ফ্যাট দই খেতে পছন্দ করেন। তবে ডায়েটের সময় এই অভ্যাস না করাই ভাল। এই প্রকার দইতে ভাল মাত্রায় চিনি থাকে। তাই আপনার তাড়াতাড়ি খিদে পেয়ে যাওয়ার সম্ভাবনাও বেড়ে যায়।

৩। সিরিয়াল: প্রাতরাশে চকোস, মুসলি কিংবা কর্নফ্লেক্স খাওয়ার অভ্যাস অনেকেরই আছে। অজান্তেই এই সব খাবার শরীরের ক্ষতি করে। এতে ভরপুর মাত্রায় চিনি থাকে। এই সব খেলে সাময়িক পেট ভরলেও তাড়াতাড়ি খিদে পেয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

৪। ফলের রস: বাজারের প্যাকেটজাত ফলের রসেও ভাল মাত্রায় চিনি থাকে। এই রস খেলেও কিন্তু আপনার খিদে বেড়ে যাতে পারে। বিশেষত যাঁরা ওজন ঝরানোর ডায়েটে আছেন, তাঁদের জন্য এই প্রকার রস না খাওয়াই ভাল।

৫। সোডাযুক্ত নরম পানীয়: নরম পানীয়ে চিনি আর ক্যালোরি ভরপুর মাত্রায় থাকে। এতে থাকা কার্বন-ডাই-অক্সাইড খাবার হজম করতে সাহায্য করে, তাই খালি পেটে এই সব পানীয় না খাওয়াই ভাল।

সূত্র: আনন্দবাজার

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

৫ খাবার: ক্ষুধা পেটে যেগুলো খেলে ক্ষুধা আরও বেড়ে যাবে

Update Time : ০৭:৪০:০২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ মে ২০২৩

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ

খিদে কার না পায়? কিন্তু জানেন কি, সব সময় একই রকম খিদে পায় না? মানেটা বুঝলেন না নিশ্চয়ই? ভাবছেন খিদের আবার রকমফের আছে নাকি? খিদে যখন পায়, তখন তো প্রতি বার একই রকম অনুভব হবে। কিন্তু খিদেরও অনেক ভাগ আছে। এক এক রকম খিদের এক এক রকম উপশম। কারও মিষ্টি দেখলে খিদে পায়, কারও আবার সামনে নোনতা কোনও খাবার এলেই খিদে বেড়ে যায়! তবে এমন কয়েকটি খাবার আছে যা খেলে পেট ভরে না, উল্টে খিদে বেড়ে যায়। দেখে নিন, খিদের সময় কোন কোন খাবার না খাওয়াই ভাল।

১। ভাত: এতে ভরপুর মাত্রায় কার্বোহাইড্রেট থাকে। ভাত খেলে রক্তে শর্করার মাত্রা এক ধাক্কায় অনেকটা বেড়ে যায়, তার কিছু ক্ষণ পরেই আবার হঠাৎ করেই কমে যায়। তখন স্বাভাবিক কারণেই খিদে পেয়ে যায়। তবে ভাতের পরিমাণ কম করে সঙ্গে মাছ, মাংস বা সব্জি বেশি করে খেলে অবশ্য সেই সমস্যা হওয়ার কথা নয়।

২। লো-ফ্যাট দই: যারা ডায়েট করেন তাদের মধ্যে বেশির ভাগই লো-ফ্যাট দই খেতে পছন্দ করেন। তবে ডায়েটের সময় এই অভ্যাস না করাই ভাল। এই প্রকার দইতে ভাল মাত্রায় চিনি থাকে। তাই আপনার তাড়াতাড়ি খিদে পেয়ে যাওয়ার সম্ভাবনাও বেড়ে যায়।

৩। সিরিয়াল: প্রাতরাশে চকোস, মুসলি কিংবা কর্নফ্লেক্স খাওয়ার অভ্যাস অনেকেরই আছে। অজান্তেই এই সব খাবার শরীরের ক্ষতি করে। এতে ভরপুর মাত্রায় চিনি থাকে। এই সব খেলে সাময়িক পেট ভরলেও তাড়াতাড়ি খিদে পেয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

৪। ফলের রস: বাজারের প্যাকেটজাত ফলের রসেও ভাল মাত্রায় চিনি থাকে। এই রস খেলেও কিন্তু আপনার খিদে বেড়ে যাতে পারে। বিশেষত যাঁরা ওজন ঝরানোর ডায়েটে আছেন, তাঁদের জন্য এই প্রকার রস না খাওয়াই ভাল।

৫। সোডাযুক্ত নরম পানীয়: নরম পানীয়ে চিনি আর ক্যালোরি ভরপুর মাত্রায় থাকে। এতে থাকা কার্বন-ডাই-অক্সাইড খাবার হজম করতে সাহায্য করে, তাই খালি পেটে এই সব পানীয় না খাওয়াই ভাল।

সূত্র: আনন্দবাজার