৩১ আগস্ট মাঠে গড়াবে ইউএস ওপেন

  • Update Time : ১০:০৮:৩৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুন ২০২০
  • / 210

স্বস্তি ফিরছে টেনিস কোর্টে, স্বস্তি ফিরেছে মার্কিন মুল্লুকে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ৩১ আগস্ট থেকে ১৩ সেপ্টেম্বর মাঠে গড়াবে ইউএস ওপেন। নিশ্চিত করেছেন ‘ইউনাইটেড স্টেট টেনিস অ্যাসোসিয়েশন -ইউএসটিএ’র প্রধান নির্বাহী মাইকেল ডয়েস। সেক্ষেত্রে মাঠে সীমিত আকারে দর্শক প্রবেশেরও মিলবে অনুমতি। আর প্রয়োজনে খেলোয়াড়দের উড়িয়ে আনা হবে চাটার্ড বিমানে।

করোনার ছোবল কোথায় গিয়ে লাগেনি ? তবে দুর্যোগ পুরোপুরি না কাটলেও ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে জনজীবন৷ আর যার নেতৃত্ব দিচ্ছে ক্রীড়াঙ্গণ৷

করোনায় বেহাল দশা মার্কিন মুল্লুকের৷ তবুও ঘোষণাটা আসলো সেখান থেকেই৷ সিদ্ধান্তটা, গ্র্যান্ডস্ল্যাম ইউএস ওপেন নিয়ে৷ যেখানে পরিস্থিতি বিবেচনায় ১ সপ্তাহ পিছাতে যাচ্ছে তারিখ৷ ২৪ আগস্ট নয় টুর্নামেন্ট শুরু হবে ৩১ আগস্ট থেকে৷

ইউএসটিএ’র প্রধান নির্বাহী মাইকেল ডয়েস বলেন, ইউএস ওপেন মাঠে ফেরাতে আমরা একটা ঐক্যমত্যে পৌঁছেছি৷ এটা সবার জন্যই দারুণ একটা খবর৷ দেখুন আমরা জানি না যে ঠিক কবে পরিস্থিতি পুরোপুরি স্বাভাবিক হবে৷ তাই এর মধ্যেই আমাদের মানিয়ে নিতে হবে৷ তবে খেলোয়াড়দের সুরক্ষাকে আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছি৷ সবার তিন দফা করোনা পরীক্ষা শেষেই মাঠে নামার অনুমতি পাবেন।

আছে খেলার প্রাণ দর্শকদের জন্যও শুভ সংবাদও৷ প্রতি ম্যাচে মাঠে প্রবেশের সুযোগ পাবেন ৫ হাজার জন৷ টিকেট বিক্রি শুরু হবে চলতি সপ্তাহে৷

মাইকেল ডয়েস বলেন, দেখুন মাঠে দর্শক প্রবেশে, অনুমতি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা৷ বিলি জেন কিং স্টেডিয়ামের ধারণক্ষমতা ২৩ হাজারের মতো হলেও আমার এক ম্যাচে সর্বোচ্চ ৫ হাজার দর্শক প্রবেশের অনুমতি দেবো৷ তাদেরকেও বেশ কিছু নিয়ম মানতে হবে৷ একজন দর্শক সবমিলিয়ে সর্বোচ্চ দুটি ম্যাচ দেখতে পারবেন৷ আমরা চাই এখানে সবার অংশগ্রহণ থাকুক৷

এতো গেলো দর্শকদের কথা৷ কিন্তু এখনও যে সম্পূর্ণরূপে চালু হয়নি আন্তর্জাতিক বিমান যোগাযোগ৷ তবে এ ব্যাপারেও সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছে কর্তৃপক্ষ৷

মাইকেল ডয়েস বলেন, দেখুন আমাদের হাতে এখনও প্রায় তিন মাসের মতো সময় আছে৷ প্রত্যাশা করছি এর মধ্যে সবকিছুই’ অনেকটা স্বাভাবিক হয়ে যাবে৷ তবে তা না হলে আমরা বিকল্প ব্যবস্থা করে রেখেছি৷ বিশেষ বিমানে খেলোয়াড় ও সংশ্লিষ্টদের নিয়ে ও দিয়ে আসা হবে৷ সবকিছু মিলেয়ে একটি সফল টুর্নামেন্টে আয়োজনে আমরা সাধ্যের সবটুকুই করবো৷

তবে ইউএস ওপেন নিয়ে সিদ্ধান্ত আসলেও নানা যদি কিন্তুর দোলাচলে আটকে আছে ফ্রেঞ্চ ওপেনের ভাগ্য৷ আগামী সপ্তাহে আসতে পারে এ নিয়ে সিদ্ধান্ত।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

৩১ আগস্ট মাঠে গড়াবে ইউএস ওপেন

Update Time : ১০:০৮:৩৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুন ২০২০

স্বস্তি ফিরছে টেনিস কোর্টে, স্বস্তি ফিরেছে মার্কিন মুল্লুকে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ৩১ আগস্ট থেকে ১৩ সেপ্টেম্বর মাঠে গড়াবে ইউএস ওপেন। নিশ্চিত করেছেন ‘ইউনাইটেড স্টেট টেনিস অ্যাসোসিয়েশন -ইউএসটিএ’র প্রধান নির্বাহী মাইকেল ডয়েস। সেক্ষেত্রে মাঠে সীমিত আকারে দর্শক প্রবেশেরও মিলবে অনুমতি। আর প্রয়োজনে খেলোয়াড়দের উড়িয়ে আনা হবে চাটার্ড বিমানে।

করোনার ছোবল কোথায় গিয়ে লাগেনি ? তবে দুর্যোগ পুরোপুরি না কাটলেও ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে জনজীবন৷ আর যার নেতৃত্ব দিচ্ছে ক্রীড়াঙ্গণ৷

করোনায় বেহাল দশা মার্কিন মুল্লুকের৷ তবুও ঘোষণাটা আসলো সেখান থেকেই৷ সিদ্ধান্তটা, গ্র্যান্ডস্ল্যাম ইউএস ওপেন নিয়ে৷ যেখানে পরিস্থিতি বিবেচনায় ১ সপ্তাহ পিছাতে যাচ্ছে তারিখ৷ ২৪ আগস্ট নয় টুর্নামেন্ট শুরু হবে ৩১ আগস্ট থেকে৷

ইউএসটিএ’র প্রধান নির্বাহী মাইকেল ডয়েস বলেন, ইউএস ওপেন মাঠে ফেরাতে আমরা একটা ঐক্যমত্যে পৌঁছেছি৷ এটা সবার জন্যই দারুণ একটা খবর৷ দেখুন আমরা জানি না যে ঠিক কবে পরিস্থিতি পুরোপুরি স্বাভাবিক হবে৷ তাই এর মধ্যেই আমাদের মানিয়ে নিতে হবে৷ তবে খেলোয়াড়দের সুরক্ষাকে আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছি৷ সবার তিন দফা করোনা পরীক্ষা শেষেই মাঠে নামার অনুমতি পাবেন।

আছে খেলার প্রাণ দর্শকদের জন্যও শুভ সংবাদও৷ প্রতি ম্যাচে মাঠে প্রবেশের সুযোগ পাবেন ৫ হাজার জন৷ টিকেট বিক্রি শুরু হবে চলতি সপ্তাহে৷

মাইকেল ডয়েস বলেন, দেখুন মাঠে দর্শক প্রবেশে, অনুমতি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা৷ বিলি জেন কিং স্টেডিয়ামের ধারণক্ষমতা ২৩ হাজারের মতো হলেও আমার এক ম্যাচে সর্বোচ্চ ৫ হাজার দর্শক প্রবেশের অনুমতি দেবো৷ তাদেরকেও বেশ কিছু নিয়ম মানতে হবে৷ একজন দর্শক সবমিলিয়ে সর্বোচ্চ দুটি ম্যাচ দেখতে পারবেন৷ আমরা চাই এখানে সবার অংশগ্রহণ থাকুক৷

এতো গেলো দর্শকদের কথা৷ কিন্তু এখনও যে সম্পূর্ণরূপে চালু হয়নি আন্তর্জাতিক বিমান যোগাযোগ৷ তবে এ ব্যাপারেও সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছে কর্তৃপক্ষ৷

মাইকেল ডয়েস বলেন, দেখুন আমাদের হাতে এখনও প্রায় তিন মাসের মতো সময় আছে৷ প্রত্যাশা করছি এর মধ্যে সবকিছুই’ অনেকটা স্বাভাবিক হয়ে যাবে৷ তবে তা না হলে আমরা বিকল্প ব্যবস্থা করে রেখেছি৷ বিশেষ বিমানে খেলোয়াড় ও সংশ্লিষ্টদের নিয়ে ও দিয়ে আসা হবে৷ সবকিছু মিলেয়ে একটি সফল টুর্নামেন্টে আয়োজনে আমরা সাধ্যের সবটুকুই করবো৷

তবে ইউএস ওপেন নিয়ে সিদ্ধান্ত আসলেও নানা যদি কিন্তুর দোলাচলে আটকে আছে ফ্রেঞ্চ ওপেনের ভাগ্য৷ আগামী সপ্তাহে আসতে পারে এ নিয়ে সিদ্ধান্ত।