২ বিশ্ববিদ্যালয়ে ইফতার পার্টিতে নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদ : ঢাবিতে গণইফতারে শিক্ষার্থীর ঢল

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ১১:০১:০৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ মার্চ ২০২৪
  • / ৫৩ Time View

জাননাহ, ঢাবি প্রতিনিধি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) গণ-ইফতার কর্মসূচি পালন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি) এবং নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) ইফতার পার্টির উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রতিবাদে এ কর্মসূচি পালন করে তারা।

মঙ্গলবার (১২ মার্চ) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) পায়রা চত্বরে আয়োজিত এ গণ-ইফতারে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ, অনুষদ ও ইন্সটিটিউটের কয়েকশ শিক্ষার্থী অংশ নেন।

গণ ইফতারের উদ্দেশ্যে শিক্ষার্থীদের আসরের নামাজের পর থেকেই টিএসসিতে জড় হতে দেখা যায় । এরপর স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে কুরআন তিলাওয়াত, হামদ-নাত ও ইসলামি বিভিন্ন পরিবেশনা চলতে থাকে। পরে তাদের মধ্য থেকে কয়েকজন ২ বিশ্ববিদ্যালয়ে ইফতার পার্টিতে নিষেধাজ্ঞার জবাবে বক্তব্য রাখেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হাসান বলেন, দেশের দুইটি স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদের ক্যাম্পাসে বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্য ইফতার পার্টি নিষিদ্ধ করেছে। তারা দেশ থেকে ইসলামী সংস্কৃতিগুলো বাদ দিতে পাঁয়তারা করছে। আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই। এজন্য আজ গণ ইফতার কর্মসূচি গ্রহণ করেছি এবং সবাইকে আমাদের ইফতার কর্মসূচিতে আসার দাওয়াত দিচ্ছি।

সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী নাহিদ হাসান বলেন, বাংলাদেশের মুসলমানদের হাজার বছরের ঐতিহ্য রোজা রাখা, ইফতার করা। কোনো একটা গোষ্ঠী চক্রান্ত করে মুসলমানদের সংস্কৃতিতে হস্তক্ষেপের চেষ্টা করছে। আমাদের এ অপশক্তির জবাব দিতে হবে। ধর্মীয় আবেগের বাইরে গিয়ে রাজনৈতিকভাবে তাদের মোকাবিলা করতে হবে। এর জববে সারাদেশে গণসচেতনতা তৈরির বিকল্প নেই।

হাসিব আল ইসলাম বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষগুলো ক্যাম্পাসে ইফতার পার্টি বন্ধের সিদ্ধান্ত নেবে আর এ দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা সেটা সহ্য করবে এটা ভাবা বোকামি। তার প্রমাণ আজকের এ গণ ইফতার কর্মসূচি। সেই সব কুচক্রীরা তাকিয়ে দেখুক এখানে কত শিক্ষার্থী সমবেত হয়ে ইফতার করছে।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

২ বিশ্ববিদ্যালয়ে ইফতার পার্টিতে নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদ : ঢাবিতে গণইফতারে শিক্ষার্থীর ঢল

Update Time : ১১:০১:০৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ মার্চ ২০২৪

জাননাহ, ঢাবি প্রতিনিধি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) গণ-ইফতার কর্মসূচি পালন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি) এবং নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) ইফতার পার্টির উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রতিবাদে এ কর্মসূচি পালন করে তারা।

মঙ্গলবার (১২ মার্চ) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) পায়রা চত্বরে আয়োজিত এ গণ-ইফতারে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগ, অনুষদ ও ইন্সটিটিউটের কয়েকশ শিক্ষার্থী অংশ নেন।

গণ ইফতারের উদ্দেশ্যে শিক্ষার্থীদের আসরের নামাজের পর থেকেই টিএসসিতে জড় হতে দেখা যায় । এরপর স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে কুরআন তিলাওয়াত, হামদ-নাত ও ইসলামি বিভিন্ন পরিবেশনা চলতে থাকে। পরে তাদের মধ্য থেকে কয়েকজন ২ বিশ্ববিদ্যালয়ে ইফতার পার্টিতে নিষেধাজ্ঞার জবাবে বক্তব্য রাখেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হাসান বলেন, দেশের দুইটি স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদের ক্যাম্পাসে বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্য ইফতার পার্টি নিষিদ্ধ করেছে। তারা দেশ থেকে ইসলামী সংস্কৃতিগুলো বাদ দিতে পাঁয়তারা করছে। আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই। এজন্য আজ গণ ইফতার কর্মসূচি গ্রহণ করেছি এবং সবাইকে আমাদের ইফতার কর্মসূচিতে আসার দাওয়াত দিচ্ছি।

সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী নাহিদ হাসান বলেন, বাংলাদেশের মুসলমানদের হাজার বছরের ঐতিহ্য রোজা রাখা, ইফতার করা। কোনো একটা গোষ্ঠী চক্রান্ত করে মুসলমানদের সংস্কৃতিতে হস্তক্ষেপের চেষ্টা করছে। আমাদের এ অপশক্তির জবাব দিতে হবে। ধর্মীয় আবেগের বাইরে গিয়ে রাজনৈতিকভাবে তাদের মোকাবিলা করতে হবে। এর জববে সারাদেশে গণসচেতনতা তৈরির বিকল্প নেই।

হাসিব আল ইসলাম বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষগুলো ক্যাম্পাসে ইফতার পার্টি বন্ধের সিদ্ধান্ত নেবে আর এ দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা সেটা সহ্য করবে এটা ভাবা বোকামি। তার প্রমাণ আজকের এ গণ ইফতার কর্মসূচি। সেই সব কুচক্রীরা তাকিয়ে দেখুক এখানে কত শিক্ষার্থী সমবেত হয়ে ইফতার করছে।