২৪-২৫ অর্থবছরে আসছে ৮ লাখ কোটির বাজেট

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৯:৪৩:৪৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ এপ্রিল ২০২৪
  • / ২১ Time View

সরকার ২০১৪-২৫ অর্থবছরে ৮ লাখ কোটি টাকার বাজেট প্রনয়ণ করতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী মো. শহিদুজ্জামান সরকার।

তিনি বলেন, এবারের বাজেট হবে জনগণের বাজেট। হতাশার কিছু নাই। আমরা এক লাখ কোটি টাকার বাজেট দিয়ে শুরু করেছি। এবার ইনশাআল্লাহ আমরা ৮ লাখ কোটি টাকার বাজেট করব।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে রিসার্চ এন্ড পলিসি ইন্টিগ্রেশন ফর ডেভেলপমেন্ট (র‍্যাপিড) আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাজেট শুধু ভোটের সংখ্যা নয় অঙ্ক নয়। বাজেট শুধু মোট আয়-ব্যয়ের হিসাবও নয়। বাজেট প্রণীত হয় কয়েকটি বিষয় নিয়ে। প্রথম বিষয়টি থাকে একটি সরকারের রাজনৈতিক অভিলাষ, রাজনৈতিক অঙ্গীকার ও মানুষের প্রতি সরকারের যে দায়বদ্ধতা তার উপর। প্রতিটা সরকারের একটা পলিটিক্যাল অ্যাজেন্ডা থাকে। সেই অ্যাজেন্ডাকে অর্থনৈতিকভাবে মানুষের কল্যাণে ব্যবহার করার জন্য নিয়মতান্ত্রিকভাবে বাজেট দিতে হয়।

পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, আমাদের সীমাবদ্ধতা হয়ত আছে কোনো কোনো জায়গায়। তবে এর সঙ্গে আমাদের অর্জনগুলোকেও বিবেচনা করতে হবে। আমাদের জীবনযাত্রার মান বেড়েছে, মানুষের চাহিদার ধরন বেড়েছে। একসময় মানুষের ভাত-কাপড়ের দাবি ছিল। এখন মানুষ সুন্দর জীবনযাপনের দাবি করে। এগুলো কিন্তু আমাদের অর্জন। এগুলোর জন্য সরকার কাজ করে যাচ্ছে।

একটা প্রকল্প যথাসময়ে বাস্তবায়ন না হলে দু-মুখো সমস্যা হয় বলে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী জানান, একটা আমাদের ইউটিলিটি লেভেলের সমস্যা হয় আরেকটা আমাদের সম্পদের দায়টা বেড়ে যায়। এই দুটোই আমাদের জন্য ক্ষতিকর। এই ব্যাপারে আমাদের মন্ত্রণালয় সতর্ক আছে, প্রকল্পগুলো যেন বাস্তবসম্মত হয় এবং দ্রুত সমাপ্ত হয়।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

২৪-২৫ অর্থবছরে আসছে ৮ লাখ কোটির বাজেট

Update Time : ০৯:৪৩:৪৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ এপ্রিল ২০২৪

সরকার ২০১৪-২৫ অর্থবছরে ৮ লাখ কোটি টাকার বাজেট প্রনয়ণ করতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী মো. শহিদুজ্জামান সরকার।

তিনি বলেন, এবারের বাজেট হবে জনগণের বাজেট। হতাশার কিছু নাই। আমরা এক লাখ কোটি টাকার বাজেট দিয়ে শুরু করেছি। এবার ইনশাআল্লাহ আমরা ৮ লাখ কোটি টাকার বাজেট করব।

মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে রিসার্চ এন্ড পলিসি ইন্টিগ্রেশন ফর ডেভেলপমেন্ট (র‍্যাপিড) আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাজেট শুধু ভোটের সংখ্যা নয় অঙ্ক নয়। বাজেট শুধু মোট আয়-ব্যয়ের হিসাবও নয়। বাজেট প্রণীত হয় কয়েকটি বিষয় নিয়ে। প্রথম বিষয়টি থাকে একটি সরকারের রাজনৈতিক অভিলাষ, রাজনৈতিক অঙ্গীকার ও মানুষের প্রতি সরকারের যে দায়বদ্ধতা তার উপর। প্রতিটা সরকারের একটা পলিটিক্যাল অ্যাজেন্ডা থাকে। সেই অ্যাজেন্ডাকে অর্থনৈতিকভাবে মানুষের কল্যাণে ব্যবহার করার জন্য নিয়মতান্ত্রিকভাবে বাজেট দিতে হয়।

পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, আমাদের সীমাবদ্ধতা হয়ত আছে কোনো কোনো জায়গায়। তবে এর সঙ্গে আমাদের অর্জনগুলোকেও বিবেচনা করতে হবে। আমাদের জীবনযাত্রার মান বেড়েছে, মানুষের চাহিদার ধরন বেড়েছে। একসময় মানুষের ভাত-কাপড়ের দাবি ছিল। এখন মানুষ সুন্দর জীবনযাপনের দাবি করে। এগুলো কিন্তু আমাদের অর্জন। এগুলোর জন্য সরকার কাজ করে যাচ্ছে।

একটা প্রকল্প যথাসময়ে বাস্তবায়ন না হলে দু-মুখো সমস্যা হয় বলে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী জানান, একটা আমাদের ইউটিলিটি লেভেলের সমস্যা হয় আরেকটা আমাদের সম্পদের দায়টা বেড়ে যায়। এই দুটোই আমাদের জন্য ক্ষতিকর। এই ব্যাপারে আমাদের মন্ত্রণালয় সতর্ক আছে, প্রকল্পগুলো যেন বাস্তবসম্মত হয় এবং দ্রুত সমাপ্ত হয়।