হেলিকপ্টার যোগে সৌখিন ও রাজকীয় বিয়ে করেছেন প্রবাসী রাজু

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৯:৫৯:২৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৪ নভেম্বর ২০২২
  • / ২৫৩ Time View

নিজস্ব প্রতিবেদক:

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে দেখা গেল একটি ব্যতিক্রমি বিয়ে। পোল্যান্ড প্রবাসী রাজু আহমেদ দোলন হেলিকপ্টার যোগে সৌখিন ও রাজকীয় ভাবে বিয়ে করেছেন।

শুক্রবার (১১ নভেম্বর) মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে পোল্যান্ড প্রবাসী শহরতলীর মুসলিমবাগ আবাসিক এলাকার বাসিন্দা জয়নাল আবেদীন ও রুবিনা বেগমের বড় ছেলে রাজু আহমেদ দোলন বিয়ে করেছেন এমনি জাঁকালোভাবে।

শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টায় শহরতলীর কালীঘাট রোডস্থ চলন্তিকা মাঠ থেকে মা-বাবাকে সাথে নিয়ে হেলিকপ্টার যোগে কনে আনতে যান শ্রীমঙ্গলের রাধানগর এলাকার পাঁচ তারকা হোটেল গ্র্যান্ড সুলতানে।

হেলিকপ্টারটি চলন্তিকা মাঠে অবতরণ করলে শত শত স্থানীয় লোকজন ভিড় জমায় এক পলক দেখার জন্য। এ সময় ছোট্ট শিশুদের দেখা গেছে, হাত নেড়ে হেলিকপ্টারকে স্বাগত জানাতে।

কনে একই এলাকার মুসলিমবাগের বাসিন্দা মরহুম নুরুল ইসলাম ও মরহুমা রাহেলা ইসলামের কনিষ্ট কন্যা ও স্থানীয় একটি বেসরকারি বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা মাসুদা বেগমের ছোট বোন মোছা. আছমা আক্তার ইতি।

রাজু

জানা যায়, রাজু আহমেদ দোলন কয়েক বছর আগে লেখাপড়ার উদ্দেশ্যে যুক্তরাজ্য পাড়ি জমান। সেখানে ব্যবসার উপর ডিপ্লোমা করে তিনি পোল্যান্ডে যান। পোল্যান্ডে গিয়ে প্রথমে একটি রেস্টুরেন্ট খুলে ব্যবসা শুরু করেন। তরুণ এই ব্যবসায়ী সফল ব্যবসার মাধ্যমে এখন পোল্যান্ডে চারটি রেষ্টুরেন্টের মালিক।

শনিবার (১২ নভেম্বর) বিয়ের খরচ সম্পর্কে জানতে চাইলে রাজু আহমেদ দোলন জানান, হেলিকপ্টারটি ৪ ঘণ্টার জন্য ভাড়া নিয়েছেন ২ লাখ টাকায়।

এছাড়া স্থানীয় সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ, শ্রীমঙ্গল পৌরমেয়র মো. মহসিন মিয়া মধুসহ আমন্ত্রিত অতিথি এসেছিলেন প্রায় চারশত জন। সবার খাওয়া-দাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছিল পাঁচ তারকা হোটেল গ্র্যান্ড সুলতানে।

No description available.

বিয়ের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি লক্ষ্মীপুর সোসাইটির ইউকের প্রতিষ্ঠাতা ও ইউরোপিয়ান ইন্টারন্যাশনাল কনসালটেন্সির সিইও মো: আফতাব উদ্দিন ভূইয়া জানান, রাজু আহমেদ ইউকে থেকে বিজনেস ডিগ্রি অর্জন করে ব্যবসায়িক দক্ষতার স্বাক্ষর রেখেছে। পোল্যান্ডে সুনামের সাথে ব্যবসা করে দেশের রেমিটেন্সে ভূমিকা রাখছে। তিনি বাংলাদেশী তরুনদেরকে এমন ব্যবসায়িক কৃতিত্বের উদাহরন রাখার আহবান জানান।

কনেকে দেওয়া হয়েছে ১৫ ভরি সোনার গহনা। সব মিলিয়ে ২৫ লক্ষাধিক টাকা মতো খরচ হবে বলে তিনি জানান।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

হেলিকপ্টার যোগে সৌখিন ও রাজকীয় বিয়ে করেছেন প্রবাসী রাজু

Update Time : ০৯:৫৯:২৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৪ নভেম্বর ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক:

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে দেখা গেল একটি ব্যতিক্রমি বিয়ে। পোল্যান্ড প্রবাসী রাজু আহমেদ দোলন হেলিকপ্টার যোগে সৌখিন ও রাজকীয় ভাবে বিয়ে করেছেন।

শুক্রবার (১১ নভেম্বর) মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে পোল্যান্ড প্রবাসী শহরতলীর মুসলিমবাগ আবাসিক এলাকার বাসিন্দা জয়নাল আবেদীন ও রুবিনা বেগমের বড় ছেলে রাজু আহমেদ দোলন বিয়ে করেছেন এমনি জাঁকালোভাবে।

শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টায় শহরতলীর কালীঘাট রোডস্থ চলন্তিকা মাঠ থেকে মা-বাবাকে সাথে নিয়ে হেলিকপ্টার যোগে কনে আনতে যান শ্রীমঙ্গলের রাধানগর এলাকার পাঁচ তারকা হোটেল গ্র্যান্ড সুলতানে।

হেলিকপ্টারটি চলন্তিকা মাঠে অবতরণ করলে শত শত স্থানীয় লোকজন ভিড় জমায় এক পলক দেখার জন্য। এ সময় ছোট্ট শিশুদের দেখা গেছে, হাত নেড়ে হেলিকপ্টারকে স্বাগত জানাতে।

কনে একই এলাকার মুসলিমবাগের বাসিন্দা মরহুম নুরুল ইসলাম ও মরহুমা রাহেলা ইসলামের কনিষ্ট কন্যা ও স্থানীয় একটি বেসরকারি বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা মাসুদা বেগমের ছোট বোন মোছা. আছমা আক্তার ইতি।

রাজু

জানা যায়, রাজু আহমেদ দোলন কয়েক বছর আগে লেখাপড়ার উদ্দেশ্যে যুক্তরাজ্য পাড়ি জমান। সেখানে ব্যবসার উপর ডিপ্লোমা করে তিনি পোল্যান্ডে যান। পোল্যান্ডে গিয়ে প্রথমে একটি রেস্টুরেন্ট খুলে ব্যবসা শুরু করেন। তরুণ এই ব্যবসায়ী সফল ব্যবসার মাধ্যমে এখন পোল্যান্ডে চারটি রেষ্টুরেন্টের মালিক।

শনিবার (১২ নভেম্বর) বিয়ের খরচ সম্পর্কে জানতে চাইলে রাজু আহমেদ দোলন জানান, হেলিকপ্টারটি ৪ ঘণ্টার জন্য ভাড়া নিয়েছেন ২ লাখ টাকায়।

এছাড়া স্থানীয় সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদ, শ্রীমঙ্গল পৌরমেয়র মো. মহসিন মিয়া মধুসহ আমন্ত্রিত অতিথি এসেছিলেন প্রায় চারশত জন। সবার খাওয়া-দাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছিল পাঁচ তারকা হোটেল গ্র্যান্ড সুলতানে।

No description available.

বিয়ের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি লক্ষ্মীপুর সোসাইটির ইউকের প্রতিষ্ঠাতা ও ইউরোপিয়ান ইন্টারন্যাশনাল কনসালটেন্সির সিইও মো: আফতাব উদ্দিন ভূইয়া জানান, রাজু আহমেদ ইউকে থেকে বিজনেস ডিগ্রি অর্জন করে ব্যবসায়িক দক্ষতার স্বাক্ষর রেখেছে। পোল্যান্ডে সুনামের সাথে ব্যবসা করে দেশের রেমিটেন্সে ভূমিকা রাখছে। তিনি বাংলাদেশী তরুনদেরকে এমন ব্যবসায়িক কৃতিত্বের উদাহরন রাখার আহবান জানান।

কনেকে দেওয়া হয়েছে ১৫ ভরি সোনার গহনা। সব মিলিয়ে ২৫ লক্ষাধিক টাকা মতো খরচ হবে বলে তিনি জানান।