এবার হল খোলার দাবিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ

এবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্যাম্পাসসহ হল খোলার দাবি জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। এর জন্য দিয়েছেন ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম। এর মধ্যে ক্যাম্পাস এবং হল খুলে শিক্ষা কার্যক্রম স্বাভাবিক করার সিদ্ধান্ত না নিলে নিজেরাই সিদ্ধান্ত নেবেন বলেও ঘোষণা দিয়েছেন তারা।

এসব দাবিতে রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম আব্দুস সোবহানের বাসভবনের সামনে আধ ঘণ্টার অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন শিক্ষার্থীরা। অবস্থান থেকে আগামীকাল বেলা ১১টা পর্যন্ত সময় বেধে দেয়া হয়।

এর আগে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে হল খুলে দেয়ার দাবিতে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন শুরু করেন। বিশ্ববিদ্যালয় পরিবহন মার্কেটের আমতলা থেকে তারা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। মিছিলটি ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবাহানের বাসভবনের সামনে অবস্থান নেন তারা। এ সময় অন্তত ২ শতাধিক শিক্ষার্থী আন্দোলনে অংশ নেন।

শিক্ষার্থীদের দাবি, দেশের সবকিছু স্বাভাবিক থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবেই আবাসিক হলগুলো বন্ধ রেখেছে। বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যকে তারা একাধিকবার হল খোলার বিষয়ে অনুরোধ করলেও এবং স্মারকলিপি প্রধানসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করলেও কোনো ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে না।

jagonews24

আন্দোলনরত নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী মহিউদ্দিন মানিক বলেন, দেশের সবকিছু তো চলছে। ক্যাম্পাস খুলে না দিলে শিক্ষার্থীরা সেশনজটসহ ভয়াবহ পরিস্থিতি মুখোমুখি হচ্ছে। ক্যাম্পাসের বাইরে অবস্থানের কারণেই আজকে দেশে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা বর্বরোচিত সন্ত্রাসী হামলার শিকার হচ্ছে। আমরা এখন আর ক্যাম্পাসের বাইরে নিরাপদ না। প্রশাসনের কাছে জোর দাবি তারা যেন অতি দ্রুত ক্যাম্পাস ও হল খুলে দে।

তিনি আরও বলেন, আমরা বিক্ষোভ ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছি। আমরা প্রশাসনের কাছে দাবি জানিয়েছি আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে হল খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে। যদি তারা সিদ্ধান্ত না নিতে পারেন তাহলে শিক্ষার্থীরা তাদের মতো করে সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হবে।

আন্দোলনে অংশ নেয়া শিক্ষার্থী মাহমুদ সাকি বলেন, আমরা এতদিন চুপ ছিলাম। আমরা তাকিয়েছিলাম প্রশাসনের বিবেকের দিকে। কিন্তু তাদের বিবেক নাড়া দেয়নি। তাদের তো বেতন ভাতা বন্ধ নেই। তাহলে আমাদের হল ক্যাম্পাস বন্ধ কেন? প্রতিদিন জুবেরি ভবনে আড্ডা হচ্ছে প্রশাসন ভবনে মিটিং হচ্ছে সেখানে করোনাভাইরাস নেই করোনা শুধু আমার ক্লাস রুমে।

এদিকে, গত শুক্রবার সন্ধ্যায় ক্রিকেট টুর্নামেন্টকে কেন্দ্র করে বিরোধের জেরে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালান ক্যাম্পাস পার্শ্ববর্তী গেরুয়া এলাকাবাসী। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তত ৪০ শিক্ষার্থী আহত হন। এরপর শনিবার হল খোলার দাবিতে আন্দোলন করেন জাবির শিক্ষার্থীরা। হলের প্রধান ফটকের তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করেন তারা। এরপর রাতে ছাত্রাবাসে অবস্থান নেন অনেক শিক্ষার্থী।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

1 × four =