হজ্বের ব্যাপারে ১৫ই জুনের মধ্যে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের আশা বাংলাদেশের

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০১:৪৪:৫২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুন ২০২০
  • / ১৪৪ Time View
বিশেষ প্রতিনিধিঃ
‘সৌদি আরব আগামী ১৫ জুনের মধ্যে এ বছরের হজ বিষয়ে তাদের সিদ্ধান্ত নেবে’।

হজ নিয়ে ১৫ই জুনের মধ্যে সৌদি সরকারের কাছ থেকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত পাওয়ার ব্যাপারে আশা প্রকাশ করেছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।

তিনি আরও জানান, কোটা অনুযায়ী বাংলাদেশ থেকে এক লাখ ৩৭ হাজার হজযাত্রী যাওয়ার কথা রয়েছে। এই বছর বাংলাদেশসহ বহির্বিশ্বের হজযাত্রীরা হজ পালন করতে পারবে কিনা তা নির্ভর করছে করোনা পরিস্থিতির ওপর। সব বিষয় বিবেচনা করে সে সিদ্ধান্ত নেবে সৌদি সরকার। আমরা আসা করছি এ ব্যাপারে তারা আগামী ১৫ জুনের মধ্যে আমাদের সিদ্ধান্ত জানাবে। তাদের সিদ্ধান্ত পাওয়া মাত্রই বাংলাদেশ প্রয়োজনীয় কার্যক্রম শুরু করবে। এবার এই সংখ্যক হজযাত্রী যেতে না পারলেও এ ব্যাপারে ইতিবাচক সিদ্ধান্তের আশা করা হচ্ছে।

ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরে বাংলাদেশের হজের কোটা ১ লাখ ৩৭ হাজার ১৯৮ জন । এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৭ হাজার ১৯৮ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২০ হাজার । তবে, করোনার কারণে এ বছর নিবন্ধিত ৬৪ হাজার ৫৯৪ জনের মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৩ হাজার ৪৫৭ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬১ হাজার ৫৯৪ জন নিবন্ধন করেছেন।

গত মার্চে, সৌদি আরব বাংলাদেশকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত হজ সম্পর্কিত কার্যক্রম স্থগিত করার জন্য একটি নির্দেশনা জারি করেছিল। কিন্তু বাংলাদেশ এপ্রিল পর্যন্ত নিবন্ধকরণ প্রক্রিয়া চালিয়ে যায়।

এই বছর চাঁদ দেখা সাপেক্ষে ৩০ জুলাই (৯ জিলহজ) হজ্ অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

হজ্বের ব্যাপারে ১৫ই জুনের মধ্যে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের আশা বাংলাদেশের

Update Time : ০১:৪৪:৫২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জুন ২০২০
বিশেষ প্রতিনিধিঃ
‘সৌদি আরব আগামী ১৫ জুনের মধ্যে এ বছরের হজ বিষয়ে তাদের সিদ্ধান্ত নেবে’।

হজ নিয়ে ১৫ই জুনের মধ্যে সৌদি সরকারের কাছ থেকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত পাওয়ার ব্যাপারে আশা প্রকাশ করেছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।

তিনি আরও জানান, কোটা অনুযায়ী বাংলাদেশ থেকে এক লাখ ৩৭ হাজার হজযাত্রী যাওয়ার কথা রয়েছে। এই বছর বাংলাদেশসহ বহির্বিশ্বের হজযাত্রীরা হজ পালন করতে পারবে কিনা তা নির্ভর করছে করোনা পরিস্থিতির ওপর। সব বিষয় বিবেচনা করে সে সিদ্ধান্ত নেবে সৌদি সরকার। আমরা আসা করছি এ ব্যাপারে তারা আগামী ১৫ জুনের মধ্যে আমাদের সিদ্ধান্ত জানাবে। তাদের সিদ্ধান্ত পাওয়া মাত্রই বাংলাদেশ প্রয়োজনীয় কার্যক্রম শুরু করবে। এবার এই সংখ্যক হজযাত্রী যেতে না পারলেও এ ব্যাপারে ইতিবাচক সিদ্ধান্তের আশা করা হচ্ছে।

ধর্ম মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরে বাংলাদেশের হজের কোটা ১ লাখ ৩৭ হাজার ১৯৮ জন । এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৭ হাজার ১৯৮ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২০ হাজার । তবে, করোনার কারণে এ বছর নিবন্ধিত ৬৪ হাজার ৫৯৪ জনের মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৩ হাজার ৪৫৭ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬১ হাজার ৫৯৪ জন নিবন্ধন করেছেন।

গত মার্চে, সৌদি আরব বাংলাদেশকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত হজ সম্পর্কিত কার্যক্রম স্থগিত করার জন্য একটি নির্দেশনা জারি করেছিল। কিন্তু বাংলাদেশ এপ্রিল পর্যন্ত নিবন্ধকরণ প্রক্রিয়া চালিয়ে যায়।

এই বছর চাঁদ দেখা সাপেক্ষে ৩০ জুলাই (৯ জিলহজ) হজ্ অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা করা হচ্ছে।