স্যামসাংয়ের ২৩ হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগ পরিকল্পনা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ১০:৩৬:০৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মার্চ ২০২৩
  • / 160

ডেস্ক:

দক্ষিণ কোরিয়ার পিয়ংতায়েক স্যামসাং ইলেকট্রনিকসের চিপ উৎপাদন কারখানা ছবি: রয়টার্স
দক্ষিণ কোরিয়ায় চিপ উৎপাদন খাতে ২৩ হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগ করবে স্যামসাং ইলেকট্রনিকস। আগামী ২০ বছরে এ বিনিয়োগ করবে প্রযুক্তি জায়ান্টটি। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, দক্ষিণ কোরিয়ার চিপ শিল্পকে শক্তিশালী করতে সরকারি প্রচেষ্টার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে এ বিনিয়োগের পরিকল্পনা করছে স্যামসাং। বিশ্বের বৃহত্তম চিপ উৎপাদন কেন্দ্র হিসেবে দক্ষিণ কোরিয়াকে প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে সরকারি যাত্রায় যুক্ত হয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

স্যামসাংয়ের বিনিয়োগ পরিকল্পনা নিয়ে সম্প্রতি দেশটির সরকারি দপ্তর বেশকিছু তথ্য প্রকাশ পেয়েছে। প্রকাশিত এসব তথ্যমতে, স্যামসাং প্রায় ৩০০ ট্রিলিয়ন কোরিয়ান ওন বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে। বেসরকারি খাত থেকে সরকারের ৫৫০ ট্রিলিয়ন ওন বিনিয়োগ আকর্ষনের অংশ হিসেবে স্যামসাংয়ের এ ঘোষণা। চিপ, ডিসপ্লে এবং ব্যাটারিসহ উন্নত প্রযুক্তির খাতগুলোর প্রতিযোগিতা বাড়াতে কর মওকুফ এবং ভর্তুকি সহায়তা বাড়িয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ।

বিশ্লেষকরা বলছেন, দেশীয় চিপ খাতকে শক্তিশালী করার বিষয়ে অন্যান্য দেশের গৃহীত উদ্যোগে প্রভাবিত হয়েছে দেশটি। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ অভ্যন্তরীণ চিপ ইন্ডাস্ট্রি উন্নয়নের দিকে মনোযোগ দিয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়াও এখন সে পথেই হাঁটছে। এর আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র চিপ উৎপাদনকল্পে কৌশলী অবস্থান নিয়েছে। দেশটিতে বিনিয়োগকারী চিপ উৎপাদনকারীদের জন্য শত শত কোটি ডলার ভর্তুকি প্রদানের ঘোষণা দিয়েছে।

এ প্রসঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট ইয়ুন সুক ইওল বলেন, ‘‌চিপ নিয়ে শুরু হওয়া অর্থনৈতিক যুদ্ধের ক্ষেত্র সাম্প্রতিক সময়ে প্রসারিত হয়েছে। বিভিন্ন দেশ খাতটিতে বড় ধরনের ভর্তুকি এবং কর সহায়তা দিচ্ছে। আমাদের আরো শক্তিশালী অবস্থান নিশ্চিত করতে বেসরকারি বিনিয়োগ উৎসাহিত করতে হবে। এজন্য সরকারি উদ্যোগে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে উপযুক্ত অবস্থান, গবেষণা ও উন্নয়ন, জনশক্তি এবং কর সহায়তা প্রদান করতে হবে।’

দেশটির শিল্প মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, চিপ উৎপাদনে স্যামসাংয়ের এ বিনিয়োগের সঙ্গে আরো পাঁচটি চিপ কারখানা অন্তর্ভুক্ত হবে। পাশাপাশি রাজধানী সিউলের কাছে ১৫০টি মেটারিয়ালস, পার্টস ও সরঞ্জাম প্রস্তুতকারক, চিপ প্রস্তুতকারক এবং গবেষণা ও উন্নয়ন সংস্থাকে আকৃষ্ট করবে।

কোরিয়ার সরকারি কর্তৃপক্ষ বলছে, বেসরকারি খাতের বিনিয়োগ ছাড়াও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার (এআই) মতো প্রযুক্তিতে গবেষণা ও উন্নয়নে সরকার আগামী পাঁচ বছরে ২৫ ট্রিলিয়ন ওন বা তার বেশি বাজেট করবে। এর মধ্যে চিপ প্যাকেজিংয়ের উন্নয়নে প্রায় ৩৬ হাজার কোটি ওন এবং ইন্ডাস্ট্রিয়াল কমপ্লেক্সের বিদ্যুৎ ও পানি অবকাঠামোর জন্য চলতি বছরে প্রায় ১০ হাজার কোটি ওন প্রদান করবে। এর আগে জানুয়ারিতে, সরকার বড় করপোরেশনগুলোর জন্য চিপ এবং অন্যান্য স্ট্র্যাটেজিক টেকনোলজি কারখানায় বিনিয়োগের ক্ষেত্রে কর মওকুফের হার ৮ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করেছিল।

রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, স্যামসাং ইলেকট্রনিকস, স্যামসাং ডিসপ্লে, সহযোগী সংস্থা স্যামসাং এসডিআই এবং স্যামসাং ইলেকট্রো-মেকানিকস আলাদাভাবে জানিয়েছে, সিউল মেট্রোপলিটন এলাকার বাইরে চিপ প্যাকেজিং, ডিসপ্লে এবং ব্যাটারি প্রযুক্তির উন্নয়নে আগামী ১০ বছরে ৬০ লাখ ১০ হাজার কোটি ওন বিনিয়োগের পরিকল্পনা রয়েছে প্রতিষ্ঠানগুলোর।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

স্যামসাংয়ের ২৩ হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগ পরিকল্পনা

Update Time : ১০:৩৬:০৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মার্চ ২০২৩

ডেস্ক:

দক্ষিণ কোরিয়ার পিয়ংতায়েক স্যামসাং ইলেকট্রনিকসের চিপ উৎপাদন কারখানা ছবি: রয়টার্স
দক্ষিণ কোরিয়ায় চিপ উৎপাদন খাতে ২৩ হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগ করবে স্যামসাং ইলেকট্রনিকস। আগামী ২০ বছরে এ বিনিয়োগ করবে প্রযুক্তি জায়ান্টটি। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, দক্ষিণ কোরিয়ার চিপ শিল্পকে শক্তিশালী করতে সরকারি প্রচেষ্টার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে এ বিনিয়োগের পরিকল্পনা করছে স্যামসাং। বিশ্বের বৃহত্তম চিপ উৎপাদন কেন্দ্র হিসেবে দক্ষিণ কোরিয়াকে প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে সরকারি যাত্রায় যুক্ত হয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

স্যামসাংয়ের বিনিয়োগ পরিকল্পনা নিয়ে সম্প্রতি দেশটির সরকারি দপ্তর বেশকিছু তথ্য প্রকাশ পেয়েছে। প্রকাশিত এসব তথ্যমতে, স্যামসাং প্রায় ৩০০ ট্রিলিয়ন কোরিয়ান ওন বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে। বেসরকারি খাত থেকে সরকারের ৫৫০ ট্রিলিয়ন ওন বিনিয়োগ আকর্ষনের অংশ হিসেবে স্যামসাংয়ের এ ঘোষণা। চিপ, ডিসপ্লে এবং ব্যাটারিসহ উন্নত প্রযুক্তির খাতগুলোর প্রতিযোগিতা বাড়াতে কর মওকুফ এবং ভর্তুকি সহায়তা বাড়িয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ।

বিশ্লেষকরা বলছেন, দেশীয় চিপ খাতকে শক্তিশালী করার বিষয়ে অন্যান্য দেশের গৃহীত উদ্যোগে প্রভাবিত হয়েছে দেশটি। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ অভ্যন্তরীণ চিপ ইন্ডাস্ট্রি উন্নয়নের দিকে মনোযোগ দিয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়াও এখন সে পথেই হাঁটছে। এর আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র চিপ উৎপাদনকল্পে কৌশলী অবস্থান নিয়েছে। দেশটিতে বিনিয়োগকারী চিপ উৎপাদনকারীদের জন্য শত শত কোটি ডলার ভর্তুকি প্রদানের ঘোষণা দিয়েছে।

এ প্রসঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট ইয়ুন সুক ইওল বলেন, ‘‌চিপ নিয়ে শুরু হওয়া অর্থনৈতিক যুদ্ধের ক্ষেত্র সাম্প্রতিক সময়ে প্রসারিত হয়েছে। বিভিন্ন দেশ খাতটিতে বড় ধরনের ভর্তুকি এবং কর সহায়তা দিচ্ছে। আমাদের আরো শক্তিশালী অবস্থান নিশ্চিত করতে বেসরকারি বিনিয়োগ উৎসাহিত করতে হবে। এজন্য সরকারি উদ্যোগে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে উপযুক্ত অবস্থান, গবেষণা ও উন্নয়ন, জনশক্তি এবং কর সহায়তা প্রদান করতে হবে।’

দেশটির শিল্প মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, চিপ উৎপাদনে স্যামসাংয়ের এ বিনিয়োগের সঙ্গে আরো পাঁচটি চিপ কারখানা অন্তর্ভুক্ত হবে। পাশাপাশি রাজধানী সিউলের কাছে ১৫০টি মেটারিয়ালস, পার্টস ও সরঞ্জাম প্রস্তুতকারক, চিপ প্রস্তুতকারক এবং গবেষণা ও উন্নয়ন সংস্থাকে আকৃষ্ট করবে।

কোরিয়ার সরকারি কর্তৃপক্ষ বলছে, বেসরকারি খাতের বিনিয়োগ ছাড়াও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার (এআই) মতো প্রযুক্তিতে গবেষণা ও উন্নয়নে সরকার আগামী পাঁচ বছরে ২৫ ট্রিলিয়ন ওন বা তার বেশি বাজেট করবে। এর মধ্যে চিপ প্যাকেজিংয়ের উন্নয়নে প্রায় ৩৬ হাজার কোটি ওন এবং ইন্ডাস্ট্রিয়াল কমপ্লেক্সের বিদ্যুৎ ও পানি অবকাঠামোর জন্য চলতি বছরে প্রায় ১০ হাজার কোটি ওন প্রদান করবে। এর আগে জানুয়ারিতে, সরকার বড় করপোরেশনগুলোর জন্য চিপ এবং অন্যান্য স্ট্র্যাটেজিক টেকনোলজি কারখানায় বিনিয়োগের ক্ষেত্রে কর মওকুফের হার ৮ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করেছিল।

রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, স্যামসাং ইলেকট্রনিকস, স্যামসাং ডিসপ্লে, সহযোগী সংস্থা স্যামসাং এসডিআই এবং স্যামসাং ইলেকট্রো-মেকানিকস আলাদাভাবে জানিয়েছে, সিউল মেট্রোপলিটন এলাকার বাইরে চিপ প্যাকেজিং, ডিসপ্লে এবং ব্যাটারি প্রযুক্তির উন্নয়নে আগামী ১০ বছরে ৬০ লাখ ১০ হাজার কোটি ওন বিনিয়োগের পরিকল্পনা রয়েছে প্রতিষ্ঠানগুলোর।