সারা দেশে ১ কোটি বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৮:২৯:২৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই ২০২০
  • / ২৭৪ Time View

নিজস্ব প্রতিবেদক:

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এক কোটি বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন প্রাঙ্গণে তেঁতুল, ছাতিম ও চালতার তিনটি চারা রোপণের মাধ্যমে এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন শেখ হাসিনা।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীকে স্মরণীয় করে রাখতে মুজিববর্ষে পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় দেশের ৪৯২ উপজেলার প্রতিটিতে ২০ হাজার ৩২৫টি করে বিভিন্ন প্রজাতির বনজ, ঔষধি ও ফলজ বৃক্ষের চারা বিতরণ করবে। বন বিভাগের মাধ্যমে এসব চারা বিতরণ করা হবে।

এরই মধ্যে প্রতিটি জেলার সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে জেলা পরিবেশ ও বন উন্নয়ন কমিটির সভার সিদ্ধান্তে ভিত্তিতে উপজেলা পরিবেশ ও বন উন্নয়ন কমিটি চারা বিতরণ বিষয়ে বিশদ পরিকল্পনা সহকারীদের তালিকা প্রণয়ন করেছে।

জানা গেছে, মুজিববর্ষে রোপণের জন্য এক কোটি চারার মধ্যে ৫০ শতাংশ ফলজ এবং অবশিষ্ট ৫০ ভাগ বনজ, ঔষধি ও শোভা বর্ধণকারী গাছ। কোনো বিদেশী গাছ লাগানো হবে না।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

সারা দেশে ১ কোটি বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

Update Time : ০৮:২৯:২৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক:

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এক কোটি বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন প্রাঙ্গণে তেঁতুল, ছাতিম ও চালতার তিনটি চারা রোপণের মাধ্যমে এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন শেখ হাসিনা।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীকে স্মরণীয় করে রাখতে মুজিববর্ষে পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় দেশের ৪৯২ উপজেলার প্রতিটিতে ২০ হাজার ৩২৫টি করে বিভিন্ন প্রজাতির বনজ, ঔষধি ও ফলজ বৃক্ষের চারা বিতরণ করবে। বন বিভাগের মাধ্যমে এসব চারা বিতরণ করা হবে।

এরই মধ্যে প্রতিটি জেলার সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে জেলা পরিবেশ ও বন উন্নয়ন কমিটির সভার সিদ্ধান্তে ভিত্তিতে উপজেলা পরিবেশ ও বন উন্নয়ন কমিটি চারা বিতরণ বিষয়ে বিশদ পরিকল্পনা সহকারীদের তালিকা প্রণয়ন করেছে।

জানা গেছে, মুজিববর্ষে রোপণের জন্য এক কোটি চারার মধ্যে ৫০ শতাংশ ফলজ এবং অবশিষ্ট ৫০ ভাগ বনজ, ঔষধি ও শোভা বর্ধণকারী গাছ। কোনো বিদেশী গাছ লাগানো হবে না।