শিক্ষার্থী নির্যাতনের ঘটনায় যবিপ্রবি ছাত্রলীগ সভাপতিসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৭:৪৯:৫১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুন ২০২৪
  • / 18

যবিপ্রবি প্রতিনিধি

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) আবাসিক হলে শাহরীন রহমান প্রলয় (২৪) নামের এক শিক্ষার্থীকে রাতভর নির্যাতনের ঘটনায় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সোহেল রানাকে প্রধান আসামি করে ৮ ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (০৬ জুন) রাতে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী শাহরীন বাদী হয়ে যশোর কোতোয়ালি মডেল থানায় এ মামলা দায়ের করেছেন।

শুক্রবার (৭জুন) যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জুয়েল ইমরান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলায় অন্যান্য আসামীরা হলেন পিইএসএস বিভাগের স্নাতক ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের ইসাদ হোসেন (২), একই বিভাগের স্নাতক ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শাহীনুর ইসলাম (৩), স্নাতক ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের আমিনুল ইসলাম (৪), ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের স্নাতকোত্তর ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের বেলাল হোসেন (৫), পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের স্নাতক ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের রায়হান রহমান রাব্বি (৬), পিইএসএস বিভাগের স্নাতকোত্তর ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের বিভাগের বিপুল হাসান (৭) ও একই বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের আশিকুজ্জামান লিমনকে ৮ নম্বর আসামি করা হয়েছে।

এবিষয়ে যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জুয়েল ইমরান বলেন, ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী শাহরীন যশোর কোতোয়ালি থানায় এসে একটি লিখিত অভিযোগ করেন। এর প্রেক্ষিতে একটি নিয়মিত মামলা রজু করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের জন্য আমাদের অভিযান অব্যহত আছে। আশা করি আসামিরা দ্রুতই ধরা পড়বে।

উল্লেখ্য, গত সোমবার (০৩ জুন) কথা-কাটাকাটির জেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়ায় ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর বরাবর লিখিত অভিযোগ দেন শারীরিক শিক্ষা ও ক্রিড়া বিজ্ঞান (পিইএসএস) বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী শাহরীন রহমান। এই অভিযোগ দেওয়ায় তাকে আবাসিক হলে শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি সোহেল রানার কক্ষে (৩০৬ নং) রাতভর নির্যাতনের দাবী করেন ভুক্তভোগী ঐ শিক্ষার্থী। তিনি অভিযোগ করেন শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাকে বেধড়ক মারধর করে হল ছাড়ার হুমকি দেন, আর অভিযোগ না তুলে নিলে গুলি করে মেরে ফেলবেন। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডক্টর মোঃ আনোয়ার হোসেন বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দেন। লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে ইতিমধ্যে চার সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তারা ৭২ ঘন্টার মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করবেন।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

শিক্ষার্থী নির্যাতনের ঘটনায় যবিপ্রবি ছাত্রলীগ সভাপতিসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা

Update Time : ০৭:৪৯:৫১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুন ২০২৪

যবিপ্রবি প্রতিনিধি

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) আবাসিক হলে শাহরীন রহমান প্রলয় (২৪) নামের এক শিক্ষার্থীকে রাতভর নির্যাতনের ঘটনায় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সোহেল রানাকে প্রধান আসামি করে ৮ ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (০৬ জুন) রাতে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী শাহরীন বাদী হয়ে যশোর কোতোয়ালি মডেল থানায় এ মামলা দায়ের করেছেন।

শুক্রবার (৭জুন) যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জুয়েল ইমরান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলায় অন্যান্য আসামীরা হলেন পিইএসএস বিভাগের স্নাতক ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের ইসাদ হোসেন (২), একই বিভাগের স্নাতক ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শাহীনুর ইসলাম (৩), স্নাতক ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের আমিনুল ইসলাম (৪), ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের স্নাতকোত্তর ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের বেলাল হোসেন (৫), পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের স্নাতক ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের রায়হান রহমান রাব্বি (৬), পিইএসএস বিভাগের স্নাতকোত্তর ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের বিভাগের বিপুল হাসান (৭) ও একই বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের আশিকুজ্জামান লিমনকে ৮ নম্বর আসামি করা হয়েছে।

এবিষয়ে যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জুয়েল ইমরান বলেন, ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী শাহরীন যশোর কোতোয়ালি থানায় এসে একটি লিখিত অভিযোগ করেন। এর প্রেক্ষিতে একটি নিয়মিত মামলা রজু করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের জন্য আমাদের অভিযান অব্যহত আছে। আশা করি আসামিরা দ্রুতই ধরা পড়বে।

উল্লেখ্য, গত সোমবার (০৩ জুন) কথা-কাটাকাটির জেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়ায় ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর বরাবর লিখিত অভিযোগ দেন শারীরিক শিক্ষা ও ক্রিড়া বিজ্ঞান (পিইএসএস) বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী শাহরীন রহমান। এই অভিযোগ দেওয়ায় তাকে আবাসিক হলে শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি সোহেল রানার কক্ষে (৩০৬ নং) রাতভর নির্যাতনের দাবী করেন ভুক্তভোগী ঐ শিক্ষার্থী। তিনি অভিযোগ করেন শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাকে বেধড়ক মারধর করে হল ছাড়ার হুমকি দেন, আর অভিযোগ না তুলে নিলে গুলি করে মেরে ফেলবেন। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডক্টর মোঃ আনোয়ার হোসেন বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দেন। লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে ইতিমধ্যে চার সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তারা ৭২ ঘন্টার মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করবেন।