রিকশাচালক থেকে ৩ বাড়ির মালিক

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ১১:২৭:৫৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • / 157

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: 

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিজ বাড়ি থেকে মনির হোসেন ও তার স্ত্রী রহিমা বেগম ওরফে চম্পাকে (৩৮) ২০০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর।

এ সময় এই দম্পতির কাছে মাদক সরবরাহ করতে এসে আটক হয়েছেন আরেক চিহ্নিত মাদক কারবারি বানেছা বেগম (৪৮)।

বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত মনির হোসেন সেমন্তঘর গ্রামের মৃত মনা মিয়ার ছেলে ও পৌর এলাকার গোকর্ণঘাটের বাসিন্দা। আর আটক বানেছা বেগম দক্ষিণ পৈরতলার মৃত হুমায়ুন মিয়ার স্ত্রী।

স্থানীয়রা জানান, প্রায় ৮ থেকে ৯ বছর আগেও রিকশা চালিয়ে সংসার চালাতেন মনির। স্ত্রী রহিমাকে নিয়ে বসবাস করতেন পৌর এলাকার গোকর্ণঘাট গ্রামে। প্রায় ৬ বছর আগে মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েন তারা। এরই মধ্যে গোকর্ণঘাট ও ছয়বাড়িয়া গ্রামে তাদের এখন ৩টি বাড়ি রয়েছে। মাদক ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন মানুষের আনাগোনায় স্থানীয়রা তাদের মাদক ব্যবসার বিষয়টি জানতে পারে। যথাযথ প্রমাণ না থাকায় একাধিকবার মনির ও রহিমা দম্পতিকে ধরার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ব্রাহ্মণবাড়িয়া সার্কেলের সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান জানান, বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) সকালে তাদেরকে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করা হয়। বিকেলে মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করার পর তাদের সদর মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

রিকশাচালক থেকে ৩ বাড়ির মালিক

Update Time : ১১:২৭:৫৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: 

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিজ বাড়ি থেকে মনির হোসেন ও তার স্ত্রী রহিমা বেগম ওরফে চম্পাকে (৩৮) ২০০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর।

এ সময় এই দম্পতির কাছে মাদক সরবরাহ করতে এসে আটক হয়েছেন আরেক চিহ্নিত মাদক কারবারি বানেছা বেগম (৪৮)।

বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত মনির হোসেন সেমন্তঘর গ্রামের মৃত মনা মিয়ার ছেলে ও পৌর এলাকার গোকর্ণঘাটের বাসিন্দা। আর আটক বানেছা বেগম দক্ষিণ পৈরতলার মৃত হুমায়ুন মিয়ার স্ত্রী।

স্থানীয়রা জানান, প্রায় ৮ থেকে ৯ বছর আগেও রিকশা চালিয়ে সংসার চালাতেন মনির। স্ত্রী রহিমাকে নিয়ে বসবাস করতেন পৌর এলাকার গোকর্ণঘাট গ্রামে। প্রায় ৬ বছর আগে মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েন তারা। এরই মধ্যে গোকর্ণঘাট ও ছয়বাড়িয়া গ্রামে তাদের এখন ৩টি বাড়ি রয়েছে। মাদক ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন মানুষের আনাগোনায় স্থানীয়রা তাদের মাদক ব্যবসার বিষয়টি জানতে পারে। যথাযথ প্রমাণ না থাকায় একাধিকবার মনির ও রহিমা দম্পতিকে ধরার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ব্রাহ্মণবাড়িয়া সার্কেলের সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান জানান, বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) সকালে তাদেরকে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করা হয়। বিকেলে মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করার পর তাদের সদর মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।