রায় শুনে ‘কিছুই পরিবর্তন হয়নি’ বললেন সোহেল চৌধুরীর মেয়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৭:২৮:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ মে ২০২৪
  • / ২৮ Time View

বিনোদন ডেস্ক

চিত্রনায়ক সোহেল চৌধুরী হত্যা মামলার রায় ঘোষিত হয়েছে। আজ ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-২-এর বিচারক অরুণাভ চক্রবর্তী এই রায় ঘোষণা করেন। রায় শুনে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন সোহেল চৌধুরীর কন্যা লামিয়া চৌধুরী।

লামিয়া চৌধুরী বলেন, ‘আমার বাবা তো ফেরত আসবে না। উনারা (অপরাধীরা) যেটা করেছেন, সেটার জবাব উনাদেরই দিতে হবে। উনাদের যাবজ্জীবন হোক কিংবা যেটাই হোক বাবার মৃত্যু আমার জীবনে যে প্রভাব ফেলেছে, তা কোনোভাবেই পরিবর্তন হবে না। রিয়েলিটি নিয়েই আমাকে থাকতে হবে। এখন তাদের বিচারে আমাদের কোনো কিছুই পরিবর্তন হয়নি, হবেও না।’

মামলার রায়ে চলচ্চিত্র প্রযোজক ও ব্যবসায়ী আজিজ মোহাম্মদ ভাই, ট্রাম্প ক্লাবের মালিক আফাকুল ইসলাম ওরফে বান্টি ইসলাম ও আদনান সিদ্দিকীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তারা তিনজনই পলাতক। এ ছাড়া আশিষ রায় চৌধুরী ও ইমনসহ বাকি ছয় আসামিকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

আইনজীবী ও আদালতসংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, মামলার অভিযুক্ত ৯ আসামির মধ্যে পাঁচজন পলাতক। তারা হলেন ব্যবসায়ী আজিজ মোহাম্মদ ভাই, আফাকুল ইসলাম ওরফে বান্টি ইসলাম, সেলিম খান, হারুন অর রশীদ। এ ছাড়া আসামি আশীষ রায় চৌধুরী, তারিক সাঈদ মামুন ও ফারুক আব্বাসী জামিনে আছেন। কারাগারে আছেন সানজিদুল ইসলাম ইমন।

১৯৯৮ সালের ১৮ ডিসেম্বর ঢাকার বনানীর ট্রাম্পস ক্লাবের সামনে আততায়ীর গুলিতে নিহত হন সোহেল চৌধুরী। এ ঘটনায় তার ভাই তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী বাদী হয়ে গুলশান থানায় একটি মামলা করেন।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

রায় শুনে ‘কিছুই পরিবর্তন হয়নি’ বললেন সোহেল চৌধুরীর মেয়ে

Update Time : ০৭:২৮:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ মে ২০২৪

বিনোদন ডেস্ক

চিত্রনায়ক সোহেল চৌধুরী হত্যা মামলার রায় ঘোষিত হয়েছে। আজ ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-২-এর বিচারক অরুণাভ চক্রবর্তী এই রায় ঘোষণা করেন। রায় শুনে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন সোহেল চৌধুরীর কন্যা লামিয়া চৌধুরী।

লামিয়া চৌধুরী বলেন, ‘আমার বাবা তো ফেরত আসবে না। উনারা (অপরাধীরা) যেটা করেছেন, সেটার জবাব উনাদেরই দিতে হবে। উনাদের যাবজ্জীবন হোক কিংবা যেটাই হোক বাবার মৃত্যু আমার জীবনে যে প্রভাব ফেলেছে, তা কোনোভাবেই পরিবর্তন হবে না। রিয়েলিটি নিয়েই আমাকে থাকতে হবে। এখন তাদের বিচারে আমাদের কোনো কিছুই পরিবর্তন হয়নি, হবেও না।’

মামলার রায়ে চলচ্চিত্র প্রযোজক ও ব্যবসায়ী আজিজ মোহাম্মদ ভাই, ট্রাম্প ক্লাবের মালিক আফাকুল ইসলাম ওরফে বান্টি ইসলাম ও আদনান সিদ্দিকীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তারা তিনজনই পলাতক। এ ছাড়া আশিষ রায় চৌধুরী ও ইমনসহ বাকি ছয় আসামিকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

আইনজীবী ও আদালতসংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, মামলার অভিযুক্ত ৯ আসামির মধ্যে পাঁচজন পলাতক। তারা হলেন ব্যবসায়ী আজিজ মোহাম্মদ ভাই, আফাকুল ইসলাম ওরফে বান্টি ইসলাম, সেলিম খান, হারুন অর রশীদ। এ ছাড়া আসামি আশীষ রায় চৌধুরী, তারিক সাঈদ মামুন ও ফারুক আব্বাসী জামিনে আছেন। কারাগারে আছেন সানজিদুল ইসলাম ইমন।

১৯৯৮ সালের ১৮ ডিসেম্বর ঢাকার বনানীর ট্রাম্পস ক্লাবের সামনে আততায়ীর গুলিতে নিহত হন সোহেল চৌধুরী। এ ঘটনায় তার ভাই তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী বাদী হয়ে গুলশান থানায় একটি মামলা করেন।