রাণীশংকৈলে নতুন করে ৩ জন করোনায় আক্রান্ত

  • Update Time : ০৬:৫২:০২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জুন ২০২০
  • / 150
হুমায়ুন কবির,রাণীশংকৈল, (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধিঃ
ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলায় নতুন করে তিনজন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়েছে।
.
গত ১ জুন ওই আক্রান্তদের নমূনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয় এবং আজ ৬ জুন শনিবার সন্ধ্যায় তাদের
রিপোর্ট পজিটিভ আসে। রোগিরা হলেন– রাণীশংকৈল বন্দরের পিতলাল দাসের মেয়ে বিলকিস দাস( ৩৫)
পৌর শহরের উত্তর ভান্ডারার কালু মিয়ার ছেলে ইমরান আলি( ৩৫) এবং ভরনিয়া মন্ডলপাড়া গ্রামের আব্বাস আলির ছেলে কে,এম,নবী( ৪৬)।
.
এদের মধ্যে বিলকিস দাস ও কে এম নবী ঢাকা ফেরত এবং ইমরান আলী গত ৩০ মে মৃতৃের পর শনাক্ত আমেনা বেগমের ছেলে । রাণীশংকৈল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিসংখ্যানবিদ খালেকুজ্জামান চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রোগীদের আইসোলেশনে নেয়া হয়নি। রোগিরা জানান, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাদেরকে আপাতত বাড়িতেই থাকতে বলেছেন। প্রসঙ্গত, রাণীশংকৈল হাসপাতালে করোনা ওয়ার্ডে ২০ টি সিটের মধ্যে ২ সিটে ২ জন রোগী আইসোলেশনে আছেন এবং ৬ জন বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন।
.
ইতোমধ্যে ৪ জন রোগি সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন এবং ১ জন আইসোলেশনে আসার আগেই বাড়িতে মারা গেছেন। এ ব্যাপারে রাণীশংকৈল হাসপাতালের টিএইচএ ডা: আব্দুস সামাদ চৌধূরী বলেন, আমরা আপাতত ২ জন রোগীকে হাসপাতালে আইসোলেশনে রেখেছি। বাকী রোগীদেরকে তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এদিকে, রোগিরা আইসোলেশনে না নেয়ায় দ্বিধাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন।
Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

রাণীশংকৈলে নতুন করে ৩ জন করোনায় আক্রান্ত

Update Time : ০৬:৫২:০২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জুন ২০২০
হুমায়ুন কবির,রাণীশংকৈল, (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধিঃ
ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলায় নতুন করে তিনজন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়েছে।
.
গত ১ জুন ওই আক্রান্তদের নমূনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয় এবং আজ ৬ জুন শনিবার সন্ধ্যায় তাদের
রিপোর্ট পজিটিভ আসে। রোগিরা হলেন– রাণীশংকৈল বন্দরের পিতলাল দাসের মেয়ে বিলকিস দাস( ৩৫)
পৌর শহরের উত্তর ভান্ডারার কালু মিয়ার ছেলে ইমরান আলি( ৩৫) এবং ভরনিয়া মন্ডলপাড়া গ্রামের আব্বাস আলির ছেলে কে,এম,নবী( ৪৬)।
.
এদের মধ্যে বিলকিস দাস ও কে এম নবী ঢাকা ফেরত এবং ইমরান আলী গত ৩০ মে মৃতৃের পর শনাক্ত আমেনা বেগমের ছেলে । রাণীশংকৈল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিসংখ্যানবিদ খালেকুজ্জামান চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রোগীদের আইসোলেশনে নেয়া হয়নি। রোগিরা জানান, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাদেরকে আপাতত বাড়িতেই থাকতে বলেছেন। প্রসঙ্গত, রাণীশংকৈল হাসপাতালে করোনা ওয়ার্ডে ২০ টি সিটের মধ্যে ২ সিটে ২ জন রোগী আইসোলেশনে আছেন এবং ৬ জন বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন।
.
ইতোমধ্যে ৪ জন রোগি সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন এবং ১ জন আইসোলেশনে আসার আগেই বাড়িতে মারা গেছেন। এ ব্যাপারে রাণীশংকৈল হাসপাতালের টিএইচএ ডা: আব্দুস সামাদ চৌধূরী বলেন, আমরা আপাতত ২ জন রোগীকে হাসপাতালে আইসোলেশনে রেখেছি। বাকী রোগীদেরকে তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এদিকে, রোগিরা আইসোলেশনে না নেয়ায় দ্বিধাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন।