রাণীশংকৈলে দুই অপহরণকারী গ্রেপ্তার, পুলিশের সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৬:৫৭:২৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৩১ Time View

হুমায়ুন কবির, রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও)প্রতিনিধিঃ
ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে বহুল আলোচিত উপজেলা থেকে অপহরণ
ও মুক্তিপণ আদায় অপরাধে জড়িত মূল হোতা, আসামীকে গ্রেফতার ও রহস্য উদঘাটন সম্পর্কে শনিবার ১০ফেব্রুয়ারি থানা পুলিশ স্থানীয় সাংবাদিকদের নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। সংবাদ সম্মেলনে থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি সোহেল রানা ও পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত মহসিন আলী জানান,উপজেলার নেকমরদ ভবানীপুর গ্রামের দানেশ আলীর মাদ্রাসা পড়ুয়া সপ্তম শ্রেণির ছাত্র মো. মিলন হারিয়ে যায়।
এ নিয়ে গত ৭ ফেব্রুয়ারি বুধবার তাঁর পিতা বাদী হয়ে ছেলেকে উদ্ধারের জন্য থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।
পরদিন ৮ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার থানায় এসে বাদী বলেন, অপহরণ কারীরা আমার ছেলের ব্যবহৃত মোবাইল দিয়ে ছেলের মুক্তিপণ বাবদ পঞ্চাশ হাজার টাকা দাবী করেন। এ নিয়ে থানায় একটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা রুজু করা হয়। সাথে সাথেই এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই শহিদুলের নেতৃত্বে একটি চৌকস অভিযানিক টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ২৪ ঘন্টার মধ্যে ঢাকা তেজগাঁও থেকে অপহরণ কারীদের গ্রেফতার করে এবং ভিকমিকে উদ্ধার করে রাণীশংকৈল থানায় নিয়ে আসে। অপহরণ কারীরা হলেন, লক্ষিপুরের রামগঞ্জ উপজেলার মধ্য দরবেশপুর গ্রামের আলাউদ্দিনের ছেলে রিয়াদ হোসেন (২৩) ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ফুটকিবাড়ি গ্রামের সামসুল হকের ছেলে ফিরোজ হাসান (২০)। পরে পরিবারের নিকট হস্তান্তর ও আসামীগণকে বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

রাণীশংকৈলে দুই অপহরণকারী গ্রেপ্তার, পুলিশের সংবাদ সম্মেলন

Update Time : ০৬:৫৭:২৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১০ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

হুমায়ুন কবির, রাণীশংকৈল (ঠাকুরগাঁও)প্রতিনিধিঃ
ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে বহুল আলোচিত উপজেলা থেকে অপহরণ
ও মুক্তিপণ আদায় অপরাধে জড়িত মূল হোতা, আসামীকে গ্রেফতার ও রহস্য উদঘাটন সম্পর্কে শনিবার ১০ফেব্রুয়ারি থানা পুলিশ স্থানীয় সাংবাদিকদের নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। সংবাদ সম্মেলনে থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি সোহেল রানা ও পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত মহসিন আলী জানান,উপজেলার নেকমরদ ভবানীপুর গ্রামের দানেশ আলীর মাদ্রাসা পড়ুয়া সপ্তম শ্রেণির ছাত্র মো. মিলন হারিয়ে যায়।
এ নিয়ে গত ৭ ফেব্রুয়ারি বুধবার তাঁর পিতা বাদী হয়ে ছেলেকে উদ্ধারের জন্য থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।
পরদিন ৮ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার থানায় এসে বাদী বলেন, অপহরণ কারীরা আমার ছেলের ব্যবহৃত মোবাইল দিয়ে ছেলের মুক্তিপণ বাবদ পঞ্চাশ হাজার টাকা দাবী করেন। এ নিয়ে থানায় একটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা রুজু করা হয়। সাথে সাথেই এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই শহিদুলের নেতৃত্বে একটি চৌকস অভিযানিক টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ২৪ ঘন্টার মধ্যে ঢাকা তেজগাঁও থেকে অপহরণ কারীদের গ্রেফতার করে এবং ভিকমিকে উদ্ধার করে রাণীশংকৈল থানায় নিয়ে আসে। অপহরণ কারীরা হলেন, লক্ষিপুরের রামগঞ্জ উপজেলার মধ্য দরবেশপুর গ্রামের আলাউদ্দিনের ছেলে রিয়াদ হোসেন (২৩) ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ফুটকিবাড়ি গ্রামের সামসুল হকের ছেলে ফিরোজ হাসান (২০)। পরে পরিবারের নিকট হস্তান্তর ও আসামীগণকে বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়।