রাজবাড়ীর যৌনকর্মীদের মাঝে খাদ্য বিতরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৭:১৫:৫১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৯ জুন ২০২০
  • / ১১৯ Time View

রাজবাড়ী জেলার দৌলতদিয়ার যৌনপল্লীতে যৌন কর্মীদের মধ্যে প্রয়োজনীয় খাদ্য বিতরণ করেছে আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী যুব সংগঠন জেসিআই ঢাকা ইয়াং চ্যাপ্টার। গত রবিবার জেসিআই ইয়াং তাদের ‘মানুষ মানুষের জন্য’ প্রকল্পের আওতায় এই খাদ্যসামগ্রী বিতরণ কর্মসূচি শুরু করে।

কোভিড-১৯ আঘাত হানার শুরুর দিকেই মার্চ মাসে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে দেশের সর্ববৃহত এই পতিতালয়টি। এরপর থেকেই ওই এলাকার প্রায় দুই হাজার যৌনকর্মীদের দুর্দশা চরমে উঠে। দেশের অন্যান্য খাতের শ্রমিকদের মতো রাজবাড়ীর যৌনকর্মীরাও মারাত্মক ঝুঁকির সম্মুখীন হয়। যথারীতি তারা এই মহামারী ও দুর্যোগে মূল সমাজ ব্যবস্থা থেকে সহানুভূতি, সহায়তা পেতে ব্যার্থ হয়।

এখানকার অধিকাংশ যৌনকর্মী ক্ষুধা ও দারিদ্র্যের মাঝে শিশু সন্তান এবং নিজেকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য লড়াই করে যাচ্ছে। তাই করোনাকালীন এই কঠিন পরিস্থিতিতে জেসিআই ঢাকা ইয়াং সকল নিয়ম মেনেই এই সাহসী উদ্যোগ নিয়েছে এবং ২৭ জুন ওই অঞ্চলে যৌনকর্মীদের মাঝে প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছে।

গোয়ালন্দ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশিকুর রহমানের সহায়তায় জেসিআই ঢাকা ইয়াংয়ের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট নাজমুল হোসেন এবং জেনারেল লিগ্যাল কাউন্সিলর সামিয়া রহমান ব্যক্তিগতভাবে উপস্থিত থেকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে।

বিতরণ করা প্রতিটি প্যাকেটে ১০ কেজি চাল, দুই কেজি মসুর ডাল, দুই কেজি ময়দা, এক কেজি চিনি এবং এক লিটার তেল ছিল যা ২৩০ জন যৌনকর্মীকে বিতরণ করা হয়।

এই প্রকল্পটি সংগঠিত ও বাস্তবায়নের ধারণাটি জেসিআই ঢাকা ইয়ং-এর ভাইস-প্রেসিডেন্ট সানজিদা শারমিনের। তিনি এই কঠিন সময়ে অসুবিধা হওয়া যৌনকর্মীদের ভয়াবহতা সম্পর্কিত বেশ কয়েকটি সংবাদ দেখেছিলেন এবং অশান্ত ছিলেন। তিনি এ বিষয়ে জেসিআই ঢাকা ইয়াংয়ের প্রেসিডেন্ট ইমতিয়াজ চৌধুরী অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করেন। সানজিদা শারমিনের নেতৃত্বে দ্রুত এই পরিকল্পনাটি তৈরি এবং কার্যকর করা হয়।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

রাজবাড়ীর যৌনকর্মীদের মাঝে খাদ্য বিতরণ

Update Time : ০৭:১৫:৫১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৯ জুন ২০২০

রাজবাড়ী জেলার দৌলতদিয়ার যৌনপল্লীতে যৌন কর্মীদের মধ্যে প্রয়োজনীয় খাদ্য বিতরণ করেছে আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী যুব সংগঠন জেসিআই ঢাকা ইয়াং চ্যাপ্টার। গত রবিবার জেসিআই ইয়াং তাদের ‘মানুষ মানুষের জন্য’ প্রকল্পের আওতায় এই খাদ্যসামগ্রী বিতরণ কর্মসূচি শুরু করে।

কোভিড-১৯ আঘাত হানার শুরুর দিকেই মার্চ মাসে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে দেশের সর্ববৃহত এই পতিতালয়টি। এরপর থেকেই ওই এলাকার প্রায় দুই হাজার যৌনকর্মীদের দুর্দশা চরমে উঠে। দেশের অন্যান্য খাতের শ্রমিকদের মতো রাজবাড়ীর যৌনকর্মীরাও মারাত্মক ঝুঁকির সম্মুখীন হয়। যথারীতি তারা এই মহামারী ও দুর্যোগে মূল সমাজ ব্যবস্থা থেকে সহানুভূতি, সহায়তা পেতে ব্যার্থ হয়।

এখানকার অধিকাংশ যৌনকর্মী ক্ষুধা ও দারিদ্র্যের মাঝে শিশু সন্তান এবং নিজেকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য লড়াই করে যাচ্ছে। তাই করোনাকালীন এই কঠিন পরিস্থিতিতে জেসিআই ঢাকা ইয়াং সকল নিয়ম মেনেই এই সাহসী উদ্যোগ নিয়েছে এবং ২৭ জুন ওই অঞ্চলে যৌনকর্মীদের মাঝে প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছে।

গোয়ালন্দ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশিকুর রহমানের সহায়তায় জেসিআই ঢাকা ইয়াংয়ের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট নাজমুল হোসেন এবং জেনারেল লিগ্যাল কাউন্সিলর সামিয়া রহমান ব্যক্তিগতভাবে উপস্থিত থেকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে।

বিতরণ করা প্রতিটি প্যাকেটে ১০ কেজি চাল, দুই কেজি মসুর ডাল, দুই কেজি ময়দা, এক কেজি চিনি এবং এক লিটার তেল ছিল যা ২৩০ জন যৌনকর্মীকে বিতরণ করা হয়।

এই প্রকল্পটি সংগঠিত ও বাস্তবায়নের ধারণাটি জেসিআই ঢাকা ইয়ং-এর ভাইস-প্রেসিডেন্ট সানজিদা শারমিনের। তিনি এই কঠিন সময়ে অসুবিধা হওয়া যৌনকর্মীদের ভয়াবহতা সম্পর্কিত বেশ কয়েকটি সংবাদ দেখেছিলেন এবং অশান্ত ছিলেন। তিনি এ বিষয়ে জেসিআই ঢাকা ইয়াংয়ের প্রেসিডেন্ট ইমতিয়াজ চৌধুরী অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করেন। সানজিদা শারমিনের নেতৃত্বে দ্রুত এই পরিকল্পনাটি তৈরি এবং কার্যকর করা হয়।