রমজানে ৬০০ টাকায় মাংস বিক্রির সিদ্ধান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০২:৩৬:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ মার্চ ২০২৪
  • / ৩২ Time View

মৎস্য ও প্রাণী সম্পদমন্ত্রী আব্দুর রহমান বলেছেন, রমজান উপলক্ষে আগামী ১০ মার্চ থেকে ঈদ পর্যন্ত রাজধানীর ২৩ স্থানে গরুর মাংস ৬০০ এবং খাসির মাংস ৯০০ টাকা কেজি হিসেবে বিক্রি করা হবে।

সোমবার (৪ মার্চ) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের দ্বিতীয় অধিবেশনে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

মৎস্য ও প্রাণী সম্পদমন্ত্রী বলেন, রাজধানীর ২৩টি স্থানে ১০ মার্চ থেকে ঈদের আগের দিন পর্যন্ত গরুর মাংস ৬০০ টাকা কেজিতে বিক্রি করা হবে। এছাড়া ওই সব স্থানে খাসির মাংস ৯০০ টাকা কেজিতে, ডিম প্রতি পিস সাড়ে দশ টাকা, ব্রয়লার সলিড মুরগির মাংস ২৮০ টাকা কেজিতে বিক্রি করা হবে। সক্ষমতা বাড়লে সারা দেশে এই দামে পণ্য বিক্রি করবে সরকার।

সারাদেশে বাজার দর ঠিক রাখতে ডিসিদের প্রতি আহ্বানও জানান প্রাণিসম্পদমন্ত্রী। তিনি বলেন, ব্যবসায়ীদের বলব রমজান মাসকে কেন্দ্র করে মানুষকে কষ্ট দেবেন না।বাজার দর নিয়ন্ত্রণে নৈতিক জায়গা ঠিক করতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, জাটকা ইলিশ ধরা বন্ধ শুরু ১১ মার্চ থেকে শুরু হবে। জাটকা ধরাটা বন্ধ হলে ইলিশ উৎপাদন বাড়বে। ইলিশ নদীতে থাকতে পারলে উৎপাদন বাড়বে।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

রমজানে ৬০০ টাকায় মাংস বিক্রির সিদ্ধান্ত

Update Time : ০২:৩৬:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ মার্চ ২০২৪

মৎস্য ও প্রাণী সম্পদমন্ত্রী আব্দুর রহমান বলেছেন, রমজান উপলক্ষে আগামী ১০ মার্চ থেকে ঈদ পর্যন্ত রাজধানীর ২৩ স্থানে গরুর মাংস ৬০০ এবং খাসির মাংস ৯০০ টাকা কেজি হিসেবে বিক্রি করা হবে।

সোমবার (৪ মার্চ) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের দ্বিতীয় অধিবেশনে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

মৎস্য ও প্রাণী সম্পদমন্ত্রী বলেন, রাজধানীর ২৩টি স্থানে ১০ মার্চ থেকে ঈদের আগের দিন পর্যন্ত গরুর মাংস ৬০০ টাকা কেজিতে বিক্রি করা হবে। এছাড়া ওই সব স্থানে খাসির মাংস ৯০০ টাকা কেজিতে, ডিম প্রতি পিস সাড়ে দশ টাকা, ব্রয়লার সলিড মুরগির মাংস ২৮০ টাকা কেজিতে বিক্রি করা হবে। সক্ষমতা বাড়লে সারা দেশে এই দামে পণ্য বিক্রি করবে সরকার।

সারাদেশে বাজার দর ঠিক রাখতে ডিসিদের প্রতি আহ্বানও জানান প্রাণিসম্পদমন্ত্রী। তিনি বলেন, ব্যবসায়ীদের বলব রমজান মাসকে কেন্দ্র করে মানুষকে কষ্ট দেবেন না।বাজার দর নিয়ন্ত্রণে নৈতিক জায়গা ঠিক করতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, জাটকা ইলিশ ধরা বন্ধ শুরু ১১ মার্চ থেকে শুরু হবে। জাটকা ধরাটা বন্ধ হলে ইলিশ উৎপাদন বাড়বে। ইলিশ নদীতে থাকতে পারলে উৎপাদন বাড়বে।