Homeক‌্যাম্পাসযবিপ্রবিতে সমাবর্তন ফি কমানোর দাবিতে মানববন্ধন

যবিপ্রবিতে সমাবর্তন ফি কমানোর দাবিতে মানববন্ধন

মোস্তফা গালিব(যবিপ্রবি প্রতিনিধি):

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (যবিপ্রবি) আসন্ন চতুর্থ সমাবর্তনের রেজিষ্ট্রেশন ফি কমানোর দাবি মেনে না নেওয়ার প্রেক্ষিতে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মুখে কালো কাপড় পড়ে মানববন্ধন করেছে।

সোমবার (২৩ জানুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সাধারণ শিক্ষার্থীরা এ মানববন্ধনের আয়োজন করে।

রেজিষ্ট্রেশনের জন্য শিক্ষার্থী প্রতি ৫০০০ (পাঁচ হাজার) টাকা নির্ধারন করেছিল বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষ।তবে পরবর্তীতে ফি কমিয়ে স্নাতক ৩০০০ টাকা ও স্নাতক-স্নাতকোত্তর সহ ৪৫০০ টাকা নির্ধারণ করে দেয় যবিপ্রবি।
কিন্তু শিক্ষার্থীদের দাবী স্নাতকদের জন্য ২০০০ টাকা এবং স্নাতকোত্তরদের জন্য ১০০০ টাকা।বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরাও এ দাবির সাথে একাত্মতা পোষণ করেন।

শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে না নিয়ে রেজিষ্ট্রেশনের সময় সীমা বৃদ্ধি করে প্রশাসন।কিন্তু শিক্ষার্থীরা তাদের দাবিতে অটল থেকে সমাবর্তন রেজিষ্ট্রেশনের বিজ্ঞপ্তির পরিপ্রেক্ষিতে মুখে কালো কাপড় বেঁধে মানববন্ধনে অংশ নেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক ও স্নাতকোত্তরের শতাধিক শিক্ষার্থী।

পিএমই বিভাগের ২০১৫-১৬ সেশনের শিক্ষার্থী রায়হান উদ্দিন বলেন, কালো কাপড়ের অন্তরালের মৌনতা,স্বেচ্ছাচারিতার বিরুদ্ধে, অন্যায়ের বিরুদ্ধ,এ নীরবতা উসকে দেওয়া আগুনের লেলিহান শিখা, সকল অন্যায়ের বিরুদ্ধে যুদ্ধের প্রতীক,আমরা হারছি না হারবো না।আমরা আমাদের দাবীতে অনড়।

এপিপিটি বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী আল জুবায়ের রনি বলেন, বর্তমান নির্ধারিত ফি দিয়ে হয়তোবা অনেক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করতে পারবে। কিন্তু আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীরা সকলে চাই সকল শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণমূলক সমাবর্তন যেন অন্তর্ভুক্ত সকল সাধারণ শিক্ষার্থীদের সকলে যেন তাদের কাঙ্ক্ষিত সমাবর্তনে অংশগ্রহণ করতে পারে। ৩ হাজার টাকায় অনেক শিক্ষার্থীরই একমাসের খাওয়া খরচ চলে। গ্রাজুয়েশনের পর এই অবস্থায় সকল শিক্ষার্থীদের নিজস্ব খরচ চালানো, জবের আবেদন করা সহ সব খরচ নিজেদের ই বহন করতে হয়। সুতরাং সকল শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণমূলক সমাবর্তন এর জন্য নিবন্ধন ফি পুনঃনির্ধারণ করার জন্য আমরা পুনরায় বিনীতভাবে অনুরোধ করছি। পাশাপাশি মূল সনদ ও সাময়িক সনদ উত্তোলন ফি অতিরিক্ত বেশি। এই অতিরিক্ত ফি কমিয়ে যথাক্রমে ৫০০/- ও ৩০০/- পুনঃনির্ধারণ করার জন্য অনুরোধ জানাই। গ্রাজুয়েশন শেষ করে এই অতিরিক্ত ফি দিয়ে সনদ উত্তোলন করাটা সাধারণ শিক্ষার্থীদের জন্য অনেক বড় বোঝা।

তিনি আরো বলেন, আমাদের আরো একটা দাবি হচ্ছে, ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের সকল শিক্ষার্থী যেন সমাবর্তনে অংশগ্রহণ করতে পারে তার প্রেক্ষিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য মাননীয় উপাচার্য স্যার কে বিনীতভাবে অনুরোধ করছি আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এখনো পর্যন্ত বেশিরভাগ শিক্ষার্থীর দাবি মেনে না নেওয়ায়, বেশিরভাগ শিক্ষার্থীর দাবিকে উহ্য রেখে গতকাল সমাবর্তনে রেজিস্ট্রেশন করার জন্য নোটিশ দেওয়া হয়েছে। এজন্য এই দাবিমূহের প্রেক্ষিতে আজ আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল সাধারণ শিক্ষার্থীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে সুশৃংখল ও শান্তিপূর্ণভাবে মুখে কালো কাপড় বেঁধে মৌন প্রতিবাদ ও মানববন্ধন করেছি।

রসায়ন বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী রাশেদ খান বলেন, সমাবর্তন রেজিষ্ট্রেশন ফি ২০০০ টাকা , মূল সনদ ও সাময়িক সনদ উত্তোলন ফি ৫০০ এবং ৩০০ টাকা করার দাবীতে ৮৩৫ শিক্ষার্থীর গণস্বাক্ষর সম্বলিত দুইটি স্বারকলিপি গত ১৫ই জানুয়ারী, ২০২৩ ইং-তে জমা দেওয়া হয়েছিলো। তবে যবিপ্রবির ছাত্রছাত্রীদের এই দাবী এখনো পূরণ হওয়ায় আজকে মুখে কালো কাপড় বেষ্টিত স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতিতে শান্তিপূর্ণ মানববন্ধনের মাধ্যমে মৌন প্রতিবাদ জানানো হলো। আমাদের মাননীয় উপাচার্য মহোদয় একজন অত্যন্ত প্রজ্ঞাবান ব্যক্তি, তিনি শিক্ষার্থীদের স্পন্দন বোঝেন, তাই যবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা তাদের দাবী মেনে নেওয়ার জন্য আরো একবার আর্জি জানাচ্ছে।

RELATED ARTICLES

Most Popular