মতলব উত্তরে হাত-পা বাঁধা কৃষি ব্যাংকের নৈশ প্রহরীর মৃতদেহ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ১০:৪১:৪৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৪৫ Time View

আল-আমিন ভূঁইয়া:

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার গজরা কৃষি ব্যাংকের নৈশ্য প্রহরী শাহাদাত হোসেন সাজ্জাদ (২০) এর হাত-পা বাঁধা মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রোববার সকালে উপজেলার গজরা ইউনিয়নের গজরা এলাকার কৃষি ব্যাংকের ছাদের পিলারের সাথে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় সাজ্জাদের মৃতদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশ খবর দেয় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ

নিহত শাহাদাত হোসেন সাজ্জাদ গজরা গ্রামের ছামাদ সরকারের এক মাত্র ছেলে। মেয়ে ও একটি। সাজ্জাদের ফুফু রহিমা বেগম ওই ব্যাংকে রান্না-বান্নার কাজ করতো। সে জানায়, রান্না বান্নার এক পর্যায়ে সাজ্জাদ রাতের ডিউটি শেষে বাড়ী না ফেরার খবর পেয়ে খুঁজতে থাকে। পরে ব্যাংকের ছাদে তাকে হাত-পা বাঁধা দেখতে পায়।

মা শিরিন বেগম জানান, দুই মাস হলো ব্যাংকে চাকরী করছে। মাত্র এক মাসের বেতন পেলো। প্রতিদিন বিকালে আসে আর সকালে বাসায় ফিরে। তাদেও কোন শত্রুপক্ষ নেই। কে তার ছেলেকে মেরেছে, তাদের বিচার চান তিনি।

কৃষি ব্যাংকের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শিমুল এই হত্যাকান্ডের বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কোন কথা বলতে নারাজ।
মতলব উত্তর থানা অফিসার ইনচার্জ শহীদ হোসেন জানান, এটি একটি রহস্যজনক মৃত্যু। তদন্ত কাজ চলছে, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাশেদুল হক চৌধুরী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ও সাংবাদিকদের এক ব্রিফিং এ বলেন, ব্যাংকের নৈশপ্রহরীর ঘটনার ব্যাপারে প্রাথমিক ভাবে জেনেছি, এ ব্যাপারে আসল রহস্য উদঘাটন করার চেষ্টা চলছে।

এ সময় এএসপি মতলব সার্কেল খায়রুল কবির, মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী অফিসার একি মিত্র চাকমা, পিবিআইর ওসি আতিকুর রহমান, ডিবির ওসি এনামুল হক চৌধুরী সহ এনএসআই , ডিএসবি সরজমিন তদন্ত করেন। এ ছাড়া চাঁদপুর জনতা ব্যাঃকের ডিজিএম মমতাজ উদ্দিন, এজিএম আরশাদ খান সরজমিন তদন্ত পূ্র্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানান। এসময় থানা পুলিশের এসআই আলামিন কাজল, এস আই আবুহানিফ, আব্দুল আউয়াল সহ আরও সঙ্গীয় ফোর্স ছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

মতলব উত্তরে হাত-পা বাঁধা কৃষি ব্যাংকের নৈশ প্রহরীর মৃতদেহ উদ্ধার

Update Time : ১০:৪১:৪৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

আল-আমিন ভূঁইয়া:

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার গজরা কৃষি ব্যাংকের নৈশ্য প্রহরী শাহাদাত হোসেন সাজ্জাদ (২০) এর হাত-পা বাঁধা মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রোববার সকালে উপজেলার গজরা ইউনিয়নের গজরা এলাকার কৃষি ব্যাংকের ছাদের পিলারের সাথে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় সাজ্জাদের মৃতদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশ খবর দেয় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ

নিহত শাহাদাত হোসেন সাজ্জাদ গজরা গ্রামের ছামাদ সরকারের এক মাত্র ছেলে। মেয়ে ও একটি। সাজ্জাদের ফুফু রহিমা বেগম ওই ব্যাংকে রান্না-বান্নার কাজ করতো। সে জানায়, রান্না বান্নার এক পর্যায়ে সাজ্জাদ রাতের ডিউটি শেষে বাড়ী না ফেরার খবর পেয়ে খুঁজতে থাকে। পরে ব্যাংকের ছাদে তাকে হাত-পা বাঁধা দেখতে পায়।

মা শিরিন বেগম জানান, দুই মাস হলো ব্যাংকে চাকরী করছে। মাত্র এক মাসের বেতন পেলো। প্রতিদিন বিকালে আসে আর সকালে বাসায় ফিরে। তাদেও কোন শত্রুপক্ষ নেই। কে তার ছেলেকে মেরেছে, তাদের বিচার চান তিনি।

কৃষি ব্যাংকের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শিমুল এই হত্যাকান্ডের বিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কোন কথা বলতে নারাজ।
মতলব উত্তর থানা অফিসার ইনচার্জ শহীদ হোসেন জানান, এটি একটি রহস্যজনক মৃত্যু। তদন্ত কাজ চলছে, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাশেদুল হক চৌধুরী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ও সাংবাদিকদের এক ব্রিফিং এ বলেন, ব্যাংকের নৈশপ্রহরীর ঘটনার ব্যাপারে প্রাথমিক ভাবে জেনেছি, এ ব্যাপারে আসল রহস্য উদঘাটন করার চেষ্টা চলছে।

এ সময় এএসপি মতলব সার্কেল খায়রুল কবির, মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী অফিসার একি মিত্র চাকমা, পিবিআইর ওসি আতিকুর রহমান, ডিবির ওসি এনামুল হক চৌধুরী সহ এনএসআই , ডিএসবি সরজমিন তদন্ত করেন। এ ছাড়া চাঁদপুর জনতা ব্যাঃকের ডিজিএম মমতাজ উদ্দিন, এজিএম আরশাদ খান সরজমিন তদন্ত পূ্র্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানান। এসময় থানা পুলিশের এসআই আলামিন কাজল, এস আই আবুহানিফ, আব্দুল আউয়াল সহ আরও সঙ্গীয় ফোর্স ছিলেন।