ভোটের আগে দিল্লির মূখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ১১:২৭:৩২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০২৪
  • / ২২ Time View

‘দুর্নীতিমুক্ত ভারত’-এর ডাক দিয়ে রাজনীতিতে উত্থান হয়েছিল অরবিন্দ কেজরিওয়ালের। তুমুল জনপ্রিয়তা পাওয়া কেজরিওয়াল নির্বাচিত হয়েছিলেন দিল্লির মূখ্যমন্ত্রী। এবার আবগারি মামলায় গ্রেফতার হলেন তিনি। বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) রাতে তাকে গ্রেফতার করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। খবর হিন্দুস্থান টাইমসের।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্থান টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, কেজরিওয়ালের গ্রেফতারের বিষয়ে আপাতত ইডির পক্ষ থেকে কিছু জানানো হয়নি। তবে তার দল আম আদমি পার্টির নেতা অতিশি এবং সৌরভ ভরদ্বাজরা জানিয়েছেন, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে সেই গ্রেফতারির বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন অতিশি।

তিনি বলেন, ইডি যে, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে গ্রেফতার করেছে, তা খারিজ করতে আমরা সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছি। আজ রাতেই যাতে শুনানি হয়, সেই আর্জি জানানো হয়েছে।

সংবাদমাধ্যমটির খবরে বলা হয়, বৃহস্পতিবার কেজরিওয়ালকে গ্রেফতার করা হতে পারে, সেই ইঙ্গিতটা সন্ধ্যা থেকেই মিলছিল। দিল্লি হাইকোর্টে কেজরিওয়ালের আর্জি খারিজ হয়ে যাওয়ার পরই সবরকমের প্রস্তুতি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনে আসেন ইডি কর্মকর্তারা। বাসভবনের বাইরে পুলিশ ও আধা-সামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়। তার বাসভবনে তল্লাশি চালানো হয়। জিজ্ঞাসাবাদও করা হয় বলে ইডি সূত্রে জানা গেছে।

এর জেরে সন্ধ্যা থেকেই কেজরিওয়ালের বাসভবনের সামনে জড়ো হতে থাকেন আম আদমি পার্টির কর্মী-সমর্থকরা। দিল্লি সরকারের মন্ত্রী ও দলের শীর্ষনেতারাও সেখানে জড় হন।

গত বছরের অক্টোবরে ইডি কেজরিওয়ালকে প্রথম সমন জারি করে ২ নভেম্বর হাজির হতে নির্দেশ দেয়। তখন থেকেই ধারণা করা হচ্ছিল দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীকে ইডি গ্রেফতার করতে পারে। গত ফেব্রুয়ারি মাসে এ মামলায় দিল্লির উপমুখ্যমন্ত্রী মনীশ সিসোদিয়াকে গ্রেফতার করে ইডি। আম আদমি পার্টির রাজ্যসভার সংসদ সদস্য সঞ্জয় সিংকে গত অক্টোবরে হেফাজতে নেয়া হয়।

যদিও কেজরিওয়াল একাধিকবার দাবি করেছেন, বিজেপি সরকারের নিয়ন্ত্রণাধীন সংস্থা ইডি তাকে গ্রেফতার করে আম আদমি পার্টিকে দমাতে চায়। আরও বেশ কয়েকটি বিরোধী দলও বিজেপির বিরুদ্ধে ইডিকে নিজ স্বার্থে কাজে লাগানোর অভিযোগ তুলেছে। তাদের দাবি, নেতাদের বিরুদ্ধে এই সংস্থাকে ব্যবহার করছে বিজেপি। আগামী ১০ এপ্রিল লোকসভা নির্বাচন। এর আগেই নেতাদের গ্রেফতারে এ ধরনের কাজ করা হচ্ছে।

কেজরিওয়াল কিছুদিন ধরেই বলে আসছিলেন, লোকসভা ভোটের আগে বিজেপি সরকার তাকে গ্রেফতার করবে। আবগারি মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটকে (ইডি) দিয়ে বারবার তাকে সমন করা হচ্ছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে দিল্লি হাইকোর্ট কেজরিওয়ালকে মদ বিক্রির নীতি মামলায় সুরক্ষা দিতে অপারগতা জানায়। এ আবেদনের জবাবে ইডিকে জবাব দিতে বলে। এর পরবর্তী শুনানির তারিখ নির্ধারণ করে আগামী ২২ এপ্রিল।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

ভোটের আগে দিল্লির মূখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল গ্রেফতার

Update Time : ১১:২৭:৩২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০২৪

‘দুর্নীতিমুক্ত ভারত’-এর ডাক দিয়ে রাজনীতিতে উত্থান হয়েছিল অরবিন্দ কেজরিওয়ালের। তুমুল জনপ্রিয়তা পাওয়া কেজরিওয়াল নির্বাচিত হয়েছিলেন দিল্লির মূখ্যমন্ত্রী। এবার আবগারি মামলায় গ্রেফতার হলেন তিনি। বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) রাতে তাকে গ্রেফতার করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। খবর হিন্দুস্থান টাইমসের।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্থান টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, কেজরিওয়ালের গ্রেফতারের বিষয়ে আপাতত ইডির পক্ষ থেকে কিছু জানানো হয়নি। তবে তার দল আম আদমি পার্টির নেতা অতিশি এবং সৌরভ ভরদ্বাজরা জানিয়েছেন, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে সেই গ্রেফতারির বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন অতিশি।

তিনি বলেন, ইডি যে, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে গ্রেফতার করেছে, তা খারিজ করতে আমরা সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছি। আজ রাতেই যাতে শুনানি হয়, সেই আর্জি জানানো হয়েছে।

সংবাদমাধ্যমটির খবরে বলা হয়, বৃহস্পতিবার কেজরিওয়ালকে গ্রেফতার করা হতে পারে, সেই ইঙ্গিতটা সন্ধ্যা থেকেই মিলছিল। দিল্লি হাইকোর্টে কেজরিওয়ালের আর্জি খারিজ হয়ে যাওয়ার পরই সবরকমের প্রস্তুতি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনে আসেন ইডি কর্মকর্তারা। বাসভবনের বাইরে পুলিশ ও আধা-সামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়। তার বাসভবনে তল্লাশি চালানো হয়। জিজ্ঞাসাবাদও করা হয় বলে ইডি সূত্রে জানা গেছে।

এর জেরে সন্ধ্যা থেকেই কেজরিওয়ালের বাসভবনের সামনে জড়ো হতে থাকেন আম আদমি পার্টির কর্মী-সমর্থকরা। দিল্লি সরকারের মন্ত্রী ও দলের শীর্ষনেতারাও সেখানে জড় হন।

গত বছরের অক্টোবরে ইডি কেজরিওয়ালকে প্রথম সমন জারি করে ২ নভেম্বর হাজির হতে নির্দেশ দেয়। তখন থেকেই ধারণা করা হচ্ছিল দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীকে ইডি গ্রেফতার করতে পারে। গত ফেব্রুয়ারি মাসে এ মামলায় দিল্লির উপমুখ্যমন্ত্রী মনীশ সিসোদিয়াকে গ্রেফতার করে ইডি। আম আদমি পার্টির রাজ্যসভার সংসদ সদস্য সঞ্জয় সিংকে গত অক্টোবরে হেফাজতে নেয়া হয়।

যদিও কেজরিওয়াল একাধিকবার দাবি করেছেন, বিজেপি সরকারের নিয়ন্ত্রণাধীন সংস্থা ইডি তাকে গ্রেফতার করে আম আদমি পার্টিকে দমাতে চায়। আরও বেশ কয়েকটি বিরোধী দলও বিজেপির বিরুদ্ধে ইডিকে নিজ স্বার্থে কাজে লাগানোর অভিযোগ তুলেছে। তাদের দাবি, নেতাদের বিরুদ্ধে এই সংস্থাকে ব্যবহার করছে বিজেপি। আগামী ১০ এপ্রিল লোকসভা নির্বাচন। এর আগেই নেতাদের গ্রেফতারে এ ধরনের কাজ করা হচ্ছে।

কেজরিওয়াল কিছুদিন ধরেই বলে আসছিলেন, লোকসভা ভোটের আগে বিজেপি সরকার তাকে গ্রেফতার করবে। আবগারি মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটকে (ইডি) দিয়ে বারবার তাকে সমন করা হচ্ছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে দিল্লি হাইকোর্ট কেজরিওয়ালকে মদ বিক্রির নীতি মামলায় সুরক্ষা দিতে অপারগতা জানায়। এ আবেদনের জবাবে ইডিকে জবাব দিতে বলে। এর পরবর্তী শুনানির তারিখ নির্ধারণ করে আগামী ২২ এপ্রিল।