ব্রাহ্মণবাড়িয়া সহিংসতা : আরও ৩ হেফাজতকর্মী গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০১:০৭:১৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ মে ২০২১
  • / 167
নিজস্ব প্রতিবেদক:

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সহিংসতায় জড়িত থাকার অভিযোগে আরও তিন হেফাজতকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (২৮ মে) সকালে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) মো. রইস উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গ্রেফতারকৃত তিনজনই হেফাজতে ইসলামের কর্মী ও সমর্থক। এ ঘটনায় জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে এ পর্যন্ত ৫০৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সেখানে আরও বলা হয়, সহিংস ঘটনাসমূহের প্রাপ্ত স্থিরচিত্র ও ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা করে অভিযুক্তদের শনাক্ত করে গ্রেফতার করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ঢাকা ও চট্টগ্রামে মাদরাসা ছাত্রদের ওপর পুলিশের হামলার খবরে গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাপক তাণ্ডব চালায় হেফাজতে ইসলামের কর্মীরা।

এ সময় পুলিশ সুপারের কার্যালয়, সিভিল সার্জনের কার্যালয়, প্রেস ক্লাবসহ ৩৮টি সরকারি-বেসরকারি স্থাপনায় হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে তারা। এ ঘটনায় নিহত হন ১২ জন।

এসব ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় ৪৯টি, আশুগঞ্জ থানায় চারটি ও সরাইল থানায় দুইটি ও রেলওয়ে থানায় একটিসহ মোট ৫৬টি মামলা হয়েছে। এ সব মামলায় ৪১৪ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ৩০-৩৫ হাজার লোককে আসামি করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সহিংসতা : আরও ৩ হেফাজতকর্মী গ্রেফতার

Update Time : ০১:০৭:১৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ মে ২০২১
নিজস্ব প্রতিবেদক:

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সহিংসতায় জড়িত থাকার অভিযোগে আরও তিন হেফাজতকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (২৮ মে) সকালে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) মো. রইস উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গ্রেফতারকৃত তিনজনই হেফাজতে ইসলামের কর্মী ও সমর্থক। এ ঘটনায় জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে এ পর্যন্ত ৫০৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সেখানে আরও বলা হয়, সহিংস ঘটনাসমূহের প্রাপ্ত স্থিরচিত্র ও ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা করে অভিযুক্তদের শনাক্ত করে গ্রেফতার করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ঢাকা ও চট্টগ্রামে মাদরাসা ছাত্রদের ওপর পুলিশের হামলার খবরে গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাপক তাণ্ডব চালায় হেফাজতে ইসলামের কর্মীরা।

এ সময় পুলিশ সুপারের কার্যালয়, সিভিল সার্জনের কার্যালয়, প্রেস ক্লাবসহ ৩৮টি সরকারি-বেসরকারি স্থাপনায় হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে তারা। এ ঘটনায় নিহত হন ১২ জন।

এসব ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় ৪৯টি, আশুগঞ্জ থানায় চারটি ও সরাইল থানায় দুইটি ও রেলওয়ে থানায় একটিসহ মোট ৫৬টি মামলা হয়েছে। এ সব মামলায় ৪১৪ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ৩০-৩৫ হাজার লোককে আসামি করা হয়েছে।