বুধবার থেকে ভারতে লকডাউন শিথিলের দ্বিতীয় দফা শুরু

  • Update Time : ০৬:৪২:৫০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩০ জুন ২০২০
  • / 152
আজ মঙ্গলবার ভারতে লকডাউন শিথিলের প্রথম দফা শেষ হচ্ছে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এ দিন বিকালে আবার জাতির উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখবেন। করোনার প্রকোপ ও চীনের আগ্রাসন নিয়ে তিনি কী বলেন তাই দেখার অপেক্ষায় ভারতবাসী। খবর এডিটিভির।
.

তবে একটি বিষয় স্পষ্ট– নতুন করে আর লকডাউন দিচ্ছে না ভারত। সোমবার রাতেই দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে, বুধবার থেকে লকডাউন শিথিলের দ্বিতীয় দফা শুরু হচ্ছে, যা চলবে ৩১ জুলাই পর্যন্ত। তবে এ যাত্রাতেও জ়োনভিত্তিক সংক্রমিত এলাকায় ৩১ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন থাকবে। সেখানে ছাড় থাকবে শুধু জরুরি পরিসেবায়। 

কোন এলাকা বা তার কতটা রেড জ়োনে থাকবে, তা নির্ধারণ করার অধিকার থাকবে রাজ্যগুলোর হাতে। লকডাউন শিথিলের প্রথম পর্বের তুলনায় দ্বিতীয় পর্বে নৈশকালীন কারফিউ এক ঘণ্টা কমবে অর্থাৎ এটি চলবে রাত ১০টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত।

দোকানে পাঁচজনের বেশি ক্রেতা ঢোকার নিষেধাজ্ঞাও তুলে নেয়া হচ্ছে। দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে– এ দফাতেও বন্ধ থাকছে মেট্রো রেল। খুলছে না সিনেমা হল, জিম, সুইমিংপুল, থিয়েটার, বার, প্রেক্ষাগৃহ। যে কোনো সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠান বা মিছিল বন্ধই থাকছে।

আরও এক মাস বন্ধ সব স্কুল-কলেজ ও কোচিং ইনস্টিটিউট। তবে ১৫ জুলাই থেকে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের ট্রেনিং ইনস্টিউটগুলো খোলা যাবে। সে ব্যাপারে বিশেষ নির্দেশিকা পরে জারি করা হবে। অভ্যন্তরীণ রেল ও বিমান পরিসেবা যেমন অল্প সংখ্যায় চলছে, তেমনই চালু থাকবে।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

বুধবার থেকে ভারতে লকডাউন শিথিলের দ্বিতীয় দফা শুরু

Update Time : ০৬:৪২:৫০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩০ জুন ২০২০
আজ মঙ্গলবার ভারতে লকডাউন শিথিলের প্রথম দফা শেষ হচ্ছে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এ দিন বিকালে আবার জাতির উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখবেন। করোনার প্রকোপ ও চীনের আগ্রাসন নিয়ে তিনি কী বলেন তাই দেখার অপেক্ষায় ভারতবাসী। খবর এডিটিভির।
.

তবে একটি বিষয় স্পষ্ট– নতুন করে আর লকডাউন দিচ্ছে না ভারত। সোমবার রাতেই দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে, বুধবার থেকে লকডাউন শিথিলের দ্বিতীয় দফা শুরু হচ্ছে, যা চলবে ৩১ জুলাই পর্যন্ত। তবে এ যাত্রাতেও জ়োনভিত্তিক সংক্রমিত এলাকায় ৩১ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন থাকবে। সেখানে ছাড় থাকবে শুধু জরুরি পরিসেবায়। 

কোন এলাকা বা তার কতটা রেড জ়োনে থাকবে, তা নির্ধারণ করার অধিকার থাকবে রাজ্যগুলোর হাতে। লকডাউন শিথিলের প্রথম পর্বের তুলনায় দ্বিতীয় পর্বে নৈশকালীন কারফিউ এক ঘণ্টা কমবে অর্থাৎ এটি চলবে রাত ১০টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত।

দোকানে পাঁচজনের বেশি ক্রেতা ঢোকার নিষেধাজ্ঞাও তুলে নেয়া হচ্ছে। দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে– এ দফাতেও বন্ধ থাকছে মেট্রো রেল। খুলছে না সিনেমা হল, জিম, সুইমিংপুল, থিয়েটার, বার, প্রেক্ষাগৃহ। যে কোনো সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠান বা মিছিল বন্ধই থাকছে।

আরও এক মাস বন্ধ সব স্কুল-কলেজ ও কোচিং ইনস্টিটিউট। তবে ১৫ জুলাই থেকে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের ট্রেনিং ইনস্টিউটগুলো খোলা যাবে। সে ব্যাপারে বিশেষ নির্দেশিকা পরে জারি করা হবে। অভ্যন্তরীণ রেল ও বিমান পরিসেবা যেমন অল্প সংখ্যায় চলছে, তেমনই চালু থাকবে।