বাংলাদেশ-ভুটান তিন সমঝোতা স্মারক সই, ১টি নবায়ন

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৮:৫২:৪০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ মার্চ ২০২৪
  • / ৩৩ Time View

বাংলাদেশ ও ভুটান তিনটি নতুন সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর করেছে এবং দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়াতে একটি নবায়ন করেছে।

নতুন সমঝোতা স্মারকগুলো হলো- কুড়িগ্রামে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা, থিম্পুতে একটি বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিট স্থাপন এবং ভোক্তা অধিকার বিষয়ে প্রযুক্তিগত সহযোগিতা।

সোমবার (২৫ মার্চ) প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে এ দুই নেতার মধ্যে বৈঠক শেষে ৩টি সমঝোতা স্মারক সই ও একটি চুক্তি নবায়ন করা হয়।

পরে দুই দেশের পক্ষে বইতে স্বাক্ষর করেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। সেগুলো হলো: সমঝোতা-১ ভুটানের রাজধানীতে থিম্পুতে একটি বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিট প্রতিষ্ঠা সংক্রান্ত, সমঝোতা-২ কুড়িগ্রামে ভুটানের বিনিয়োগে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা এবং সমঝোতা-৩ ভোক্তা সুরক্ষায় প্রযুক্তিগত সহযোগিতা সংক্রান্ত চুক্তি সই করা হয়। এছাড়াও নবায়ন হয়েছে সাংস্কৃতিক সহযোগিতা সংক্রান্ত চুক্তি।

চারদিনের বাংলাদেশ সফরের প্রথমদিনই রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক বসেন ভুটানের রাজা জিগমে খেসার নামগিয়েল ওয়াংচুক। দুপুর ১টার কিছু পরে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ের বৈঠকে অংশ নিতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পৌঁছান ভুটানের রাজা৷ এ সময়, টাইগারগেটে রাষ্ট্রীয় অতিথিকে স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷

পরে, দুই শীর্ষ নেতা একান্ত বৈঠকে বসেন৷ এ সময় উপস্থিত ছিলেন ভুটানের রানি জেতসুন পেমা৷ পরে, সেখানেই অনুষ্ঠিত হয় প্রতিনিধি পর্যায়ের বৈঠক৷ সবশেষ, দুই নেতার উপস্থিতিতে বাংলাদেশ-ভুটানের মধ্যে তিনটি সমঝোতা সই এবং একটি চুক্তি নবায়ন করা হয়।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

বাংলাদেশ-ভুটান তিন সমঝোতা স্মারক সই, ১টি নবায়ন

Update Time : ০৮:৫২:৪০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৫ মার্চ ২০২৪

বাংলাদেশ ও ভুটান তিনটি নতুন সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর করেছে এবং দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়াতে একটি নবায়ন করেছে।

নতুন সমঝোতা স্মারকগুলো হলো- কুড়িগ্রামে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা, থিম্পুতে একটি বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিট স্থাপন এবং ভোক্তা অধিকার বিষয়ে প্রযুক্তিগত সহযোগিতা।

সোমবার (২৫ মার্চ) প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে এ দুই নেতার মধ্যে বৈঠক শেষে ৩টি সমঝোতা স্মারক সই ও একটি চুক্তি নবায়ন করা হয়।

পরে দুই দেশের পক্ষে বইতে স্বাক্ষর করেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। সেগুলো হলো: সমঝোতা-১ ভুটানের রাজধানীতে থিম্পুতে একটি বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিট প্রতিষ্ঠা সংক্রান্ত, সমঝোতা-২ কুড়িগ্রামে ভুটানের বিনিয়োগে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা এবং সমঝোতা-৩ ভোক্তা সুরক্ষায় প্রযুক্তিগত সহযোগিতা সংক্রান্ত চুক্তি সই করা হয়। এছাড়াও নবায়ন হয়েছে সাংস্কৃতিক সহযোগিতা সংক্রান্ত চুক্তি।

চারদিনের বাংলাদেশ সফরের প্রথমদিনই রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক বসেন ভুটানের রাজা জিগমে খেসার নামগিয়েল ওয়াংচুক। দুপুর ১টার কিছু পরে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ের বৈঠকে অংশ নিতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পৌঁছান ভুটানের রাজা৷ এ সময়, টাইগারগেটে রাষ্ট্রীয় অতিথিকে স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷

পরে, দুই শীর্ষ নেতা একান্ত বৈঠকে বসেন৷ এ সময় উপস্থিত ছিলেন ভুটানের রানি জেতসুন পেমা৷ পরে, সেখানেই অনুষ্ঠিত হয় প্রতিনিধি পর্যায়ের বৈঠক৷ সবশেষ, দুই নেতার উপস্থিতিতে বাংলাদেশ-ভুটানের মধ্যে তিনটি সমঝোতা সই এবং একটি চুক্তি নবায়ন করা হয়।