পাটের শাড়ি না হলে এক সময় বিয়েই হতো না: প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০২:০৫:১১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ মার্চ ২০২৪
  • / ৪০ Time View

যেহেতু পাট পরিবেশবান্ধব তাই এটির বহুমুখীকরণ এবং পাট ব্যবহার করে নতুন নতুন পণ্য উৎপাদনের আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, পাটের সঙ্গে চামড়া মিশ্রিত করে বহু নতুন নতুন জিনিস তৈরি করা যায়। উদাহরণস্বরূপ তিনি বলেন, এই অনুষ্ঠানে একজন পাটের তৈরি জ্যাকেট পরে এসেছেন। সেটিকে ‘চমৎকার’ সম্মোধন করে প্রধানমন্ত্রী জানান, তিনি নিজেও পাটের শাড়ি পরেই অনুষ্ঠানে এসেছেন। বলেন, এক সময় বিয়েতে পাটের শাড়ি না দিলে বিয়েই হতো না। বিয়ে হলে পাটের শাড়ি দিতেই হতো। তবে কালের আবর্তনে সেগুলো এখন আর দেখা যায় না।

বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘জাতীয় পাট দিবস ২০২৪’ উদযাপন উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তবে, আওয়ামী লীগ সরকারের উদ্যোগেই বেসরকারি খাতে পাট শিল্পের ধীরে ধীরে উন্নয়ন হচ্ছে জানিয়ে শেখ হাসিনা ঘোষণা দেন, কৃষিপণ্য হিসেবে এখন থেকে পাটকেও প্রণোদণা দেয়া হবে। এসময় যারা পাটকল চালাচ্ছেন, তাদের এই শিল্পের প্রতি যত্নশীল হওয়ার আহ্বানও জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পাট এমন এক পণ্য যার চাহিদা শেষ হওয়ার নয়। সোনালি আঁশ অর্থনীতিতে বিরাট অবদান রাখতে পারে। দেশীয় শিল্পের কাঁচামাল যথাযথ ব্যবহার করতে পারলে শিল্প অনেক দূর যাবে, এমনটাও বলেন তিনি।

অনুষ্ঠানে ৬টি পাটকলের উদ্বোধন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। পাট খাতের সমৃদ্ধির ধারা চলমান রাখতে এবছর ১১টি ক্যাটাগরিতে ১১ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কার দেয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে সম্মাননা গ্রহণ করেন তারা।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

পাটের শাড়ি না হলে এক সময় বিয়েই হতো না: প্রধানমন্ত্রী

Update Time : ০২:০৫:১১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ মার্চ ২০২৪

যেহেতু পাট পরিবেশবান্ধব তাই এটির বহুমুখীকরণ এবং পাট ব্যবহার করে নতুন নতুন পণ্য উৎপাদনের আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, পাটের সঙ্গে চামড়া মিশ্রিত করে বহু নতুন নতুন জিনিস তৈরি করা যায়। উদাহরণস্বরূপ তিনি বলেন, এই অনুষ্ঠানে একজন পাটের তৈরি জ্যাকেট পরে এসেছেন। সেটিকে ‘চমৎকার’ সম্মোধন করে প্রধানমন্ত্রী জানান, তিনি নিজেও পাটের শাড়ি পরেই অনুষ্ঠানে এসেছেন। বলেন, এক সময় বিয়েতে পাটের শাড়ি না দিলে বিয়েই হতো না। বিয়ে হলে পাটের শাড়ি দিতেই হতো। তবে কালের আবর্তনে সেগুলো এখন আর দেখা যায় না।

বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘জাতীয় পাট দিবস ২০২৪’ উদযাপন উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তবে, আওয়ামী লীগ সরকারের উদ্যোগেই বেসরকারি খাতে পাট শিল্পের ধীরে ধীরে উন্নয়ন হচ্ছে জানিয়ে শেখ হাসিনা ঘোষণা দেন, কৃষিপণ্য হিসেবে এখন থেকে পাটকেও প্রণোদণা দেয়া হবে। এসময় যারা পাটকল চালাচ্ছেন, তাদের এই শিল্পের প্রতি যত্নশীল হওয়ার আহ্বানও জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পাট এমন এক পণ্য যার চাহিদা শেষ হওয়ার নয়। সোনালি আঁশ অর্থনীতিতে বিরাট অবদান রাখতে পারে। দেশীয় শিল্পের কাঁচামাল যথাযথ ব্যবহার করতে পারলে শিল্প অনেক দূর যাবে, এমনটাও বলেন তিনি।

অনুষ্ঠানে ৬টি পাটকলের উদ্বোধন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। পাট খাতের সমৃদ্ধির ধারা চলমান রাখতে এবছর ১১টি ক্যাটাগরিতে ১১ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কার দেয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে সম্মাননা গ্রহণ করেন তারা।