পবিপ্রবি’তে ৪র্থ দিনে সার্বজনীন পেনশন  প্রত্যাহারের দাবিতে সর্বাত্মক কর্মবিরতি

  • Update Time : ০৩:৫৭:৪৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই ২০২৪
  • / 22

আশিকুর রহমান, পবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ

পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পবিপ্রবি) সার্বজনীন পেনশন স্কিম প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহারের দাবিতে ৪র্থ দিনে আরও জোরালো ভাবে সর্বাত্মক কর্মবিরতি চলছে।

৪ জুলাই (বৃহস্পতিবার) বেলা ১১ টায় টানা ৪র্থ দিনে অর্থ মন্ত্রণালয়ের জারিকৃত পেনশন সংক্রান্ত বৈষম্যমূলক প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহার দাবিতে  বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি  কৃষি অনুষদের সামনে অবস্থা কর্মসূচি পালন করছে। অপরদিকে একই সময়ে কর্মচারী পরিষদ  প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থা কর্মসূচি পালন করছে।  অবস্থা কর্মসূচি পালন না করলেও কর্মবিরতি পালন করছেন পবিপ্রবি কর্মকর্তা পরিষদ।  আজ  শিক্ষকদের উপস্থিতি ছিলো অন্য  দিনের চেয়ে বেশি । এই সময় শিক্ষকরা তাদের বিভিন্ন দাবির কথা তুলে ধরেন। শিক্ষক, কর্মকর্তা কর্মচারীদের এই সর্বাত্মক কর্মবিরতিতে চরম ভোগান্তিতে পড়ছে শিক্ষার্থীরা।  স্থবির হয়ে পড়েছে পবিপ্রবির শিক্ষা কার্যক্রম।  শিক্ষার্থীরা দ্রুত এই সমস্যার সমাধানের দাবি জানান।

শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান মুন্না  বলেন,” শিক্ষকদের এই সর্বাত্মক কর্মবিরতি আন্দোলন হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকতা পেশাকে রক্ষা করার আন্দোলন, ভবিৎষতে যেনো ভালো শিক্ষার্থীরা শিক্ষক পেশায় আসতে পারে সেই আন্দোলন, বিশ্ববিদ্যালয় রক্ষার আন্দোলন, বাংলাদেশকে রক্ষা করার আন্দোলন। সবার জানা উচিত, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের অবহেলা করে কোনো জাতি কোনোদিন টেকসই উন্নয়ন সাধন করতে পারে না।”

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

পবিপ্রবি’তে ৪র্থ দিনে সার্বজনীন পেনশন  প্রত্যাহারের দাবিতে সর্বাত্মক কর্মবিরতি

Update Time : ০৩:৫৭:৪৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই ২০২৪

আশিকুর রহমান, পবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ

পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পবিপ্রবি) সার্বজনীন পেনশন স্কিম প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহারের দাবিতে ৪র্থ দিনে আরও জোরালো ভাবে সর্বাত্মক কর্মবিরতি চলছে।

৪ জুলাই (বৃহস্পতিবার) বেলা ১১ টায় টানা ৪র্থ দিনে অর্থ মন্ত্রণালয়ের জারিকৃত পেনশন সংক্রান্ত বৈষম্যমূলক প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহার দাবিতে  বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি  কৃষি অনুষদের সামনে অবস্থা কর্মসূচি পালন করছে। অপরদিকে একই সময়ে কর্মচারী পরিষদ  প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থা কর্মসূচি পালন করছে।  অবস্থা কর্মসূচি পালন না করলেও কর্মবিরতি পালন করছেন পবিপ্রবি কর্মকর্তা পরিষদ।  আজ  শিক্ষকদের উপস্থিতি ছিলো অন্য  দিনের চেয়ে বেশি । এই সময় শিক্ষকরা তাদের বিভিন্ন দাবির কথা তুলে ধরেন। শিক্ষক, কর্মকর্তা কর্মচারীদের এই সর্বাত্মক কর্মবিরতিতে চরম ভোগান্তিতে পড়ছে শিক্ষার্থীরা।  স্থবির হয়ে পড়েছে পবিপ্রবির শিক্ষা কার্যক্রম।  শিক্ষার্থীরা দ্রুত এই সমস্যার সমাধানের দাবি জানান।

শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান মুন্না  বলেন,” শিক্ষকদের এই সর্বাত্মক কর্মবিরতি আন্দোলন হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকতা পেশাকে রক্ষা করার আন্দোলন, ভবিৎষতে যেনো ভালো শিক্ষার্থীরা শিক্ষক পেশায় আসতে পারে সেই আন্দোলন, বিশ্ববিদ্যালয় রক্ষার আন্দোলন, বাংলাদেশকে রক্ষা করার আন্দোলন। সবার জানা উচিত, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের অবহেলা করে কোনো জাতি কোনোদিন টেকসই উন্নয়ন সাধন করতে পারে না।”