পদ্মায় নৌকাডুবি: মিলল তিনজনের মরদেহ, নিখোঁজ ১

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৫:২২:০১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৮ জুলাই ২০২০
  • / ৯৫ Time View
কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:

কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার চরসাদিপুর এলাকায় পদ্মা নদীতে নৌকাডুবির ঘটনায় নিখোঁজ চার শ্রমিকের মধ্যে তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা। এখনো জুয়েল শ্রমিক নদীতে নিখোঁজ রয়েছেন।

বুধবার রাত ৮টার দিকে তিনজনের মরদেহ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মজিবুর রহমান।

মৃতরা হলেন- ভেড়ামারা উপজেলার বাহাদুরপুর ইউননিয়নের জামালপুর গ্রামের রঞ্জিতের ছেলে জুবায়ের ওরফে জুবা (৩২), একই এলাকার আব্দুল জলিলের ছেলে শরিফুল ইসলাম এবং নজুর ছেলে জাকির (২৫)।

দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মরদেহ তিনটি উদ্ধার করে পাবনা ফায়ার সার্ভিস।

পাবনা ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক সাইফুজ্জামান জানান, মঙ্গলবার সকালে পদ্মা নদীতে নৌকাডুবির ঘটনায় নিখোঁজ চারজনের মরদেহ উদ্ধারে ডুবুরি দলসহ ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা কাজ করছে। বুধবার দুপুর ১টায় শরিফুল ইসলাম নামে একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। বেলা তিনটার দিকে প্রথম মরদেহ থেকে প্রায় ২শ গজ দূর থেকে জুবা নামে আরো একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। সন্ধ্যায় জাকির নামে আরো একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মজিবুর রহমান জানান, তিনজনের মরদেহ উদ্ধারের মধ্য দিয়ে আজকের উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার আবারো উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করা হবে। এখনো একজন নিখোঁজ রয়েছেন।

মঙ্গলবার সকালে পদ্মা নদীর চর সাদিপুর এলাকায় নৌকাডুবে যাওয়ার ঘটনায় ১৩ জনের মধ্যে ৯ জন শ্রমিক সাঁতরে এবং স্থানীয়দের সাহায্যে উদ্ধার হলেও সাঁতার না জানায় চারজন পানিতে ডুবে নিখোঁজ হয়। ঘটনার পর থেকেই নিখোঁজদের উদ্ধারে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দল। এখনো নিখোঁজ রয়েছেন ভেড়ামারা উপজেলার বাহাদুরপুর ইউনিয়নের জামালপুর গ্রামের হারান শেখের ছেলে জুয়েল (৩০)।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

পদ্মায় নৌকাডুবি: মিলল তিনজনের মরদেহ, নিখোঁজ ১

Update Time : ০৫:২২:০১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৮ জুলাই ২০২০
কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:

কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার চরসাদিপুর এলাকায় পদ্মা নদীতে নৌকাডুবির ঘটনায় নিখোঁজ চার শ্রমিকের মধ্যে তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা। এখনো জুয়েল শ্রমিক নদীতে নিখোঁজ রয়েছেন।

বুধবার রাত ৮টার দিকে তিনজনের মরদেহ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মজিবুর রহমান।

মৃতরা হলেন- ভেড়ামারা উপজেলার বাহাদুরপুর ইউননিয়নের জামালপুর গ্রামের রঞ্জিতের ছেলে জুবায়ের ওরফে জুবা (৩২), একই এলাকার আব্দুল জলিলের ছেলে শরিফুল ইসলাম এবং নজুর ছেলে জাকির (২৫)।

দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মরদেহ তিনটি উদ্ধার করে পাবনা ফায়ার সার্ভিস।

পাবনা ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক সাইফুজ্জামান জানান, মঙ্গলবার সকালে পদ্মা নদীতে নৌকাডুবির ঘটনায় নিখোঁজ চারজনের মরদেহ উদ্ধারে ডুবুরি দলসহ ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা কাজ করছে। বুধবার দুপুর ১টায় শরিফুল ইসলাম নামে একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। বেলা তিনটার দিকে প্রথম মরদেহ থেকে প্রায় ২শ গজ দূর থেকে জুবা নামে আরো একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। সন্ধ্যায় জাকির নামে আরো একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মজিবুর রহমান জানান, তিনজনের মরদেহ উদ্ধারের মধ্য দিয়ে আজকের উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার আবারো উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করা হবে। এখনো একজন নিখোঁজ রয়েছেন।

মঙ্গলবার সকালে পদ্মা নদীর চর সাদিপুর এলাকায় নৌকাডুবে যাওয়ার ঘটনায় ১৩ জনের মধ্যে ৯ জন শ্রমিক সাঁতরে এবং স্থানীয়দের সাহায্যে উদ্ধার হলেও সাঁতার না জানায় চারজন পানিতে ডুবে নিখোঁজ হয়। ঘটনার পর থেকেই নিখোঁজদের উদ্ধারে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারী দল। এখনো নিখোঁজ রয়েছেন ভেড়ামারা উপজেলার বাহাদুরপুর ইউনিয়নের জামালপুর গ্রামের হারান শেখের ছেলে জুয়েল (৩০)।