পতাকা ও প্রয়াত প্রেসিডেন্টের ছবি হাতে রাইসির জানাজায় লাখো মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৩:২২:০২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪
  • / 21

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ইরানের সদ্যপ্রয়াত প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি, দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেন আমির-আব্দোল্লাহিয়ান ও অন্যান্য সহযাত্রীদের দাফন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

মঙ্গলবার (২১ মে) ইরানের সংবাদমাধ্যম মেহের জানিয়েছে, সকালে ইরানের তাবরিজ শহরে জানাজা শুরু হয়েছে। এখানে প্রথম জানাজা শেষে রাইসির লাশ নেওয়া হবে রাজধানী শহর তেহরানে। বুধবার তেহরানে রাইসির জানাজা হওয়ার কথা রয়েছে। সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি তাতে অংশ নেবেন। এর একদিন পর জন্মশহর মাশাহাদে রাইসিকে দাফন করা হতে পারে।

লাখো ইরানি নাগরিক প্রেসিডেন্ট রাইসি ও তার সাত সহযাত্রীর দাফনে যোগ দিতে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের শহর তাবরিজের একটি কেন্দ্রীয় স্কয়ার থেকে পায়ে হেঁটে রওনা হন। এ সময় তাদের হাতে ছিল ইরানের পতাকা ও প্রয়াত প্রেসিডেন্টের ছবি।

আজারবাইজান সীমান্ত থেকে ফেরার পথে রোববার (১৯ মে) ইরানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়।

প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে রাতে বিধ্বস্ত হেলিকপ্টার ও প্রেসিডেন্ট রাইসির সন্ধান পাওয়া সম্ভব হয়নি। পরে সোমবার (২০ মে) সকালে হেলিকপ্টারের অবস্থান শনাক্তের পর ইরান জানায়, প্রেসিডেন্ট রাইসি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমিরাব্দুল্লাহিয়ানসহ তাদের সফরসঙ্গীরা নিহত হয়েছেন।

ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুতে ইরানের ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মাদ মোখবারকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে পাঁচ দিনের জাতীয় শোক ঘোষণা করা হয়েছে।

মোখবার দেশের দায়িত্ব গ্রহণের ৫০ দিনের মধ্যে জাতীয় নির্বাচন আয়োজন করবেন।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

পতাকা ও প্রয়াত প্রেসিডেন্টের ছবি হাতে রাইসির জানাজায় লাখো মানুষ

Update Time : ০৩:২২:০২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ইরানের সদ্যপ্রয়াত প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি, দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেন আমির-আব্দোল্লাহিয়ান ও অন্যান্য সহযাত্রীদের দাফন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

মঙ্গলবার (২১ মে) ইরানের সংবাদমাধ্যম মেহের জানিয়েছে, সকালে ইরানের তাবরিজ শহরে জানাজা শুরু হয়েছে। এখানে প্রথম জানাজা শেষে রাইসির লাশ নেওয়া হবে রাজধানী শহর তেহরানে। বুধবার তেহরানে রাইসির জানাজা হওয়ার কথা রয়েছে। সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি তাতে অংশ নেবেন। এর একদিন পর জন্মশহর মাশাহাদে রাইসিকে দাফন করা হতে পারে।

লাখো ইরানি নাগরিক প্রেসিডেন্ট রাইসি ও তার সাত সহযাত্রীর দাফনে যোগ দিতে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের শহর তাবরিজের একটি কেন্দ্রীয় স্কয়ার থেকে পায়ে হেঁটে রওনা হন। এ সময় তাদের হাতে ছিল ইরানের পতাকা ও প্রয়াত প্রেসিডেন্টের ছবি।

আজারবাইজান সীমান্ত থেকে ফেরার পথে রোববার (১৯ মে) ইরানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়।

প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে রাতে বিধ্বস্ত হেলিকপ্টার ও প্রেসিডেন্ট রাইসির সন্ধান পাওয়া সম্ভব হয়নি। পরে সোমবার (২০ মে) সকালে হেলিকপ্টারের অবস্থান শনাক্তের পর ইরান জানায়, প্রেসিডেন্ট রাইসি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমিরাব্দুল্লাহিয়ানসহ তাদের সফরসঙ্গীরা নিহত হয়েছেন।

ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুতে ইরানের ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মাদ মোখবারকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে পাঁচ দিনের জাতীয় শোক ঘোষণা করা হয়েছে।

মোখবার দেশের দায়িত্ব গ্রহণের ৫০ দিনের মধ্যে জাতীয় নির্বাচন আয়োজন করবেন।