নিয়ম ভেঙে মদ্যপান করায় ৬ ফুটবলার নির্বাসিত

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৮:১০:৪৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৮ জুন ২০২০
  • / ১২৫ Time View

এবার নিয়ম ভেঙে বাইরে বেরিয়ে মদ্যপানের অভিযোগে চীনের অনুর্ধ্ব-১৯ জাতীয় ফুটবল দলের ছয় খেলোয়াড়কে ৬ মাসের জন্য নির্বাসিত করেছে চীনের ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। কোচ চেং জাওদং দলের ফুটবলারদের এই অপরাধের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন। গত ৩০ মে আইন ভেঙে ওই ছয় ফুটবলার পানশালায় গিয়ে মদ্যপান করে বলে অভিযোগ রয়েছে।

কোচ বলেন, গত শনিবার ছয় ফুটবলার নিয়ম লঙ্ঘন করে। খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই আমরা ওদের অনুশীলন থেকে নির্বাসিত করার সিদ্ধান্ত নেই। ওদের বয়স নিতান্তই কম, তবে ওরা যেটা করেছে সেটা গুরুতর অপরাধ।

অপরাধের গুরুত্ব বিচার করে ছ’জনকে ছয় মাসের জন্য নির্বাসিত করেছে চীনের ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। তবে প্রত্যেকেই ঘটনার পর নিজেদের দোষ স্বীকার করে নিয়েছেন।

একইসঙ্গে অভিযুক্ত ছয় ফুটবলারকে তাদের ভুল শুধরে নেয়ার সুযোগ দেওয়া হবে বলেও জানান কোচ।

১ জুন থেকে আগামী ৩০ নভেম্বর অবধি জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক স্তরে সমস্ত রকম প্রতিযোগীতা থেকে তাদের নির্বাসিত করেছে দেশের ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। পরবর্তীতে ওই ফুটবলারদের ক্লাবের তরফ থেকে কী শাস্তি প্রদান করা হয়, সেটাই দেখার।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

নিয়ম ভেঙে মদ্যপান করায় ৬ ফুটবলার নির্বাসিত

Update Time : ০৮:১০:৪৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৮ জুন ২০২০

এবার নিয়ম ভেঙে বাইরে বেরিয়ে মদ্যপানের অভিযোগে চীনের অনুর্ধ্ব-১৯ জাতীয় ফুটবল দলের ছয় খেলোয়াড়কে ৬ মাসের জন্য নির্বাসিত করেছে চীনের ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। কোচ চেং জাওদং দলের ফুটবলারদের এই অপরাধের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন। গত ৩০ মে আইন ভেঙে ওই ছয় ফুটবলার পানশালায় গিয়ে মদ্যপান করে বলে অভিযোগ রয়েছে।

কোচ বলেন, গত শনিবার ছয় ফুটবলার নিয়ম লঙ্ঘন করে। খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই আমরা ওদের অনুশীলন থেকে নির্বাসিত করার সিদ্ধান্ত নেই। ওদের বয়স নিতান্তই কম, তবে ওরা যেটা করেছে সেটা গুরুতর অপরাধ।

অপরাধের গুরুত্ব বিচার করে ছ’জনকে ছয় মাসের জন্য নির্বাসিত করেছে চীনের ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। তবে প্রত্যেকেই ঘটনার পর নিজেদের দোষ স্বীকার করে নিয়েছেন।

একইসঙ্গে অভিযুক্ত ছয় ফুটবলারকে তাদের ভুল শুধরে নেয়ার সুযোগ দেওয়া হবে বলেও জানান কোচ।

১ জুন থেকে আগামী ৩০ নভেম্বর অবধি জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক স্তরে সমস্ত রকম প্রতিযোগীতা থেকে তাদের নির্বাসিত করেছে দেশের ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। পরবর্তীতে ওই ফুটবলারদের ক্লাবের তরফ থেকে কী শাস্তি প্রদান করা হয়, সেটাই দেখার।