নওগাঁর রাণীনগরে শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৪:২৪:৪৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুন ২০২৪
  • / 27

রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর রাণীনগরে সাড়ে তিন বছর বয়সী এক শিশু কণ্যাকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে মো. লেবু (৪৫) এর বিরুদ্ধে। বুধবার উপজেলার রণজনিয়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর থেকে স্থানীয়দের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। আর একটি পক্ষ বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। ধর্ষণ চেষ্টাকারী মো. লেবু রণজনিয়া গ্রামের মৃত মছির চৌধুরীর ছেলে বলে জানা গেছে।

শিশুটির দাদি জানান, ওইদিন দুপুরে আমার নাতনী বাড়ির বাহিরে খলিয়ানে খেলাধুলা করছিল। আর তার মা ভাত রান্না করছিলেন। এ সময় আমাদের প্রতিবেশি লেবু এসে আমার নাতনীকে কোলে নিয়ে খলিয়ানে বসে ছিল। ওই সময় আমরা যেন যার মত কাজে ব্যস্ত ছিলাম। কিছু সময় পর আমি খলিয়ানে গিয়ে নাতনীসহ লেবুকে দেখতে না পেয়ে ডাকাডাকি ও খোঁজাখুঁজি করতে থাকি। তাকে না পেয়ে আমার এক নাতীও তাদের খুঁজতে থাকেন। একপর্যায়ে খলিয়ানের পাশে পুকুরপাড়ে খড়ের পালার আড়ালে লেবু ও নাতনীকে বস্ত্রহীন অবস্থায় দেখেন ওই শিশুর বড় ভাই।

শিশুটির ভাই জানায়, দাদীর ডাক-চিৎকারে বাড়ির বাহিরে বের হয়ে ছোট বোনকে আমি খোঁজাখুঁজি করতে গিয়ে তাদের খড়ের পালার আড়ালে পাই। তখন আমি দেখি লেবু নিজে বস্ত্রহীন ও আমার বোনকে বস্ত্রহীন করে মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ চেষ্টা করছে। এ সময় আমি চিৎকার করে লোকজন ডাকতে লাগলে আমার বোনকে ফেলে রেখে লেবু পালিয়ে যায়।

শিশুর মা বলেন, ঘটনাটি আমরা গ্রামের মাতব্বর প্রধানদের জানিয়েছি। তারা যদি সুষ্ঠু বিচার না করে দেন তাহলে আইনের আশ্রয় নিব।

অভিযোগের বিষয়ে বক্তব্যের জন্য অভিযুক্ত লেবুর বাড়িতে সরেজমিনে গেলে তিনি পলাতক থাকায় তার কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে রাণীনগর থানার ওসি মো. আবু ওবায়েদ বলেন, খবর পাওয়ার পর শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। ভুক্তভোগী পরিবারকে থানায় আসতে বলা হয়েছে। তারা অভিযোগ বা মামলা দায়ের করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

নওগাঁর রাণীনগরে শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ

Update Time : ০৪:২৪:৪৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুন ২০২৪

রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর রাণীনগরে সাড়ে তিন বছর বয়সী এক শিশু কণ্যাকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে মো. লেবু (৪৫) এর বিরুদ্ধে। বুধবার উপজেলার রণজনিয়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর থেকে স্থানীয়দের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। আর একটি পক্ষ বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। ধর্ষণ চেষ্টাকারী মো. লেবু রণজনিয়া গ্রামের মৃত মছির চৌধুরীর ছেলে বলে জানা গেছে।

শিশুটির দাদি জানান, ওইদিন দুপুরে আমার নাতনী বাড়ির বাহিরে খলিয়ানে খেলাধুলা করছিল। আর তার মা ভাত রান্না করছিলেন। এ সময় আমাদের প্রতিবেশি লেবু এসে আমার নাতনীকে কোলে নিয়ে খলিয়ানে বসে ছিল। ওই সময় আমরা যেন যার মত কাজে ব্যস্ত ছিলাম। কিছু সময় পর আমি খলিয়ানে গিয়ে নাতনীসহ লেবুকে দেখতে না পেয়ে ডাকাডাকি ও খোঁজাখুঁজি করতে থাকি। তাকে না পেয়ে আমার এক নাতীও তাদের খুঁজতে থাকেন। একপর্যায়ে খলিয়ানের পাশে পুকুরপাড়ে খড়ের পালার আড়ালে লেবু ও নাতনীকে বস্ত্রহীন অবস্থায় দেখেন ওই শিশুর বড় ভাই।

শিশুটির ভাই জানায়, দাদীর ডাক-চিৎকারে বাড়ির বাহিরে বের হয়ে ছোট বোনকে আমি খোঁজাখুঁজি করতে গিয়ে তাদের খড়ের পালার আড়ালে পাই। তখন আমি দেখি লেবু নিজে বস্ত্রহীন ও আমার বোনকে বস্ত্রহীন করে মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ চেষ্টা করছে। এ সময় আমি চিৎকার করে লোকজন ডাকতে লাগলে আমার বোনকে ফেলে রেখে লেবু পালিয়ে যায়।

শিশুর মা বলেন, ঘটনাটি আমরা গ্রামের মাতব্বর প্রধানদের জানিয়েছি। তারা যদি সুষ্ঠু বিচার না করে দেন তাহলে আইনের আশ্রয় নিব।

অভিযোগের বিষয়ে বক্তব্যের জন্য অভিযুক্ত লেবুর বাড়িতে সরেজমিনে গেলে তিনি পলাতক থাকায় তার কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে রাণীনগর থানার ওসি মো. আবু ওবায়েদ বলেন, খবর পাওয়ার পর শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। ভুক্তভোগী পরিবারকে থানায় আসতে বলা হয়েছে। তারা অভিযোগ বা মামলা দায়ের করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।