নওগাঁর রাণীনগরে অগ্নিকান্ডে করাতকল সহ ৫টি দোকান ভুস্মীভূত

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৪:৩৭:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪
  • / 27

মোঃ আব্দুল মালেক, রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি:

নওগাঁর রাণীনগরে অগ্নিকান্ডে একটি করাতকল (সোয়ামিল) সহ ৫টি দোকান ঘর ভুস্মীভূত হয়েছে। মঙ্গলবার গভীর রাতে উপজেলার আবাদপুকুর বাজারের কাচুর মোড়ে জসিম মার্কেটে এ ঘটনাটি ঘটে।

এ অগ্নিকান্ডে ওই মার্কেটের ব্যাবসায়ী সিরাজুল ইসলাম বাবলু মন্ডলের একটি করাতকল (সোয়ামিল), আব্দুর রশিদের দু’টি ভেরাইটিজ দোকান, আক্তার হোসেনের হোমিও ওষুধের দোকান, নজরুল ইসলামের তেল-ডাবের দোকান ও একটি সেলুনের দোকান ঘরের মালামাল পড়ে গেছে। এতে ৫ ব্যবসায়ীর প্রায় ১৫ থেকে ১৮ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

জানা গেছে, প্রতিদিনের ন্যায় ব্যবসায়ীরা মঙ্গলবার রাতে করাতকল ও দোকান ঘর বন্ধ করে বাড়িতে চলে যায়। রাত আনুমানিক ৩টার দিকে করাতকলে ও দোকানে আগুন লাগার খবর পান তারা। এ সময় আগুন নিভানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হলে রাণীনগর ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেন। এরপর ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট গিয়ে এক ঘন্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আসেন। ততক্ষণে করাতকল ও করাতকলের কিছু মালামাল এবং ৫টি দোকান ঘরের সব মালামাল পুড়ে যায়।

মার্কেট ও করাতকলের (সোয়ামিল) মালিক সিরাজুল ইসলাম বাবলু মন্ডল জানান, রাত ৩টার দিকে আগুন লাগার খবর পাই। বিদ্যুতের শর্ট সার্কিট থেকে হয়তো এ আগুন লাগে। স্থানীয়রা অনেক চেষ্টা করেও আগুন নিভাতে পারেনি। পরে ফায়ার সার্ভিস এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। অগ্নিকান্ডে আমাদের ৫ ব্যবসায়ীর প্রায় ১৫ থেকে ১৮ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

রাণীনগর ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন বলেন, আগুন লাগার খবর আমাদের দেরিতে দেওয়া হয়েছে। খবর পাওয়ার পর ঘটনাস্থলে দুইটি ইউনিট পৌঁছে এক ঘন্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। বিদ্যুতের শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

নওগাঁর রাণীনগরে অগ্নিকান্ডে করাতকল সহ ৫টি দোকান ভুস্মীভূত

Update Time : ০৪:৩৭:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪

মোঃ আব্দুল মালেক, রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি:

নওগাঁর রাণীনগরে অগ্নিকান্ডে একটি করাতকল (সোয়ামিল) সহ ৫টি দোকান ঘর ভুস্মীভূত হয়েছে। মঙ্গলবার গভীর রাতে উপজেলার আবাদপুকুর বাজারের কাচুর মোড়ে জসিম মার্কেটে এ ঘটনাটি ঘটে।

এ অগ্নিকান্ডে ওই মার্কেটের ব্যাবসায়ী সিরাজুল ইসলাম বাবলু মন্ডলের একটি করাতকল (সোয়ামিল), আব্দুর রশিদের দু’টি ভেরাইটিজ দোকান, আক্তার হোসেনের হোমিও ওষুধের দোকান, নজরুল ইসলামের তেল-ডাবের দোকান ও একটি সেলুনের দোকান ঘরের মালামাল পড়ে গেছে। এতে ৫ ব্যবসায়ীর প্রায় ১৫ থেকে ১৮ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

জানা গেছে, প্রতিদিনের ন্যায় ব্যবসায়ীরা মঙ্গলবার রাতে করাতকল ও দোকান ঘর বন্ধ করে বাড়িতে চলে যায়। রাত আনুমানিক ৩টার দিকে করাতকলে ও দোকানে আগুন লাগার খবর পান তারা। এ সময় আগুন নিভানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হলে রাণীনগর ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেন। এরপর ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট গিয়ে এক ঘন্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আসেন। ততক্ষণে করাতকল ও করাতকলের কিছু মালামাল এবং ৫টি দোকান ঘরের সব মালামাল পুড়ে যায়।

মার্কেট ও করাতকলের (সোয়ামিল) মালিক সিরাজুল ইসলাম বাবলু মন্ডল জানান, রাত ৩টার দিকে আগুন লাগার খবর পাই। বিদ্যুতের শর্ট সার্কিট থেকে হয়তো এ আগুন লাগে। স্থানীয়রা অনেক চেষ্টা করেও আগুন নিভাতে পারেনি। পরে ফায়ার সার্ভিস এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। অগ্নিকান্ডে আমাদের ৫ ব্যবসায়ীর প্রায় ১৫ থেকে ১৮ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

রাণীনগর ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন বলেন, আগুন লাগার খবর আমাদের দেরিতে দেওয়া হয়েছে। খবর পাওয়ার পর ঘটনাস্থলে দুইটি ইউনিট পৌঁছে এক ঘন্টার প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। বিদ্যুতের শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।