দাঙ্গা-হাঙ্গামাকারীরা তাবলিগ জামাতের অনুসারী হতে পারে না: ধর্মমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৪:৫৯:৩৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ২৪ Time View

যারা দাঙ্গা-হাঙ্গামা করে তারা তাবলিগ জামাতের অনুসারী হতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন ধর্মমন্ত্রী ফরিদুল হক খান। বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগতীরের ইজতেমা ময়দান পরিদর্শন ও ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের সর্বোচ্চ সুবিধা দিতে প্রশাসনকে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন উল্লেখ করে ধর্মমন্ত্রী বলেন, সারাবিশ্ব থেকে আগত মুসুল্লিরা যেন তিল পরিমাণ কষ্ট না পায় সেজন্য প্রতিটি দপ্তর ও জনপ্রতিনিধিদের নির্দেশ দিয়েছেন। কেউ অসুস্থ হলে তাদের চিকিৎসায় সরকারি-বেসরকারি সহযোগিতা থাকছে।

হামদর্দ ল্যাবরেটরিজ (ওয়াকফ) বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. হাকীম মো. ইউছুফ হারুন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক আবুল ফাতে মোহাম্মদ সফিকুল ইসলাম, ওয়াকফ প্রশাসক আবু সালেহ মো. মহিউদ্দিন খাঁ।

এবার বিশ্ব ইজতেমায় মুসল্লিদের সুবিধার্থে সরকারি, বেসরকারি ও বিভিন্ন সংস্থার উদ্যোগে অর্ধশতাধিক ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। এ ছাড়া শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে শয্যা সংখ্যা বাড়ানোসহ জরুরি প্রয়োজনে অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের ব্যবস্থা থাকছে।

প্রসঙ্গত, আগামীকাল শুক্রবার (২ ফেব্রুয়ারি) শুরু হচ্ছে এবারের বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব (মাওলানা জুবায়ের অনুসারী)। এ পর্ব চলবে ৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। আবার চার দিন বিরতি দিয়ে ৯ ফেব্রুয়ারি ইজতেমার ২য় পর্ব (মাওলানা সাদ অনুসারী) শুরু হয়ে তা চলবে ১১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

দাঙ্গা-হাঙ্গামাকারীরা তাবলিগ জামাতের অনুসারী হতে পারে না: ধর্মমন্ত্রী

Update Time : ০৪:৫৯:৩৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

যারা দাঙ্গা-হাঙ্গামা করে তারা তাবলিগ জামাতের অনুসারী হতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন ধর্মমন্ত্রী ফরিদুল হক খান। বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগতীরের ইজতেমা ময়দান পরিদর্শন ও ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের সর্বোচ্চ সুবিধা দিতে প্রশাসনকে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন উল্লেখ করে ধর্মমন্ত্রী বলেন, সারাবিশ্ব থেকে আগত মুসুল্লিরা যেন তিল পরিমাণ কষ্ট না পায় সেজন্য প্রতিটি দপ্তর ও জনপ্রতিনিধিদের নির্দেশ দিয়েছেন। কেউ অসুস্থ হলে তাদের চিকিৎসায় সরকারি-বেসরকারি সহযোগিতা থাকছে।

হামদর্দ ল্যাবরেটরিজ (ওয়াকফ) বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. হাকীম মো. ইউছুফ হারুন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন জেলা প্রশাসক আবুল ফাতে মোহাম্মদ সফিকুল ইসলাম, ওয়াকফ প্রশাসক আবু সালেহ মো. মহিউদ্দিন খাঁ।

এবার বিশ্ব ইজতেমায় মুসল্লিদের সুবিধার্থে সরকারি, বেসরকারি ও বিভিন্ন সংস্থার উদ্যোগে অর্ধশতাধিক ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। এ ছাড়া শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে শয্যা সংখ্যা বাড়ানোসহ জরুরি প্রয়োজনে অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের ব্যবস্থা থাকছে।

প্রসঙ্গত, আগামীকাল শুক্রবার (২ ফেব্রুয়ারি) শুরু হচ্ছে এবারের বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব (মাওলানা জুবায়ের অনুসারী)। এ পর্ব চলবে ৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। আবার চার দিন বিরতি দিয়ে ৯ ফেব্রুয়ারি ইজতেমার ২য় পর্ব (মাওলানা সাদ অনুসারী) শুরু হয়ে তা চলবে ১১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।