দক্ষিণি অভিনেতাদের কে কত কোটি পারিশ্রমিক নেন

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : ০৮:৪৬:১০ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ৫৫ Time View

দক্ষিণ ভারতীয় অভিনেতাদের তারকাখ্যাতি এখন বিশ্বজুড়ে। রজনীকান্ত, যশ, আল্লু অর্জুন, প্রভাস, বিজয় এই নামগুলো ভারতের গণ্ডি পেরিয়ে নানা দেশের সিনেমাপ্রেমীদের কাছে ছড়িয়ে পড়েছে। শুধু তারকাখ্যাতি নয়, পারিশ্রমিকের দিক থেকেও বেশ এগিয়ে আছেন তারা। দক্ষিণি অভিনেতাদের কারো কারো পারিশ্রমিক শুনলে বিস্ময়ে চোখ কপালে উঠবে। সেখানকার সিনেমার বড় একটি বাজেটই রাখা হয় এসব তারকার পারিশ্রমিক হিসেবে।

প্রভাস
নাগ অশ্বিনের ‘কল্কি ২৮৯৮ এডি’ হতে চলেছে ভারতীয় সিনেমার সর্বকালের অন্যতম ব্যয়বহুল একটি সিনেমা। সিনেমাটিতে অভিনয়ের জন্য প্রভাস ১৫০ কোটি রুপি নিচ্ছেন। এটাই তার জন্য আদর্শ পারিশ্রমিক। রাধে শ্যাম, আদিপুরুষ বক্সঅফিসে ভালো করতে না পারলেও প্রভাসের তারকা শক্তি একটুও কমেনি। আপাতত মনে হচ্ছে, মারুথির ‘রাজ সাব’ এর জন্য তার পারিশ্রমিক সিনেমার সামগ্রিক ব্যয়ের সঙ্গে সামঞ্জস্য করলে বেশ কম।

জুনিয়র এনটিআর
জুনিয়র এনটিআর ‘ওয়ার টু’ এর জন্য ৩০ কোটি রুপি ও কোরাতালা শিবের ‘দেবরা’ এর জন্য ৬০ কোটি রুপি নিচ্ছেন। তাই হয়তো ভক্তরা বলবেন, দক্ষিণের অন্য তারকাদের চেয়ে তিনি কিছুটা সাশ্রয়ী। অথচ বলিউড অভিনেতা সাইফ আলী খানের চেয়ে তার পারিশ্রমিক চারগুণ।

থালাপতি বিজয়
থালাপতি বিজয়ের চলচ্চিত্রগুলোর সর্বাধিক বাজেট হলো সুপারস্টারের জন্য রাখা বরাদ্দ পারিশ্রমিক। তিনিই দর্শককে প্রেক্ষাগৃহে টেনে আনেন, তা ভারতে হোক বা ভারতের বাইরে। বিজয় তার আগামী সিনেমা ‘গ্রেটেস্ট অব অল টাইম’ এর জন্য ১৫০ কোটি রুপি পারিশ্রমিক নিচ্ছেন।

মহেশ বাবু
‘গুন্তুর কারাম’ এর জন্য মহেশ বাবু নিয়েছেন ৭৮ কোটি রুপি। সম্ভবত পরবর্তী সিনেমা ‘এসএসএমবি ২৯’ এর জন্য এসএস রাজামৌলির সঙ্গে লাভ ভাগাভাগির চুক্তি করেছেন তিনি। এটি একটি বড় বাজেটের জঙ্গল অ্যাডভেঞ্চার হতে যাচ্ছে।

কমল হাসান
বিক্রমের সাফল্যের পর কমল হাসান ‘ইন্ডিয়ান টু’ এর জন্য পারিশ্রমিক নিয়েছেন ১৫০ কোটি রুপি। সিনেমাটির পরিচালক এস শঙ্কর। বিক্রমে দুর্দান্ত অভিনয়ের পর পর্দায় তার যাদু দেখার অপেক্ষায় আছেন ভক্তরা।

রামচরণ
‘গেম চেঞ্জার’ এর পারিশ্রমিক হিসেবে রামচরণ নিয়েছেন ১৫০ কোটি রুপি। এই সিনেমাতে তার বিপরীতে কিয়ারা আদভানিকে দেখা যাবে। থ্রিলারটি পরিচালনা করছেন এস শঙ্কর।

আল্লু অর্জুন
সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক নেওয়ার দিক থেকে আল্লু অর্জুন আগে থেকেই পরিচিত। ‘পুষ্পা টু’ এর মোট উপার্জনের ৩০ শতাংশ পারিশ্রমিক হিসেবে পাবেন তিনি। একবার ভেবে দেখুন- যদি সিনেমাটি এক হাজার কোটি রুপির বেশি আয়, তাহলে তিনি কত পারিশ্রমিক পাবেন!

যশ
কেজিএফ সিরিজের মেগা সাফল্যের পর যশ তার পারিশ্রমিক অনেক বাড়িয়েছেন। রামায়ণের জন্য তিনি ১৫০ কোটি রুপি পকেটে ভরবেন। নীতেশ তিওয়ারির সিনেমাটিতে রাবণের চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি।

রজনীকান্ত
‘জেলার’ এর সাফল্যের পর ২৫০ কোটি টাকা পারিশ্রমিক নিয়ে এশিয়ার সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক পাওয়া অভিনেতা হয়েছেন রজনীকান্ত। তিনি লোকেশ কানাগরাজ সিনেমার জন্য এই বড় অঙ্কের পারিশ্রমিক পাচ্ছেন। এশিয়ার কোনো অভিনেতার জন্য এটাই সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক বলে বলিউড লাইফের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। সিনেমাটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘থালাইভার ১৭১’।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

দক্ষিণি অভিনেতাদের কে কত কোটি পারিশ্রমিক নেন

Update Time : ০৮:৪৬:১০ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৪

দক্ষিণ ভারতীয় অভিনেতাদের তারকাখ্যাতি এখন বিশ্বজুড়ে। রজনীকান্ত, যশ, আল্লু অর্জুন, প্রভাস, বিজয় এই নামগুলো ভারতের গণ্ডি পেরিয়ে নানা দেশের সিনেমাপ্রেমীদের কাছে ছড়িয়ে পড়েছে। শুধু তারকাখ্যাতি নয়, পারিশ্রমিকের দিক থেকেও বেশ এগিয়ে আছেন তারা। দক্ষিণি অভিনেতাদের কারো কারো পারিশ্রমিক শুনলে বিস্ময়ে চোখ কপালে উঠবে। সেখানকার সিনেমার বড় একটি বাজেটই রাখা হয় এসব তারকার পারিশ্রমিক হিসেবে।

প্রভাস
নাগ অশ্বিনের ‘কল্কি ২৮৯৮ এডি’ হতে চলেছে ভারতীয় সিনেমার সর্বকালের অন্যতম ব্যয়বহুল একটি সিনেমা। সিনেমাটিতে অভিনয়ের জন্য প্রভাস ১৫০ কোটি রুপি নিচ্ছেন। এটাই তার জন্য আদর্শ পারিশ্রমিক। রাধে শ্যাম, আদিপুরুষ বক্সঅফিসে ভালো করতে না পারলেও প্রভাসের তারকা শক্তি একটুও কমেনি। আপাতত মনে হচ্ছে, মারুথির ‘রাজ সাব’ এর জন্য তার পারিশ্রমিক সিনেমার সামগ্রিক ব্যয়ের সঙ্গে সামঞ্জস্য করলে বেশ কম।

জুনিয়র এনটিআর
জুনিয়র এনটিআর ‘ওয়ার টু’ এর জন্য ৩০ কোটি রুপি ও কোরাতালা শিবের ‘দেবরা’ এর জন্য ৬০ কোটি রুপি নিচ্ছেন। তাই হয়তো ভক্তরা বলবেন, দক্ষিণের অন্য তারকাদের চেয়ে তিনি কিছুটা সাশ্রয়ী। অথচ বলিউড অভিনেতা সাইফ আলী খানের চেয়ে তার পারিশ্রমিক চারগুণ।

থালাপতি বিজয়
থালাপতি বিজয়ের চলচ্চিত্রগুলোর সর্বাধিক বাজেট হলো সুপারস্টারের জন্য রাখা বরাদ্দ পারিশ্রমিক। তিনিই দর্শককে প্রেক্ষাগৃহে টেনে আনেন, তা ভারতে হোক বা ভারতের বাইরে। বিজয় তার আগামী সিনেমা ‘গ্রেটেস্ট অব অল টাইম’ এর জন্য ১৫০ কোটি রুপি পারিশ্রমিক নিচ্ছেন।

মহেশ বাবু
‘গুন্তুর কারাম’ এর জন্য মহেশ বাবু নিয়েছেন ৭৮ কোটি রুপি। সম্ভবত পরবর্তী সিনেমা ‘এসএসএমবি ২৯’ এর জন্য এসএস রাজামৌলির সঙ্গে লাভ ভাগাভাগির চুক্তি করেছেন তিনি। এটি একটি বড় বাজেটের জঙ্গল অ্যাডভেঞ্চার হতে যাচ্ছে।

কমল হাসান
বিক্রমের সাফল্যের পর কমল হাসান ‘ইন্ডিয়ান টু’ এর জন্য পারিশ্রমিক নিয়েছেন ১৫০ কোটি রুপি। সিনেমাটির পরিচালক এস শঙ্কর। বিক্রমে দুর্দান্ত অভিনয়ের পর পর্দায় তার যাদু দেখার অপেক্ষায় আছেন ভক্তরা।

রামচরণ
‘গেম চেঞ্জার’ এর পারিশ্রমিক হিসেবে রামচরণ নিয়েছেন ১৫০ কোটি রুপি। এই সিনেমাতে তার বিপরীতে কিয়ারা আদভানিকে দেখা যাবে। থ্রিলারটি পরিচালনা করছেন এস শঙ্কর।

আল্লু অর্জুন
সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক নেওয়ার দিক থেকে আল্লু অর্জুন আগে থেকেই পরিচিত। ‘পুষ্পা টু’ এর মোট উপার্জনের ৩০ শতাংশ পারিশ্রমিক হিসেবে পাবেন তিনি। একবার ভেবে দেখুন- যদি সিনেমাটি এক হাজার কোটি রুপির বেশি আয়, তাহলে তিনি কত পারিশ্রমিক পাবেন!

যশ
কেজিএফ সিরিজের মেগা সাফল্যের পর যশ তার পারিশ্রমিক অনেক বাড়িয়েছেন। রামায়ণের জন্য তিনি ১৫০ কোটি রুপি পকেটে ভরবেন। নীতেশ তিওয়ারির সিনেমাটিতে রাবণের চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি।

রজনীকান্ত
‘জেলার’ এর সাফল্যের পর ২৫০ কোটি টাকা পারিশ্রমিক নিয়ে এশিয়ার সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক পাওয়া অভিনেতা হয়েছেন রজনীকান্ত। তিনি লোকেশ কানাগরাজ সিনেমার জন্য এই বড় অঙ্কের পারিশ্রমিক পাচ্ছেন। এশিয়ার কোনো অভিনেতার জন্য এটাই সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক বলে বলিউড লাইফের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। সিনেমাটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘থালাইভার ১৭১’।